হার্ভার্ড মনোবিজ্ঞানীদের দেয়া শীর্ষ প্যারেন্টিং টিপস হার্ভার্ড মনোবিজ্ঞানীদের দেয়া শীর্ষ প্যারেন্টিং টিপস

হার্ভার্ড মনোবিজ্ঞানীদের দেয়া শীর্ষ প্যারেন্টিং টিপস

সন্তান লালন পালন করা, মানুষ হিসেবে গড়ে তোলা আসলেই অনেক কঠিন কাজ। প্রত্যেক বাবা-মা তাদের বাচ্চাদের নৈতিকতা এবং ভাল আচরণের গুরুত্ব শেখাতে চায়। কিন্তু এই জটিলতাপূর্ণ জগতে, অভিভাবকদের কাছে তাদের সন্তানদেরকে ভাল মানুষ হিসেবে গড়ে তোলা আসলেই দিনদিন কঠিন হয়ে যাচ্ছে। এই অবস্থায় অভিভাবক হিসেবে আপনার করণীয় কি? 

প্রথমত, এটা বুঝতে হবে যে, বাচ্চাদের আচার আচরণ প্রাপ্তবয়স্কদের থেকে অনেক ভিন্ন। আমরা যদি কোন শিশুর মানসিক অবস্থা সম্পর্কে বুঝার চেষ্টা করি, তাহলে আমরা তার শব্দ এবং কাজগুলো আরো ভালভাবে বুঝতে পারব। এটি প্রত্যেক পিতামাকে ভাল হতে সাহায্য করবে।

বাচ্চাদেরকে ভাল মানুষ হিসেবে গড়ে তোলার জন্য হার্ভার্ডের মনোবিজ্ঞানীরা কিছু টিপস দিয়েছেনঃ

 

১. সঠিক বিষয় নিয়ে আলোচনা

Image: Shutterstock

Image: Shutterstock

একটা গুরত্বপূর্ণ বিষয় প্রত্যেকেরই বুঝতে হবে যে, বাচ্চাদের মনে ভাল মন্দ বিবেচনা করার ক্ষমতা থাকে না। ছোটবেলা থেকে তারা যা কিছু শিখে তা আপনার কাছ থেকেই দেখে দেখে শিখে। তাই তাদের সাথে সম্মান এবং যত্নশীল আচরণ করা দরকার। এছাড়াও, আপনার বাচ্চা যখন ভালবাসা অনুভব করে, তখন তারা আপনার সাথে আরো দৃঢ়ভাবে সম্পর্কযুক্ত অনুভব করে। এই সম্পর্কযুক্তটি আপনি তাদেরকে যে মূল্যাবোধের শিক্ষা প্রদান করেন, তা গ্রহণ করতে তাদেরকে সহায়তা করে। 

আপনি তাদের শারীরিক এবং মানসিক প্রয়োজনের দিকে লক্ষ্য রেখে বিভিন্ন উপায়ে আপনার ভালবাসা প্রকাশ করতে পারেন। এছাড়াও আপনি তাদের বিশেষ বৈশিষ্ট্যের দিক এবং তাদের কথার প্রতি আন্তরিক আগ্রহ দেখাতে পারেন।

 

২. তাদের কাছে আপনি যেমন হতে চান, সেভাবেই নিজেকে উপস্থাপন করুন

Image: Shutterstock

Image: Shutterstock

ছোট বাচ্চারা তাদের পিতামাতা এবং অন্যান্য প্রাপ্তবয়স্কদের প্রতি শ্রদ্ধা প্রদর্শন করে, তারা নৈতিক আচরণ এবং মূল্যবোধ শিখতে পারে। তাই, আপনার সন্তাদেরকে শেখানোর সর্বোত্তম উপায় হচ্ছে, তাদের কাছে নিজেকে সেভাবেই উপস্থাপন করা।

এক্ষেত্রে সবচেয়ে যে গুরুত্বপূর্ণ বিষয়টি মনে রাখতে হবে, তা হল- আপনি নিজে সৎ, নিরপেক্ষ থাকুন এবং নেতিবাচক আবেগগুলো কার্যকরভাবে নিয়ন্ত্রণ করুন। এছাড়াও, মানবিকতা প্রদর্শন করা অপরিহার্য। আপনি যদি কোন ভুল করে থাকেন, তাহলে তা স্বীকার করুন এবং সেই ভুল থেকে শিক্ষা নেয়ার চেষ্টা করুন। আপনি যত বেশি এই সুন্দর বৈশিষ্ট্যগুলো তাদের সামনে করে দেখাবেন, ততবেশি আপনি তাদের মধ্যে এই বৈশিষ্ট্যগুলো লক্ষ্য করতে পারবেন।

 

৩. প্রত্যকের যত্ন কিভাবে নিতে হয় তা করে দেখান

Image: Shutterstock

Image: Shutterstock

অন্য মানুষের প্রতি যত্ন নেওয়ার বিষয়ে বাবা-মায়ের কাছ থেকে দেখাটা বাচ্চাদের জন্য অত্যাবশ্যক। নিজের মনের সুখ এবং আনন্দের জন্য এটা কতটা অপরিহার্য তা আপনার বাচ্চাদেরকে জানতে দিন। প্রতিশ্রুতি রক্ষা করা, কঠিন হলেও সঠিক কাজ করা এবং ন্যায্য ও ন্যায়সঙ্গত কাজ করার মতো বিষয়গুলো ব্যাখ্যা দেয়ার চেষ্টা করুন।

 

৪. অনুশীলন করার সুযোগ দিন

Image: Shutterstock

Image: Shutterstock

বাচ্চাদেরকে তাদের দৈনন্দিন জীবনে কৃতজ্ঞতা এবং যত্নের মতো মূল্যবোধের বিষয়গুলো অনুশীলন করতে শিখতে হবে। তাদের জীবনে বৈচিত্র্য সৃষ্টিকারী ব্যক্তিদের কিভাবে প্রশংসা করতে হয় তা তারা শিখতে পারে। কেউ যদি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে, তাহলে তাদের মধ্যে উদার, সহায়ক, ক্ষমাশীল এবং সহানুভূতিশীল হওয়ার সম্ভাবনা বেশি রয়েছে।   

 

৫. তাদের মনের আকাশ প্রসারিত করুন 

Image: Shutterstock

Image: Shutterstock

প্রায় সব বাচ্চারাই স্বাভাবিকভাবে তাদের অভ্যন্তরীণ চেনাশুনার মধ্য থেকে কিভাবে তাদের বাবা-মা, আত্মীয় এবং ঘনিষ্ঠ বন্ধুজনকে চিহ্নিত করতে হয় তা তাৎক্ষণিক বুঝতে পারে। চ্যালেঞ্জটা তখনই আসে, যখন তাদের অভ্যন্তরীণ সার্কেলের বাইরের কাউকে একই সহানুভূতি প্রদর্শন করতে হয়। তাই, তাদের মনের আকাশ প্রসারিত করার চেষ্টা করুন। এটা হতে পারে, তাদেরকে নতুন বাচ্চাদের সাথে পরিচয় করিয়ে দিয়ে, যারা অন্য ভাষায় কথা বলে বা দূরবর্তী স্থানে বাস করে। 

 

৬. তাদেরকে নৈতিক চিন্তা করতে শেখান

Image: Shutterstock

Image: Shutterstock

ছোট বাচ্চারা স্বাভাবিকভাবেই জানতে আগ্রহী এবং তারা অনেক নৈতিক প্রশ্ন করে থাকে। এই প্রশ্নের উত্তরগুলো তাদেরকে ন্যায্য, ন্যায়পরায়ণ বা বিশ্বস্ত থাকার গুরুত্বকে বুঝতে সহায়তা করে। এছাড়াও, তারা তাদের আশেপাশে ইতিবাচক পরিবর্তন আনতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা গ্রহণ করতে আগ্রহী থাকে।

আপনি বাচ্চাদেরকে তাদের নিজেদের নৈতিক দ্বন্দ্বগুলো বুঝতে সহায়তা করুন, যা অবশেষে তাদের ইতবাচক সিদ্ধান্ত নেওয়া ক্ষমতাকে শক্তিশালী করবে।

আপনার কাছে কি শিশুদেরকে ভাল মানুষ হিসেবে গড়ে তোলার জন্য আরো কোন টিপস আছে? তাহলে কমেন্টে আমাদের সাথে শেয়ার করে জানান। প্রত্যেক পিতামাতার জন্য শুভকামনা রইল।     



জনপ্রিয়