যে খাবারগুলো আজ থেকে এড়িয়ে চলবেন       যে খাবারগুলো আজ থেকে এড়িয়ে চলবেন

যে খাবারগুলো আজ থেকে এড়িয়ে চলবেন

বাইরে বেড়াতে গেলে কিংবা রেস্টুরেন্টে খেতে গেলে বার্গার, ফ্রেঞ্চ ফ্রাই, চিকেন, কোমল পানীয়, সাদা চকোলেট ইত্যাদি মুখরোচক খাবার বা জাঙ্ক ফুড ছাড়া অনেকের চলেই না। মুখরোচক খাবারগুলোতে রয়েছে প্রচুর স্যাচুরেটেড ফ্যাট, ক্ষতিকর পদার্থ যা স্বাস্থ্যের জন্য বেশ ক্ষতিকর। যে খাবারগুলো আপনার ওজন বৃদ্ধি করার পাশাপাশি, অল্প বয়সেই আপনাকে বুড়িয়ে দিবে আপনাকে। যে খাবারগুলো আপনার আজ থেকে এড়িয়ে চলা উচিৎ সে খাবারগুলো সম্পর্কে জানবো আজকের আয়োজনে। চলুন দেখে আসা যাক-

১. টমেটো কেচাপ

টমেটো কেচাপ

টমেটো কেচাপ

বাজারে প্রচলিত টমেটো কেচাপে কোনো প্রকার ভিটামিন থাকে না বরং প্রচুর ফ্রুটকোস থাকে। ফলে, স্বাস্থ্যঝুঁকি বাড়ে।

২. সাদা চকোলেট

সাদা চকোলেট

সাদা চকোলেট

ডার্ক চকোলেট আমাদের স্বাস্থ্যের জন্য উপকারী হলেও, ফ্যাট ও ক্ষতিকর পদার্থ থাকার কারণে সাদা চকোলেট আপনার ওজন বৃদ্ধি করে ও নানা শারীরিক জটিলতার সৃষ্টি করে।

৩. সাদা ভাত

সাদা ভাত

সাদা ভাত

সাদা ভাতে প্রচুর কার্বোহাইড্রেট থাকে যা আপনাকে মোটা ও স্থূলাকায় করে। সাদা ভাতের পরিবর্তে বাদামী ভাত আপনার শরীরকে রাখবে সুস্থ।

৪. ফ্রেঞ্চ ফ্রাইস

ফ্রেঞ্চ ফ্রাইস

ফ্রেঞ্চ ফ্রাইস

ফ্রেঞ্চ ফ্রাইস অনেকেই বেশ পছন্দ করেন। খাবারটি এতটা অস্বাস্থ্যকর যে, নিয়মিত খেলে আপনার স্বাস্থ্যঝুঁকি বৃদ্ধি পাবে।

৫. সাদা রুটি

সাদা রুটি

সাদা রুটি

সাদা রুটিতে কোনো প্রকার ফাইবার ও ভিটামিন থাকে না, থাকে কার্বোহাইড্রেটের আধিক্য। যেসকল খাবারে পুষ্টি উপাদান থাকে না সে খাবার পরিহার করাই ভালো।

৬. কোমল পানীয়

কোমল পানীয়

কোমল পানীয়

কার্বনডাইঅক্সাইড, উচ্চ ফ্রুটকোস কর্ন সিরাপ, খাবার সোডা থাকার কারণে কোমল পানীয় ওজন বাড়ায় ও আপনার শরীরে নানা সমস্যার তৈরি করে।

৭. প্রক্রিয়াজাত ফাস্ট ফুড

প্রক্রিয়াজাত ফাস্ট ফুড

প্রক্রিয়াজাত ফাস্ট ফুড

বিভিন্ন ক্ষতিকর উপাদান থাকে যেমন বেকন, সসেজ থাকে বলে প্রক্রিয়াজাত বিভিন্ন ধরনের ফাস্টফুড স্বাস্থ্যঝুঁকি বাড়ায়। প্রক্রিয়াজাত ফাস্ট ফুড শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কমিয়ে স্বাস্থ্যঝুঁকির সৃষ্টি করে।

৮. মাইক্রোওয়েভ পপকর্ন

মাইক্রোওয়েভ পপকর্ন

মাইক্রোওয়েভ পপকর্ন

বাজারে প্যাকেটজাত মাইক্রোওয়েভ পপকর্নে সোডিয়াম এবং অতিরিক্ত ফ্যাট মেশানো থাকে। তাই, এগুলো খাওয়ার ফলে উপকারের চেয়ে অপকারই বেশি হয়।

৯. আলুর চিপস

আলুর চিপস

আলুর চিপস

তেলে ভাজা, সোডিয়াম ও অন্যান্য ক্ষতিকর উপাদানের কারণে এতে কোনো অ্যান্টিঅক্সিডেন্টও থাকে না। অতিরিক্ত আলুর চিপস আপনার শরীরের ওজন বৃদ্ধি করে নানা স্বাস্থ্য সমস্যার সৃষ্টি করতে পারে।

১০. পিৎজা

পিৎজা

পিৎজা

প্রচুর ফ্যাট থাকে এবং স্বাদ বৃদ্ধির জন্য বিভিন্ন উপাদান ব্যবহার করা হয় বলে অর্ডার দেওয়া ও রেস্টুরেন্টে গিয়ে পিৎজা খেলে স্বাস্থ্যঝুঁকি বেড়ে যায়। তাই, ঘরোয়া উপাদান দিয়ে পিৎজা তৈরি করে খাওয়ার চেষ্টা করুন।

আপনার মূল্যবান মতামত কমেন্টে জানাতে ভুলবেন না। সাথে থাকার জন্য ধন্যবাদ...



জনপ্রিয়