কোটিপতি হতে কারো চেষ্টা কিংবা কারো ভাগ্য আবার কারো চেষ্টা ও ভাগ্য দুটোই প্রয়োজন হয়.... কোটিপতি হতে কারো চেষ্টা কিংবা কারো ভাগ্য আবার কারো চেষ্টা ও ভাগ্য দুটোই প্রয়োজন হয়....

রাতারাতি ভাগ্যের চাকা ঘুরে কোটিপতি হওয়া এই মানুষগুলো সত্যি ভাগ্যবান

অনেকে বলে থাকেন যে রাতারাতি বড়লোক হওয়া যায় না। কিন্তু আমরা বিশ্বাস করি এই নিবন্ধটি পড়ার পরে আপনার ধারনা পাল্টে যাবে। আমরা আজ এমন কিছু মানুষের কথা তুলে ধরছি যারা রাতারাতি কোটিপতি বনে গেছেন।

১০. কেভিন লুইস  

kubrick.htvapps.com

kubrick.htvapps.com

যুক্তরাষ্ট্রের ওহিও তে অবস্থিত সিনসিনাটি নামক শহরে একটি ক্যাসিনো ১ মিলিয়ন ডলারের বিশাল পুরস্কার ক্যাফিন লুইস নামের একজন বিজেতাকে প্রদান করেন। মজার বিষয় হচ্ছে আসল কেভিন লুইসকে পুরস্কার না দিয়ে তারা একই নামের অন্যকে কেভিন লুইসকে পুরস্কারটি ভুল করে দিয়ে ফেলেন। দুজনেই একই স্থানে বসবাস করতেন পাশাপাশি তাদের বয়স একি ছিল। যখন ক্যাসিনো কর্তৃপক্ষ তাদের ভুল বুঝতে পারল তারা আসল কেভিন লুইসকে পুনরায় ১ মিলিয়ন ডলার পুরস্কার প্রদান করে। তারা আরো সিদ্ধান্ত নিয়েছিল যাকে তারা এই পুরস্কারটি ভুল করে দিয়েছিল সেটি তারা ফেরত নেবেন না সেটি তার কাছেই থাকবে। রাতারাতি দুই কেভিন লুইস এর ভাগ্য বদলে গেল।

৯. অস্কার স্টোহলার

thehumornation.com

thehumornation.com

যুক্তরাষ্ট্রের ওয়েস্টার্ন নর্থ ডাকোটায় অস্কারের খামারে যখন খনন কার্য শুরু হয়েছিল অস্কার যথেষ্ট সন্দেহে ছিলেন। এ বিষয়ে যে, তিনি তার সৌভাগ্য ফিরিয়ে আনতে পারবেন কিনা? ২০০৮ সালে যখন তার জমিতে প্রচুর পরিমাণে খনিজ তেলের মজুদ খুঁজে পাওয়া যায় তখন তিনি রাতারাতি কোটিপতি হয়ে যান। যুক্তরাষ্ট্রের নর্থ ডাকোটায় অনেক কৃষকই এ ধরনের খনিজ সম্পদের কারণে এর আগেও বহুবার কোটিপতি হয়েছেন।

৮. আমান্ডা হকিং

hitberry.com

hitberry.com

আমান্ডা হকিং একজন যুক্তরাষ্ট্রের লেখিকা। যিনি ভৌতিক ও প্রাপ্তবয়স্ক কথা সাহিত্য রচনা করেন। তিনি তার অপ্রকাশিত সাহিত্য গুলো অ্যামাজনের কিন্ডলে নামক ই-বুক সাইটে প্রকাশ করেন। তিনি ভেবেছিলেন হত এখান থেকে কয়েকশো ডলার আয় করা যাবে। তিনি কখনোই ভাবেননি যে, তার লেখা কথাসাহিত্য গুলো মাত্র ৬ মাসের মধ্যে ২০,০০০ ডলার এবং ২০ মাসের মধ্যে ২.৫ মিলিয়ন ডলার আয় করবে। রাতারাতি তিনি তারকা লেখিকা বনে যান। এরপর তো তার ভাগ্য বদলে গেল। এখন তিনি সরাসরি বাজারে তার লেখা বইগুলো ছাড়ছেন। বর্তমানে অসংখ্য প্রতিষ্ঠান দাড় করিয়েছেন। 

৭. মার্ভ ডোনিগার  

www.ocregister.com

www.ocregister.com

একজন চিকিৎসক তার ক্যান্সার নির্ণয় ব্যর্থ হওয়ার পরে, মার্ভ সিদ্ধান্ত নিলেন তার বিরুদ্ধে মামলা করবেন। চিকিৎসক ভেবেছিলেন এটা শুধুমাত্র কিডনিতে কিছু পাথরের বিষয় এবং খুবই সামান্য একটা ব্যাপার। কিন্তু মার্ভের শারীরিক অবস্থা অবনতি ঘটতে থাকে। পরবর্তীতে তিনি তিন মাস ইউনিভার্সিটি অফ ক্যালিফোর্নিয়ার হাসপাতলে চিকিৎসা গ্রহণ করেন।ক্যান্সারের কারণে তার মূত্রথলি অপসারণ করা হয়। যখন তাকে সেখান থেকে ছাড়া হলো তিনি হাঁটতে পারছিলেন না। পরবর্তীতে তিনি লাঠি এবং লেগ ব্রেসেস এর সাহায্যে হাঁটার সক্ষমতা অর্জন করেন। কিন্তু দেখা ডাক্তারের ভুল তথ্যের কারণে তার চাকরি চলে গিয়েছিল। পরবর্তীতে তিনি একটি মামলা করেন যেটার দুটি শুনানির পর তাকে ক্ষতিপূরণ হিসেবে ৩.৩ মিলিয়ন ডলার দেয়া হয়। সৃষ্টিকর্তা অনেক সময় আমাদের একদিকে কমিয়ে অন্যদিকে বাড়িয়ে দেন।

৬. জোনাথন ডুহামেল

Internet

Internet

যদিও তিনি চেয়েছিলেন একজন তারকা হকি খেলোয়াড় হতে কিন্তু হয়ে গেলেন কোটিপতি। ২০১০ সালে লাস ভেগাসে পোকার নামক তাসের খেলার ওয়ার্ল্ড সিরিজ আয়োজন করা হয়েছিল যেখানে মূল অনুষ্ঠানে জোনাথান ৯ মিলিয়ন ডলারের পুরস্কার জিতে নেন। সে সময় তার বয়স ছিল মাত্র ২৩ বছর এবং প্রথম কোন কানাডিয়ান নাগরিক হিসেবে সে এই পুরস্কার জিতে ছিল।  

৫. মার্কাস পারসন

i.dailymail.co.uk

i.dailymail.co.uk

যেই না মাত্র সুইডেনের গেম মেকার এবং ডিজাইনার মার্কাস তার তৈরি গেম মাইনক্রাফট ছাড়লো সে রাতারাতি কোটি ডলারের মালিক হয়ে গেল। পরবর্তীতে সে তার গেম মাইক্রোসফট এর কাছে বিক্রি করে দিয়েছিল এবং সেখান থেকে যে অর্থ পেয়েছিল তা বর্তমানে ১.৯ বিলিয়ন ডলারের সমান।

৪. ক্যামেরুন এবং টাইলার উইংকলিভস

cdn.vox-cdn.com

cdn.vox-cdn.com

সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যম এর আইডিয়াটি নিয়ে বেশকিছু বিতর্ক রয়েছে। বলা হয়ে থাকে যে, মার্ক জাকারবার্গ এই আইডিয়াটি জমজ ক্যামেরুন এবং তার ভাই টাইলার এর কাছ থেকে চুরি করেছিল। এ জন্য জাকারবার্গ এই যমজদের ২০ মিলিয়ন মার্কিন ডলার দিয়ে সমঝোতা করেছিল। যার মধ্য থেকে তারা দুই ১১ মিলিয়ন ডলার বিটকয়েনে বিনিয়োগ করেন। যদি এর পরপরই বিটকয়েনের শেয়ারের মূল্য কমে গিয়েছিল কিন্তু আজ তাদের সেই শেয়ার গুলোর দাম চার গুণেরও বেশি বেড়ে গেছে। বলা হয়ে থাকে বিটকয়েন এর মোট শেয়ারের ১% জমজদের দখলে।

৩. রিক নরসিজান

d29l8fj0bhi1tg.cloudfront.net

d29l8fj0bhi1tg.cloudfront.net

ক্যালিফোর্নিয়ার একজন পেইন্টার হচ্ছেন নিক। তিনি প্রায় ২০ বছর আগে গ্যারেজে বিক্রি করার সামগ্রী থেকে ৫০ ডলার খরচ করে কিছু ছবি কিনেছিলেন। এই সস্তা খোলা বাজার থেকে কেনা কম দামি ছবিগুলো যে এত মূল্যবান হয়ে যাবে সেটা কখনোই নিক ভাবতে পারেনি। বিশেষজ্ঞ এবং ঐতিহাসিকরা যখন নিশ্চিত করলেন যে সেই চিত্রকর্মগুলোর মধ্যে গ্লাস নেগেটিভসগুলো( কাঁচের ভেতর নিগেটিভ দিয়ে তৈরি চিত্রকর্ম) মূলত বিখ্যাত ফটোগ্রাফার এনসেল অ্যাডামসের। তখন সেগুলোর দাম হয়ে গেল ২০০ মিলিয়ন মার্কিন ডলার।

২. ডেবিড কার্প

fortunedotcom.files.wordpress.com

fortunedotcom.files.wordpress.com

অনেকেই টাম্বলার নামক ওয়েবসাইটের নাম শুনে থাকবেন। যেখানে যে কোন ব্যক্তি তার নিজস্ব ব্লগে লেখালেখি করতে পারেন। যখন টাম্বলার এর প্রতিষ্ঠাতা তাঁর সামান্য বিনিয়োগ এবং সঞ্চয় দিয়ে এই ওয়েবসাইটটি শুরু করেছিল। সে কখনো ভাবেনি যে, তার এই ওয়েবসাইটটির দাম ২০০ মিলিয়ন মার্কিন ডলার এর বেশি হবে। তার এই ওয়েবসাইটটিতে নামিদামি সকল ব্র্যান্ড থেকে শুরু করে মিডিয়াগুলো বিজ্ঞাপন দেয়া শুরু করে। এরপর থেকেই তার ওয়েবসাইটটি খুব দ্রুত মিলিয়ন ডলারের আই এর পথ সুগম করে দেয়।

১. ডেবিড গেঅল

c8.alamy.com

c8.alamy.com

কিছু রাতারাতি পয়সাওয়ালাদের নতুন অর্থবিত্তের মালিক হওয়ার পরেও তাদের অবস্থার পরিবর্তন হয় না। ডেভিড ও তেমন একজন ব্যক্তি। ২০০৬ সালে চোখ কপালে ওঠার মতো একটা বিশাল অঙ্কের লটারি সে জিতে যায়। যার পুরস্কার মূল্য ৩৬৫ মিলিয়ন ডলার। এত বিশাল পরিমাণ এর টাকা জেতার পরেও ডেবিড তার স্বাভাবিক জীবনে আছেন। তিনি এখনো শীতকালে তার প্রতিবেশীদের সাহায্য করেন। তিনি তার অর্থের অপব্যবহার করেননি। 

আমাদের আয়োজন কেমন লাগলো বন্ধুরা? নিশ্চই ভালো! যদি ভালো লাগে আপনার মূল্যবান মতামত দিয়ে আমাদের সাথেই থাকুন। সাথে থাকার জন্য অসংখ্য ধন্যবাদ.... 



জনপ্রিয়