ডায়েট এবং ব্যায়াম ছাড়া ওজন কমানোর সহজ উপায় ডায়েট এবং ব্যায়াম ছাড়া ওজন কমানোর সহজ উপায়

ডায়েট এবং ব্যায়াম ছাড়া ওজন কমানোর সহজ উপায়

যখনই ওজন কমানোর কথা আসে, তখন আমরা সবসময় নারীদের কল্পনা করি যে তারা ক্লান্তিকর ব্যায়াম এবং ফল ও পারসলি খাচ্ছে। এটা সত্য যে, সাস্থ্যকর খাবার এবং শারীরিক ব্যায়াম ছাড়া কাঙ্ক্ষিত রেজাল্টে পৌঁছানো কঠিন। কিন্তু দেখা গেছে যে, ডায়েট এবং জিমে যাওয়া ছাড়াও অন্য উপায়ে শরীরের অতিরিক্ত চর্বি কমানো যায়।  

আজকে আমরা ডায়েট এবং ব্যায়াম ছাড়াই ওজন কমানোর কিছু কার্যকরি টিপস আপনাদের সামনে উপস্থাপন করছি।

 

১. লাল প্লেটে খাওয়া

© depositphotos   © depositphotos

© depositphotos © depositphotos

এটা কিছুটা অদ্ভুত মনে হতে পারে, কিন্তু গবেষণায় দেখা গেছে যে সাদা প্লেট বা নীল রঙের প্লেটে খাওয়ার চেয়ে লাল প্লেটে খেলে কম খাওয়া হয়। বিষয়টা হল যে, এই রঙটি নিষেধাজ্ঞার সাথে যুক্ত করা হয় এবং থামানোর একটি সংকেত, তাই স্বাভাবিকভাবেই মানুষেরা খাওয়া কমিয়ে দিবে। এটা নিয়ে একটা গবেষণা পরিচালিত হয়েছিল, যেখানে অংশগ্রহনকারীদের লাল, সাদা এবং নীল প্লেটে কুকি খেতে দিয়েছিল। যারা লাল প্লেটে খেয়েছিল তারা যারা অন্য রঙের প্লেটে খেয়েছে তাদের থেকে কম খেয়েছে।  

 

২. সরু এবং লম্বা গ্লাসে পান করা

© depositphotos   © depositphotos

© depositphotos © depositphotos

একটি হাস্যকর এবং বিজ্ঞানসম্মত প্রমাণিত সত্যঃ আপনি যদি লম্বা গ্লাসে পানীয় পান করেন, তাহলে আপনি প্রায় ২৫-৩০% কম পান করবেন। আমেরিকান বিজ্ঞানী ব্রায়ান ওয়ানসিক এটিকে দৃষ্টি বিভ্রম হিসেবে ব্যাখ্যা করেন যা মস্তিষ্কের ধাঁধা। পরীক্ষায় দেখা গেছে যে, এমনকি মদের দোকানের পরিষেবকেরা খাটো এবং প্রশস্ত গ্লাসে আরো বেশী পানীয় ঢেলে থাকে।  

 

৩. চোখের সামনে অস্বাস্থ্যকর খাবার না রাখা

© depositphotos   © depositphotos

© depositphotos © depositphotos

গবেষকেরা দেখিয়েছেন যে, মানুষেরা যদি হাই-ক্যালোরিক খাবার তাদের চোখের সামনে রাখে তাহলে তাদের অধিকাংশই মোটা হয়, অন্যদিকে যারা অস্বাস্থ্যকর খাবার তাদের চোখের আড়ালে রাখে এবং পরিবর্তে ফল জাতীয় কিছু রাখে তাদের ওজন কম হয়। বিষয়টা হল এমন যে, দেখতে সুস্বাদু (কিন্তু অস্বাস্থ্যকর) খাবার মুখরোচক এবং ক্ষুধা বাড়ায় এবং আপনাকে আরো বেশী খেতে প্রলুব্ধ করে। তাই, বাড়িতে শুধুমাত্র স্বাস্থ্যকর খাবার রাখা নিশ্চিত করুন।  

 

৪. বেশী পরিমাণে প্রোটিন খাওয়া

© depositphotos

© depositphotos

আপনি যখন প্রোটিন সমৃদ্ধ খাবার খাবেন তখন আপনার ক্ষুধা অতি দ্রুত চলে যাবে। গবেষণায় দেখানো হয়েছে যে, দৈনিক ডায়েটে ১৫% প্রোটিন বৃদ্ধি করে অংশগ্রহণকারীদের ক্যালোরি ৪৪০ কমাতে সহায়তা করেছে। এই কারণে, তারা কোন খাবার সীমিত না করেই ১২ সপ্তাহের মধ্যে গড়ে ১০ পাউন্ড অতিরিক্ত ওজন কমাতে পেরেছে।  

যেসব খাবারে সর্বাধিক প্রোটিন রয়েছেঃ মাংস (মুরগি এবং লাল মাংস), মাছ, ডিম, কটেজ চিজ, চিজ এবং মটরশুটি।

 

৫. হালকা ক্ষুধা লাগলে মিন্ট চুইংগাম চাবান

© depositphotos

© depositphotos

আপনার যখন হালকা ক্ষুধা লাগবে এবং অস্বাস্থ্যকর নাস্তা খাওয়ার রিস্ক নিতে না চাইলে, চিনিমুক্ত মিন্ট (পুদিনা) ফ্লেভারের বাবল-গাম চাবান। পুদিনার গন্ধ স্বাদ কুঁড়ির ফাংশন নিষ্প্রভ করে এবং তাৎক্ষণিক কোন কিছু খাওয়ার ইচ্ছাকে দূর করে।

 

৬. পানীয়ের মধ্যে বরফ যোগ করুন

© depositphotos

© depositphotos

আপনার পানীয়ের (কফি, চা, জুস এবং ককটেল) মধ্যে কিছু বরফ যোগ করুন এবং একটি স্ট্রো এর মাধ্যমে পান করুন। ঠান্ডা খাবার শরীরের অতিরিক্ত ক্যালোরি হ্রাস করে।

 

৭. আরো বেশী করে ঘুমান

© depositphotos

© depositphotos

২০১৩ সালে প্রকাশিত নেচার কমিউনিকেশন ম্যাগাজিনের গবেষণায় দেখা গেছে যে, যারা ৬ ঘণ্টারও কম সময় ঘুমায় তারা বেশি পরিমাণে উচ্চ-ক্যালোরি খাবার খায় এবং যথেষ্ট ঘুমানো লোকেদের চেয়ে বেশি ওজন লাভ করে। তাই, রাত্রে অন্তত ৭-৮ ঘন্টা ঘুমানোর চেষ্টা করুন।  

  

৮. একটু ছোট সাইজের পোশাক কিনুন

© depositphotos

© depositphotos

একটি পোশাক বা একটি নতুন জিন্স কিনুন যা আপনার থেকে কয়েক সাইজ ছোট এবং সেগুলো কক্ষের এওন জায়গায় রেখে দিন, যেখানে আপনি সেই পোশাকের টুকরা দেখতে পান। এইভাবে আপনার সামনে পড়লে আপনার সবসময় মনে হবে যে, এই পোশাকটা পরার জন্য ওজন কমাতে হবে।

 

৯. কারো সাথে একসঙ্গে ওজন কমান

© depositphotos

© depositphotos

আপনার বন্ধু বা যারা ওজন কমাতে চায় তাদের দলে যোগ দিন। এতে ওজন কমানোর প্রক্রিয়াটি আরো ফলপ্রসূ হবে। একটি গবেষণায় দেখা গেছে যে, যারা অন্য লোকেদের সাথে ওজন কমানোর প্রক্রিয়া শুরু করে তারা ২০% আরো বেশী তাদের টার্গেট অর্জন করতে পারে।

  

বোনাসঃ মেদ কমানোর জন্য আইস প্যাক ব্যবহার করা

© depositphotos

© depositphotos

ম্যাস্ট্রিক্ট বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকদের মতে, ঠান্ডা তাপমাত্রা চর্বি কমাতে সাহায্য করে। ঠান্ডা সাদা চর্বিকে বাদামী চর্বিতে রূপান্তরিত করে যা শরীরের দ্বারা সহজেই হজম হয়।

- একটি পাতলা কাপড় দিয়ে আইস প্যাকটি মোড়ান এবং যেখানে চর্বি আছে সেই এলাকায় এটি রাখুন।

- প্রায় ৩০ মিনিটের জন্য প্যাকেটটি রেখে দিন।

- এভাবে ১২ দিনের জন্য দিনে একবার করুন।      

 

আপনার কাছে কি সহজ উপায়ে ওজন কমানোর আরো কোন টিপস রয়েছে? কমেন্টে আমাদের শেয়ার করে জানান। 



জনপ্রিয়