যে খাদ্য তালিকা নতুন গন্তব্যস্থানের সময়ের সাথে মানিয়ে নিতে সাহায্য করবে। যে খাদ্য তালিকা নতুন গন্তব্যস্থানের সময়ের সাথে মানিয়ে নিতে সাহায্য করবে।

যে খাদ্য তালিকা নতুন গন্তব্যস্থানের সময়ের সাথে মানিয়ে নিতে সাহায্য করবে।

বিমান আবিষ্কারের সাথে সাথে মানুষ একটি নতুন ব্যাধির সাথেও পরিচিত হয় , সেটি হলো "জেট ল্যাগ"।
জেট ল্যাগ হলো দূরে ভ্রমণের পর নতুন গন্তব্যে নতুন সময়ের সাথে মানিয়ে নিতে না পারা। এই খাদ্য তালিক প্রতিটি পর্যটককে দ্রুত নতুন এলাকার সময়ের সাথে মানিয়ে নিতে সাহায্য করবে এবং ভ্রমণ অভিজ্ঞতা আরো সমৃদ্ধ করবে। 

নির্ধারণ এবং প্রস্তুতি

© frantic00 / depositphotos

© frantic00 / depositphotos

আপনার ফ্লাইটের দিন সহ আগের তিন দিন পর্যন্ত এই তালিকা অনুসরণ করলে নতুন এলাকায় নিজেকে মানিয়ে নিতে সহজ হবে। সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ খাবার হলো সকালের খাবার যা আমাদের ভিতরের ঘড়িকে বলে দিন শুরু হয়েছে। প্রথমদিকে নতুন গন্তব্যে সকালের খাবারের সময় নিশ্চিত হওয়া জরুরী ।

জরুরীঃ কফি,চা, কোমল পানীয়, এলকোহল যেগুলো তে ক্যাফেইন বিদ্যমান সেসব শুধুমাত্র বিকাল ৩-৫ টার মধ্যেই পান করা উত্তম। অন্য খাবার গুলো নিয়মিত সময়েই খেতে পারবেন। 

১ম দিনঃ ভোজন  

internet
এই দিন উচ্চ প্রোটিন সম্মৃদ্ধ খাবার খাওয়া উত্তম। যেমন- সকালে এবং দুপুরের খাবারে ডিম সাথে মাংস, উচ্চ প্রোটিন সম্মৃদ্ধ খাদ্যশস্য, রান্না করা শুষ্ক মটর। রাতে পাস্তা, প্যানকেক, আলু, ভাত, রুটি বা মিষ্টি মিষ্টির মতো উচ্চ-কার্বোহাইড্রেট খাবার খেতে পারেন।
 ক্যাফেইন এবং এলকোহল আপনার ঘড়ের টাইমজোনের বিকাল ৩-৫ টার মধ্যে পান করবেন। 

internet


২য় দিনঃ উপবাস 

internet
দ্বিতীয় দিন আপনার পরিমিত পরিমাণ খাবার খেতে হবে। প্রতি খাবারে সামান্য সালাদ, হালকা স্যুপ, ফল এবং জুস। সামান্য পরিমাণ উচ্চক্যালরি এবং চর্বিযুক্ত খাবার খাওয়ার চেষ্টা করুন। আবার বলছি, ক্যাফেইন এবং এলকোহল আপনার ঘড়ের টাইমজোনের বিকাল ৩-৫ টার মধ্যে পান করবেন। 

internet

৩য় দিন এবং ৪র্থ দিনঃ অনেকটা একই

internet

internet

তৃতীয় দিন আপনি প্রথম দিনের মতো ভরপুর খাবার খান। চতুর্থ দিন-উপবাস। এই দিন আপনার ফ্লাইটের দিন। তো বিমানে আপনার সামান্য খাবার খেতে হবে। আপনার গন্তব্যস্থানে সকালের নাস্তার সময় পর্যন্ত ঘুমিয়ে নিন কিন্তু পরে নয়। জেগে উঠার পর উচ্চ প্রোটিন সম্মৃদ্ধ খাবার খান। জেগে থাকুন এবং দিনের খাবার নতুন গন্তব্যস্থানের সময় অনুযায়ী খেয়ে নিন।  আপনি যদি পশ্চিমে ভ্রমণ করেন তাহলে ক্যাফেইন সম্মৃদ্ধ পানীয় সকালে পান করুন। 
বিমানে এলকোহল জাতীয় কিছু খাবেন না। 

মানিয়ে নেওয়া

internet

internet


নতুন গন্তব্যস্থানে সকালের নাস্তার সময়েই উচ্চ প্রোটিন সম্পন্ন খাবার খাওয়ার মাধ্যমে আপনার উপবাস ভাঙুন। আপনার যাত্রার আগে কিছু খেয়ে নেওয়া ভালো, বিমানে কিছু অর্ডার করতে পারেন অথবা বাসা থেকে সামান্য কিছু নিয়ে আসতে পারেন। খাওয়ার আগে ঘুমানোর চেষ্টা করুন এবং সকালের খাবারের পর জেগে থাকার চেষ্টা করুন ।  



জনপ্রিয়