জেল খাটা বাংলাদেশী সেলিব্রেটিরা   জেল খাটা বাংলাদেশী সেলিব্রেটিরা

জেল খাটা বাংলাদেশী সেলিব্রেটিরা

বলা হয় আইন অন্ধ, অপরাধী যতই প্রভাবশালী হোক, আইন সবার জন্যই সমান। সুতরাং, অপরাধ করে পার পেতে পারেন না বা আইনের চোখকে ফাঁকি দিতে পারেন না সেলিব্রেটিরাও। অনিচ্ছাকৃত কিংবা হয়রানিমূলক মামলায় পুলিশি ঝামেলা এমনকি জেল খেটেছেন অনেক বাংলাদেশী সেলিব্রেটিরা। তাদের নিয়েই আমাদের আজকের আয়োজন-

১. মডেল ও অভিনেতা কাজী আসিফ

মডেল ও অভিনেতা কাজী আসিফ

মডেল ও অভিনেতা কাজী আসিফ

স্ত্রীর করা নারী নির্যাতন মামলায় জেলে যেতে হয়েছিল মডেল ও অভিনেতা কাজী আসিফকে। পরে অবশ্য ১৫ দিন কারাবাসের পর জামিনে মুক্তি পেয়েছিলেন তিনি।

২. আসিফ আকবর

আসিফ আকবর

আসিফ আকবর

গীতিকার, সুরকার ও গায়ক শফিক তুহিনের করা মামলায় আইসিটি আইনে বাংলাদেশের জনপ্রিয় গায়ক আসিফ আকবর কারাবাস করেছেন। ৫ দিন কারাগারে থাকার পর, জামিনে মুক্তি মিলেছিল তার।

৩. সংগীতশিল্পী এফ এ সুমন

সংগীতশিল্পী এফ এ সুমন

সংগীতশিল্পী এফ এ সুমন

বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে ধর্ষণের অভিযোগে কুমিল্লার এক তরুণী মামলা করেছিলেন এফ এ সুমনের বিরুদ্ধে। ১০ দিন কারাগারে থাকার পর ওই তরুণীই মামলা উঠিয়ে নিয়েছিলেন।

৪. জেমস

জেমস

জেমস

বাংলাদেশের খ্যাতিমান এই ব্যান্ড তারকাও ঘুরে এসেছিলেন কারাগার থেকে। ২০০১ সালে মডেল রথির সাথে বিচ্ছেদের পর, বেনজীর নামের এক অপ্রাপ্ত বয়স্ক মেয়ের সাথে সম্পর্কে জড়িয়ে পড়েন তিনি এবং ১৮ বছর হওয়ার আগেই তাকে বিয়ে করে নিয়েছিলেন। ফলে, বেনজীরের বাবা-মায়ের দায়ের করা মমলায় হাজতবাস করতে হয়েছিল জেমসকে।

৫. অভিনেত্রী নওশাবা

অভিনেত্রী নওশাবা

অভিনেত্রী নওশাবা

সোশ্যাল মিডিয়ায় নিরাপদ সড়ক আন্দোলন চলাকালীন সময়ে লাইভ ভিডিওতে আসে গুজব ছড়ানোর অপরাধে র‍্যাবের হাতে আটক হয়েছিলেন অভিনেত্রী নওশাবা। বেশ কিছুদিন কারাবাসের পর, আদালত তার স্থায়ী জামিন মঞ্জুর করেন।

৬. শওকত আলী ইমন

শওকত আলী ইমন

শওকত আলী ইমন

সাবেক স্ত্রী জিনাত কবির তিথির করা আইসিটি মামলায় কারাবরণ করেছিলেন সংগীত পরিচালক ও গায়ক শওকত আলী ইমন।

৭. মডেল ও অভিনেত্রী কেয়া

মডেল ও অভিনেত্রী কেয়া

মডেল ও অভিনেত্রী কেয়া

বেশ কিছু বিজ্ঞাপন চিত্রের মডেল হিসেবে কাজ করা গ্লামারাস অভিনেত্রী কেয়াকে অনৈতিক কাজে অংশগ্রহণের অভিযোগে গুলশানের নিকেতনের বাসা থেকে গ্রেফতার করেছিল গুলশান থানা পুলিশ। বেশ কিছুদিন জেলে থাকার পর জামিনে মুক্তি পেয়েছিলেন কেয়া।

৮. ডিপজল

ডিপজল

ডিপজল

অস্ত্র মামলা তো বটেই, গাবতলীতে সিগন্যাল অমান্য করে যাওয়ার সময় এক ট্রাফিক পুলিশকে মারধর করে ও অস্ত্র দেখিয়ে ভয় দেখানোর অপরাধে বেশ কিছুদিন হাজতবাস করতে হয়েছিল ডিপজলকে।

আপনার মূল্যবান মতামত কমেন্টে জানাতে ভুলবেন না। সাথে থাকার জন্য ধন্যবাদ...



জনপ্রিয়