অগোছালো অবস্থা কারোর ই ভালো লাগে না, এমন কি যে কোণ কিছু এলোমেলো রাখে তার কাছে ও না!    অগোছালো অবস্থা কারোর ই ভালো লাগে না, এমন কি যে কোণ কিছু এলোমেলো রাখে তার কাছে ও না!

ঘরবাড়ীর অগোছালো অবস্থায় ক্লান্ত ও বিরক্ত? তাহলে এই কৌশলগুলো আপনার জন্য!

এরকম মানুষ খুঁজে পাওয়া অনেকটাই অসম্ভব যে অগোছালো অবস্থার প্রতি উদাসীন নয়! আমরা আমাদের বাড়ি ঘর পরিচ্ছন্ন, গোছানো বা পরিপাটি এবং আরামদায়ক পেতে সবসময় পছন্দ করি! কিন্তু এটা তখনই সম্ভব যখন আপনি ঘরকে নিয়মিত পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন ও পরিপাটি রাখবেন। মাঝে মাঝে এমন মনে হয় যে, আমরা যেনো অগোছালো ও বিশৃঙ্খল পরিস্থিতির নির্মম শিকার! আমরা এমন কিছু সহজ গোপন রহস্য প্রস্তুত করেছে, যেগুলো আপনার ঘরের পরিবেশকে পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন এবং পরিপাটি রাখতে শতভাগ সাহায্য করবে!

১. যে স্থান থেকে আপনি কোন জিনিস নিয়ে ব্যবহার করছেন সেটাকে সেখানে ব্যবহার শেষে রেখে দিন!

© Depositphotos   © Depositphotos

© Depositphotos © Depositphotos

প্রথমে নিশ্চিত করুন যে ঘরে প্রতিটি বস্তু রাখার নির্ধারিত স্থান রয়েছে! এই বিষয়গুলো খুঁজে বের করতে আপনার মূল্যবান সময়ের অনেক বেশি সময় ব্যয় করতে হবে না! আপনার এই কাজটা আপনাকে ঘরের ভেতরে থাকা জিনিসপত্রকে সঠিক বিন্যাসে রাখতে সাহায্য করবে! যদি আপনার ঘরের ভেতরে বিভিন্ন স্থানে জিনিসপত্র ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকে কখনোই আপনার ঘর গোছানো ও পরিপাটি রাখা সম্ভব হবেনা!

২. কিচেন কেবিনেটের দৃশ্যমান আবরনে প্লাস্টিক র‍্যাপিং পেপার দিয়ে মুড়িয়ে রাখুন!

© Depositphotos   © Depositphotos

© Depositphotos © Depositphotos

সাধারণত আপনাকে রান্নাঘরে সকল স্থানে তেল চটচটে একটা পদার্থের অবস্থা দেখতে পাবেন! আপনার ক্যাবিনেট, তাক, এবং কেবিনেট এর পেছনের আস্তর সাধারণত এ ধরনের তৈলাক্ত পদার্থে আক্রান্ত হয়! সে ক্ষেত্রে আপনি পুরো কিচেন ক্যাবিনেট উল্লেখিত স্থান গুলোতে প্লাস্টিকের পাতলা কাগজ দিয়ে মুড়িয়ে নিলে, তৈলাক্ত পদার্থ গুলো পাতলা কাগজের উপর বসবে! পরবর্তীতে আপনি শুধুমাত্র নতুন একটি প্লাস্টিকের পাতলা কাগজ সেগুলোর উপর বসিয়ে দিলেই আপনার কাজ অনেকাংশে কমে যাবে! কিচেনে থাকবে পরিপাটি ও পরিচ্ছন্ন!

৩. আপনার পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন করার জন্য গুলোকে একত্রে একটি জায়গায় রাখুন!

© Depositphotos   © Depositphotos

© Depositphotos © Depositphotos

একটি ছোট প্লাস্টিকের বাক্স অথবা বাটি হতে পারে আপনার পরিষ্কার করার এক উত্তম সঙ্গী! বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই দেখা যায়, যখন আমরা ঘর পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন করার কাজ করি, এক রুম থেকে অন্য রুমে ভিন্ন ভিন্ন জিনিস আনতে দৌড়াতে হয়! এ ক্ষেত্রে এ ধরনের বাক্স কিংবা বাটি ব্যবহার করলে আপনাকে আর পক্ষ থেকে অন্য কক্ষে দৌড়াতে হবে না!

৪. ছোট্ট বিরতির সময় ঘর পরিষ্কার করুন!

© Depositphotos   © Depositphotos

© Depositphotos © Depositphotos

আপনি অনেক গুরুত্বপূর্ণ কাজগুলো ফাকে অবসর সময়ে ছোট ছোট কাজগুলো করতে পারেন! উদাহরণস্বরূপ আপনি রান্না করে আসলেন চা বানানোর জন্য, চা তৈরি হতে কমপক্ষে ৩-৫ মিনিট অপেক্ষা করতে হবে! এই সময়ের মধ্যে আপনি অন্যান্য কিছু খাদ্য তৈরি করতে পারেন, অথবা আপনার কক্ষের মেঝে পরিষ্কার করতে পারেন!

৫. ধুলাবালি মুক্ত রাখতে ময়লা বিরোধী স্প্রে ব্যবহার করুন! 

© Depositphotos   © Depositphotos

© Depositphotos © Depositphotos

Anti-static spray বা ময়লা বিরোধী স্প্রে ব্যবহার ঘরের বিভিন্ন বিদ্যুৎ চালিত যন্ত্রপাতি, কিংবা কাঁচের কোন আবরনের বাহ্যিক অবয়ব পরিষ্কার রাখতে যথেষ্ট কার্যকর। এ ধরনের স্প্রে ব্যবহার করার ফলে, যন্ত্রপাতির বাহ্যিক অবয়ব স্বাভাবিকের তুলনায় দ্বিগুণ কম ময়লা দ্বারা আক্রান্ত হবে!  

৬. ময়লাময় কোন স্থানে ডিটারজেন্ট ব্যবহার করার পর কমপক্ষে ১৫ মিনিট অপেক্ষা করুন!

© Depositphotos   © Depositphotos

© Depositphotos © Depositphotos

এই নিয়মটা টাইলস সিরামিকের তৈরি কোন পৃষ্ঠ এমনকি প্লাস্টিকের তৈরি কোন জিনিসের ক্ষেত্রে সমানভাবে কার্যকর! বাসায় একদিন এভাবে চেষ্টা করে দেখুন! স্বাভাবিকের তুলনায় অনেক বেশি পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন হয়ে যাবে আপনার ঘরের কিংবা বাথরুমের মেঝে অথবা অন্য কোনো বস্তু!

৭. সপ্তাহের নির্দিষ্ট দিন অনুযায়ী আপনার কাজগুলোকে তালিকাবদ্ধ করুন

© Depositphotos   © Depositphotos

© Depositphotos © Depositphotos

যদিও ছবিতে সোমবার এবং শুক্রবারে কথা বলা হয়েছে, সম্পূর্ণ প্রতিকী! আমরা বোঝাতে চেয়েছি আপনার সাপ্তাহিক কাজগুলোকে নির্দিষ্ট দিন অনুযায়ী ভাগ করে নিন! উদাহরণস্বরূপ আপনি সোমবার দিন মহিলা কাপড় ধোয়ার জন্য রাখতে পারেন, মঙ্গল বার বাথরুম পরিষ্কারের জন্য, মুদি সামগ্রী ক্রয়ের জন্য বুধবার, মেঝে পরিষ্কারের জন্য বৃহস্পতিবার, পরিশেষে ঘরকে ময়লামুক্ত এবং ভ্যাকুয়াম ট্রেনিংয়ের জন্য শুক্রবার রাখতে পারেন! সাপ্তাহিক বন্ধ অনুযায়ী আপনি এ কাজগুলোকে ভিন্ন ভিন্ন দিনে ভাগ করে নিলে দেখবেন বন্ধের দিনে আপনাকে আর এগুলো করতে হচ্ছে না!

৮. আপনার প্রান্ত ঠিক করুন!

© Depositphotos   © Depositphotos

© Depositphotos © Depositphotos

যত বেশি ব্যবহার্য সামগ্রী ঘরে রাখবেন ততই বিশৃঙ্খল অবস্থা তৈরি হবে, এজন্য যে সকল জিনিস গুলো আপনার সত্যিকারের অর্থেই প্রয়োজন সেগুলোকে রাখুন, বাকিগুলো সরিয়ে ফেলুন! এতে করে জিনিসপত্রগুলো কে গুছিয়ে রাখা সহজ হবে!

৯. প্রতিমাসে কমপক্ষে ২০-৩০ টি জিনিস ফেলে দেয়ার ব্যবস্থা করুন!

© Depositphotos   © Depositphotos

© Depositphotos © Depositphotos

প্রত্যেকটা পরিবারের প্রতি মাসে অসংখ্য অব্যবহার্য জিনিসপত্র জমিয়ে রাখে! হতে পারে কোন প্যাকেট, লিফলেট, নিউজ পেপার, ম্যাগাজিন, স্যুভেনির, খালি পরিত্যক্ত বোতল ইত্যাদি! এজন্য মাসে অন্তত একবার হাতে একটি ব্যাগ অথবা বাক্স নিয়ে ঘরের সকল কোনায় বিচরণ করুন, খুঁজে বের করুন এমন কি জিনিস আছে যেটা আপনার আসলেই প্রয়োজন নেই, কিন্তু এখনো ঘরে জায়গা দখল করে বসে আছে! সেগুলোকে অবশ্যই ফেলে দেয়ার ব্যবস্থা করুন! 

১০. পরিবারের সকল সদস্যের জন্য ব্যক্তিগত জিনিস রাখার পাত্রের ব্যবস্থা করুন!

© Depositphotos   © Depositphotos   © Depositphotos   © Depositphotos

© Depositphotos © Depositphotos © Depositphotos © Depositphotos

ফ্যামিলির প্রত্যেকটি সদস্যদের জন্য নিজস্ব ব্যবহারযোগ্য বাক্স অথবা কোন পাত্রের ব্যবস্থা করতে পারেন যেখানে তারা তাদের ছোট ছোট প্রয়োজনীয় জিনিসগুলোকে গুছিয়ে রাখতে পারবেন! এতে করে ছোট ছোট জিনিস গুলো একটা শ্রেণীবিন্যাসে রাখা সম্ভব হবে!

১১. অতি পুরাতন জিনিস গুলোকে আলাদা করে অপসারণের ব্যবস্থা করুন!

© Depositphotos

© Depositphotos

আপনি আপনার কাপড় রাখার স্থান গুলোকে ভাল করে অনুসন্ধান করলে দেখবেন এমন অনেক কাপড় রয়েছে যেগুলো আসলে আপনি ব্যবহার করেন না কিংবা করতে চান না! সুতরাং সেই কাপড় গুলোকে রেখে স্তুপ তৈরি করার কোন মানেই হয়না! কোন গুলো পরবেন কোন গুলো পরবেন না, সেগুলোকে বিভিন্ন দলে ভাগ করে আলাদা করে যথাসময়ে অপসারণ করুন!

১২. একটা বিশেষ বাক্সের ব্যবহার করুন!  

© Depositphotos   © Depositphotos   © Depositphotos   © Depositphotos

© Depositphotos © Depositphotos © Depositphotos © Depositphotos

যাতে করে আপনি ব্যবহার করা ঘরের বিভিন্ন স্থান থেকে আনা জিনিসগুলোকে আবার আগের স্থানে রেখে দিতে পারবেন! কম সময় ব্যবহার করে আপনি এলোমেলোভাবে বিভিন্ন কক্ষে ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা ব্যবহার করা জিনিষ গুলো কে আবার আগের স্থানে ঠিক ঠিক জায়গায় রেখে আসা যথেষ্ট চ্যালেঞ্জিং! এজন্য প্রথমে ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা জিনিস গুলো কে একটি বিশেষ বাক্সে একত্রিত করুন, এরপর সে বাক্সটি নিয়ে ঘরে যে সব স্থান থেকে এগুলো কেন হয়েছিল সেখানে রেখে আসুন! আপনার কাজ অনেক সহজ হয়ে গেছে!

আপনি কি গতানুগতিক পদ্ধতিতে ঘর পরিচ্ছন্ন ও পরিপাটি রাখেন! নাকি কোন কৌশল ব্যবহার করেন? আমাদের সাথে আপনার মূল্যবান মতামত কমেন্টে জানাতে পারেন! সাথে থাকার জন্য অসংখ্য ধন্যবাদ.... 



জনপ্রিয়