মহাশূন্যে বাড়ি ও পানির নিচের বাড়ি!        মহাশূন্যে বাড়ি ও পানির নিচের বাড়ি!

ঊনবিংশ শতাব্দীর মানুষের কল্পনায় আজকের পৃথিবীর বাসস্থানের ধারণা দেখে অবাক হবেন!

যদি আপনি মনে করেন ২১০০ সালের মধ্যে আমাদের উড়ন্ত গাড়ি থাকবে, কৃত্তিম বুদ্ধিমত্তা সম্পন্ন রোবট থাকবে এবং আমরা মহাশুন্যে ঘুরতে যেতে পারবো পাশাপাশি মঙ্গল গ্রহে আমরা অবকাশ যাপন করবো তাহলে আপনার হাত তুলুন! অতীতে কিছু দুরদর্শি মানুষের আগাম সব অসাধারণ চিন্তা ভাবনা ছিল যা তখনকার সমাজের মানুষেরা অনেকটা হাসি ঠাট্টা করে উড়িয়ে দিত, কিংবা তাদের অনেকে পাগল ও ভাবতো। গ্যালিলিও অনেক আগে বলেছিলেন যে, "পৃথিবী সূর্যের চারপাশে আবর্তিত হয়।" তবে সে সময়ে ধর্মীয় কারণে তার এই মতবাদকে ধর্ম বিরোধী বলে তাকে হত্যা করা হয়েছিল! অথচ তিনি একদমই সত্য কথাটাই বলেছিলেন।

যাই হোক আমরা আজ ঊনবিংশ শতাব্দিতে কিছু দূরদর্শি মানুষের কল্পনায় বিংশ শতাব্দির মানুষের বাড়িঘর কেমন হবে সেটার সেই সময়ে করা সচিত্র প্রতিবেদন উপস্থাপন করছি। চলুন দেখা যাক তাদের ভাবনার সাথে আজকের বাস্তবতার সাথে কতটা মিল আছে! নিবন্ধটি পড়া শেষে আপনার মূল্যবান মতামত জানাতে ভুলবেন না যেন....  

 

৭. মুভিং হাউজ বা ভ্রাম্যমান বাড়ি ( ১৯০০ সালের ধারণা) 

ঊনবিংশ শতাব্দীর শুরুর দিকে জিন মার্ক কোটে নামের একজন মানুষ ভবিষ্যতে ২০০০ সালের দিকে এমন ধরণের চলমান বা ভ্রাম্যমান বাড়ি হবে বলে ধারণা প্রকাশ করেছিলেন। বর্তমানের ক্যারাভেন কিন্তু এই ধারণা থেকে অনুপ্রাণিত এটা বললে ভুল হবে না! শুটিং কিংবা ভ্রমণের ক্ষেত্রে কিন্তু ক্যারাভেন বহুল ব্যবহৃত একটি যান যেখানে থাকা, খাওয়া সব কিছুরই ব্যবস্থা রয়েছে। শুধু তাই নয় বর্তমানে অনেক বড় বড় বিলাসবহুল গাড়ি নির্মাতা প্রতিষ্ঠান বিলাসবহুল গাড়ির সাথে বাসস্থানের আইডিয়া জুড়ে দিয়েছেন। 

Image credits: www.angieslist.com

Image credits: www.angieslist.com

 

৬. সম্পূর্ণ কাচের বাড়ি বা দালান ( ১৯২০ সালের ধারণা) 

১৯২০ সালে ধারণা দেয়া হয়েছিল যে বিংশ শতাব্দীতে ইমারতগুলো কাচের তৈরি হবে। যেখানে সুর্যের ক্ষতিকর অতি বেগুনি রশ্মি প্রতিরোধী গ্লাস ব্যবহার করে  এ ধরণের বাড়ি নির্মিত হবে বলে বলা হয়েছিল। আজকের সময়ে কিন্তু নামি দামি দালানকোঠাগুলো কাঁচ দিয়ে নির্মাণ করা হচ্ছে। 

 Image credits: www.angieslist.com

Image credits: www.angieslist.com

 

৫. রোলিং হাউজ ( ১৯৩০ এর দিকের ধারণা) 

১৯৩৫ সালের সেপ্টেম্বারে "issue of Everyday Science and Mechanics"  নামের একটি জার্নালে পাঠকদের এই ধরণের বাড়ির ধারণা দেয়া হয়েছিল। যেখানে বলা হয়েছিল খুব শীঘ্রই বৃত্তাকার এই ধরণের বাড়ি মানুষের কাছে অত্যন্ত ফ্যাশনেবল ও আকর্ষনীয় হবে। দূরবর্তী অঞ্চলে এ ধরণের বাড়ি নির্মাণ অনেক কার্যকরী বলে মতামত দেয়া হয়েছিল।তবে পৃথিবীতে এ ধরণের বাড়ি না হলেও অন্য কোন গ্রহে হয়তো এমন বাড়ি নির্মিত হতে পারে। 

 Image credits: www.angieslist.com

Image credits: www.angieslist.com

 

৪. কম ওজনের বাড়ি ( ১৯৪০ সালের ভাবনা) 

যদিও ছবিতে দেখানো হয়েছে একদল মানুষ বহন করে নিয়ে যেতে পারবে এ ধরণের বাড়ি, তবে এটা শুধু মাত্র বিষয়টা বুঝানোর জন্য করা হয়েছে। আমাদের বাসস্থানগুলো কেনো এতো ভারী হবে? মূলত ভূমিকম্পের ক্ষেত্রে ভারী দালানগুলো খুব সহজেই ধ্বসে যেতে পারে, এ জন্যই সে সময়ের বিজ্ঞানীরা ভবিষ্যতে ভূমিকম্প সহনীয় হালকা ওজনের বাড়ি নির্মাণের এই ধারণা প্রকাশ করেছিলেন। অত্যন্ত হালকা অজনের এরোজেল ব্যবহার করে এই ধরণের বাড়ি নির্মাণ করা হবে বলে তারা বলেছিলেন।  

 Image credits: www.angieslist.com

Image credits: www.angieslist.com

 

৩. মহাশূন্যের বাড়ি ( ১৯৫০ সালের ধারণা ) 

১৯৫৩ সালের দিকে সাইন্স ফিকশান ম্যাগাজিন নামের একটি গবেষণা ধর্মী ম্যাগাজিন মহাশূন্যে এমন ধরণের বাড়ি নির্মাণের ধারণা ও ছবি প্রাকাশ করেছিল! 

 Image credits: www.angieslist.com

Image credits: www.angieslist.com

 

২.  ডোম হাউজ ( ১৯৫০ সালের ধারণা ) 

১৯৫৭ সালের দিকে ডোম হাউজের ধারণা প্রকাশ করা হয়েছিল। যেখানে বলা হয়েছিল এ ধরণের বাড়ির বাহ্যিক দিকটা সম্পুর্ন স্টিলের মতো শক্ত কাচের দ্বারা নির্মিত হবে। বর্তমানের সোলার এনার্জি এবং আর্কিটেকচার এর গবেষণায় এই ধারণার একটা অসাধারণ ভূমিকা রয়েছে। 

 Image credits: www.angieslist.com

Image credits: www.angieslist.com

 

১. পানির নিচের বাড়ি ( ১৯৬০ সালের দিকের ধারণা ) 

১৯৬৪ সালে জেনারেল মোটরস ( বিখ্যাত  জি এম সি, শেভরোলেট, ক্যাডিলাক ইত্যাদি গাড়ি নির্মাতা প্রতিষ্ঠান ) আমেরিকার নিউ ইয়র্কে ওয়ার্ল্ড ফেয়ারে ফিউচারমা ২ প্যাভিলিয়ন দিয়ে আগত দর্শনার্থিদের তাক লাগিয়ে দিয়েছিলেন। আপনারা তাদের পানির নিচে বাড়ি তৈরির আইডিয়াটা প্রোমোশনাল মুভি দা টাইম এ দেখানো হইছিল।  

 Image credits: www.angieslist.com

Image credits: www.angieslist.com

সাথে থাকার জন্য অসংখ্য ধন্যবাদ.... 



জনপ্রিয়