ইলিয়ানা ডি ক্রুজ, রাকুল প্রীত সিং ও কাজল আগার ওয়াল...  ইলিয়ানা ডি ক্রুজ, রাকুল প্রীত সিং ও কাজল আগার ওয়াল...

দক্ষিণী চলচিত্রের জনপ্রিয় নারী তারকাদের কার শিক্ষাগত যোগ্যতা কেমন?

আমরা সবাই তাদের দক্ষ অভিনয় ও আবেদনময়ী চেহারার জন্য কমবেশি জানি। তাদের শিক্ষাগত যোগ্যতা নিয়ে আমাদের কিছু যায় আসে না। তারা আমাদের অভিনয়ের মাধ্যমে আনন্দ দেন এবং আমরা তাদের কাছে ভালো অভিনয় প্রত্যাশা করি। সিনেমা জগতে অভিনয়ের খাতিরে তারা কেউ ডাক্তার, ইঞ্জিনিয়ার, এডভোকেট, পুলিশের বড় অফিসার, বিজ্ঞানী, পাইলট ইত্যাদি অনেক গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকায় অভিনয় করেন। তারকাদের মধ্যে এমন কাউকে খুঁজে পাওয়া মুশকিল যারা পড়াশোনার খাতিরে অভিনয় থেকে দূরে থেকেছেন বরং বেশিরভাগ এমন তারকাদের খুঁজে পাওয়া যাবে যারা চলচ্চিত্র অভিনয়ের জন্য পড়াশোনার ইতি টেনেছেন।

যদি আমরা দক্ষিণী সিনেমার কথা চিন্তা করি সেখানে অসংখ্য তারকা রয়েছেন যাদের বেশিরভাগই স্কুল ড্রপআউট কিংবা খুব সামান্য পড়াশোনা করেছেন। কিন্তু তাদের মধ্যে এমন অনেকে আছেন যারা যথেষ্ট শিক্ষিত এবং মেধাবী। আমরা আজকে টলিউডের রূপালী পর্দায় আলোড়ন সৃষ্টিকারী অভিনেত্রীদের শিক্ষাগত যোগ্যতা অনুসন্ধান করে খুঁজে বের করার চেষ্টা করব। যেখানে আপনি দেখতে পাবেন অনেকেই রয়েছেন যারা উচ্চশিক্ষিত এবং অভিনয়ের আগেই তারা তাদের পড়াশোনার পাঠ চুকিয়েছেন। আপনার বন্ধুদের সাথে এই চমৎকার আর্টিকেলটি শেয়ার করতে ভুলবেন না।

১. নয়নতারা

নয়নতারা

নয়নতারা

নয়নতারা নিঃসন্দেহে দক্ষিণী সিনেমার অন্যতম একজন অন্যতম ধনী তারকা। ১৯৮৪ সালের ১৮ নভেম্বর তিনি কেরালার থিরুভাল্লা নামক অঞ্চলে জন্মগ্রহণ করেন। তার আসল নাম ডায়ানা মারিয়াম কুরিয়ান। তিনি দক্ষিণী চলচ্চিত্রের সবচাইতে বেশি পারিশ্রমিক নেয়া নায়িকা। তুমি এমন একজন যার ফ্যান বলতে গেলে ভারতের পুরো দক্ষিণ অঞ্চল। দক্ষিণী ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রিতে তার আধিপত্য অনেক।

তিনি তার নিখুঁত অভিনয় এর জন্য দক্ষিণী চলচ্চিত্র জগতের যে কোন পরিচালক-প্রযোজকের কাছে ভীষণ ভাবে গ্রহণযোগ্য। ২০০৩ সালে তিনি প্রথম মালায়লাম চলচ্চিত্রে অভিনয় করেন। যাই হোক তিনি চলচ্চিত্র জগতের কতিপয় তার মধ্যে অন্যতম যিনি ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রিতে প্রবেশের আগে তার পড়াশোনা শেষ করেছেন। নয়ন তারা ইংরেজি সাহিত্যে ব্যাচেলর অফ আর্টস ডিগ্রি সম্পন্ন করেছেন।

২. অনুষ্কা শেট্টি

অনুষ্কা শেট্টি

অনুষ্কা শেট্টি

দক্ষিণী চলচ্চিত্রের আরেকজন গুণী অভিনেত্রী হচ্ছেন অনুষ্কা শেট্টি। তার অভিনীত বাহুবলি ছবিটি অন্যতম সেরা ব্লকবাস্টার ছবি হিসেবে সফলতা লাভ করেছে। তিনি জন্মগ্রহণ করেন কর্নাটকের মাঙালুরুর পুট্টুর নামক স্থানে। তার প্রকৃত নাম সুইটি শেট্টি। তিনি ২০০৫ সালে সুপার নামের একটি তেলেগু ছবিতে অভিনয়ের মধ্য দিয়ে ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রি তে প্রবেশ করেন। তিনি ব্যাঙ্গালোরের কারমল কলেজ থেকে ব্যাচেলর ইন কম্পিউটার অ্যাপ্লিকেশনস ডিগ্রি সম্পন্ন করা।

৩. সামান্থা রুথ প্রাভু

সামান্থা রুথ প্রাভু

সামান্থা রুথ প্রাভু

সামান্থা রুথ প্রাভু ওরফে সামান্থা আক্কিনেনি দক্ষিণ চলচ্চিত্র জগতের উদীয়মান একজন তারকা। ১৯৮৭ সালের ২৮ এপ্রিল তিনি তামিলনাড়ুর চেন্নাইয়ে জন্মগ্রহণ করেন। ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রিতে প্রবেশের আগে তিনি একজন মডেল হিসেবে পড়াশোনার পাশাপাশি কাজ করতেন। চেন্নাইয়ের স্টেলা মেরিস কলেজ থেকে তিনি বাণিজ্যে স্নাতক ডিগ্রি সম্পন্ন করেছেন।

৪. তামান্না

তামান্না ভাটিয়া

তামান্না ভাটিয়া

দক্ষিণ চলচ্চিত্রের অন্যতম আবেদনময়ী নারী অভিনেত্রী তামান্না ভাটিয়া ১৯৮৯ সালের ২১ ডিসেম্বর ভারতের মহারাষ্ট্রের মুম্বাইয়ে জন্মগ্রহণ করেন। দক্ষিণ চলচ্চিত্রে তিনি অন্যতম একজন বেশি পারিশ্রমিক গ্রহণ করা অভিনেত্রী। অসংখ্য তেলেগু এবং তামিল ছবির পাশাপাশি হিন্দি ছবিতেও অভিনয় করেছেন। তিনি দক্ষিণী নায়িকা হিসেবে জনপ্রিয় হলেও তার প্রথম সিনেমা জগতে আত্মপ্রকাশ হয় বলিউডের "চান্দ সা রশান চেহারা" নামক সিনেমাতে অভিনয়ের মাধ্যমে। এই তারকা তার স্নাতক সম্পন্ন করেছেন মুম্বাইয়ের ন্যাশনাল কলেজ থেকে ব্যাচেলর ইন আর্টস এ। তিনি সিনেমা জগতে অবদানের জন্য অনারারি ডক্টরেট ডিগ্রী পেয়েছেন দক্ষিণ কোরিয়ার একটি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে।

৫. শ্রুতি হাসান

শ্রুতি হাসান

শ্রুতি হাসান

দক্ষিণ চলচ্চিত্রে শক্তিমান ও জনপ্রিয় অভিনেতা কমল হাসানের মেয়ে শ্রুতি হাসান দক্ষিণী ও হিন্দি সিনেমায় সমানভাবে জনপ্রিয় একজন তারকা। তিনি ১৯৮৬ সালের ২৮ জানুয়ারি ভারতের তামিলনাড়ুর চেন্নাইয়ে জন্মগ্রহণ করেন। তিনি শিশু শিল্পী হিসেবে ২০০০ সালে প্রথম "হায় রাম" নামক বলিউডের একটি ছবিতে অভিনয় করেন। তবে পরিপূর্ণ আর্টিস্ট হিসেবে ২০০৯ সালে বলিউডের "লাক" নামক সিনেমাতে অভিনয়ের মাধ্যমে ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রিতে নিজের স্থান শক্ত করেন। তিনি মুম্বাইয়ের এসটি. এন্ড্রুস কলেজ থেকে সাইকোলজিতে স্নাতক সম্পন্ন করেন।

৬. তৃষা কৃষ্ণা

তৃষা কৃষ্ণা

তৃষা কৃষ্ণা

তৃষা কৃষ্ণা যাকে সকলে তৃষা নামে চেনেন। তৃষা দক্ষিণী চলচ্চিত্রের একজন শীর্ষস্থানীয় অভিনেত্রী হিসেবে নিজের অবস্থান প্রতিষ্ঠা করেছেন। তৃষা ১৯৮৩ সালে ৪ মে ভারতের তামিলনাড়ুর চেন্নাইয়ে জন্মগ্রহণ করেন। তিনি বেশকিছু সুন্দরী প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করে ফিল্ম জগতের নজরে আসেন। ১৯৯৯ সালে তিনি তামিল ছবি "জোড়ি" তে পার্শ্ব অভিনেত্রী হিসেবে চলচ্চিত্র জগতে পা রাখেন। তিনি ভারতের চেন্নাইয়ের ইথিরাজ কলেজ ফর উইমেন থেকে বাণিজ্যে স্নাতক ডিগ্রি সম্পন্ন করেন।

৭. কাজল আগারওয়াল

কাজল আগারওয়াল

কাজল আগারওয়াল

কাজল আগারওয়াল দক্ষিণী চলচ্চিত্রের অন্যতম সফল একজন অভিনেত্রী। তিনি অসংখ্য দক্ষিণী চলচ্চিত্র এবং হিন্দি চলচ্চিত্রে অভিনয় করে প্রশংসা কুড়িয়েছেন। ১৯৮৫ সালের ১৯ জন ভারতের মহারাষ্ট্রের মুম্বাইয়ে জন্মগ্রহণ করেন। তিনি ২০০৪ সালে "কিউ হোগেয়া না" নামে বলিউডের একটি ছবিতে অভিনয়ের মাধ্যমে চলচ্চিত্র জগতে প্রবেশ করে। ২০০৭ সালে তার প্রথম তেলেগু সিনেমা "লাক্সমি কাল্যিয়ানাম" মুক্তি পায়। তিনি কিসিনচাঁন্দ চেল্লারাম কলেজ থেকে গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিষয়ে স্নাতক সম্পন্ন করেন। পাশাপাশি বিজ্ঞাপন এবং বিপণন বিষয়ে উচ্চতর ডিগ্রি অর্জন করেন।

৮. রাকুল প্রীত সিং

রাকুল প্রীত সিং

রাকুল প্রীত সিং

বর্তমানে দক্ষিণী চলচ্চিত্রের অন্যতম তরুণ এবং উদীয়মান আবেদনময়ী নারী অভিনেত্রী হচ্ছেন রাকুল প্রীত সিং। ১৯৯০ সালের ১০ অক্টোবর রাকুল প্রিত সিং ভারতের নয়াদিল্লিতে জন্মগ্রহণ করেন। কলেজে পড়াকালীন অবস্থায় তিনি মডেলিং পেশায় যুক্ত হন। তিনি ২০০৯ সালে "গিল্লি "নামক ছবিতে অভিনয়ের মাধ্যমে চলচ্চিত্র জগতে পদার্পণ করেন। এই আবেদনময়ী তারকা ইউনিভার্সিটি অফ দিল্লির অধীনে জেসাস অন্ড মেরি কলেজ থেকে গণিতের উপরে ব্যাচেলর অফ সাইন্স সম্পন্ন করেন।

৯. তাপসী পান্নু

তাপসী পান্নু

তাপসী পান্নু

তাপসী পান্নু খ্যাতি অর্জন করেন তার বেবি এবং পিঙ্ক নামক ছবিতে নজরকাড়া অভিনয়ের মধ্য দিয়ে। তিনি ১৯৮৭ সালে ১ আগস্ট ভারতের নয়াদিল্লিতে জন্মগ্রহণ করেন। ২০১০ সালে তিনি তেলেগু ছবি "জুমানডি নাডামে" অভিনয় করে চিত্র জগতে প্রবেশ করেন। তিনি একজন অন্যতম মেধাবী অভিনেত্রী। পাশাপাশি একজন প্রকৌশলী। তিনি কম্পিউটার সায়েন্সে দিল্লিতে অবস্থিত গুরু টেগ বাহাদুর ইনস্টিটিউট অফ টেকনোলজি থেকে ব্যাচেলর অব টেকনলজি সম্পন্ন করেন। আব্বাজান অবাক হবেন তিনি কিন্তু একজন পেশাদার সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ার।

১০. হানসিকা মোতওয়ানি

হানসিকা মোতওয়ানি

হানসিকা মোতওয়ানি

হানসিকা "শাকালাকা বুম বুম" নামের একটি টেলিভিশন সিরিজে অভিনয় এর মাধ্যমে অভিনয় জগতে যাত্রা শুরু করেন। তিনি ১৯৯১ সালের ৯ আগস্ট ভারতের মহারাষ্ট্রের মুম্বাইয়ে জন্মগ্রহণ করেন। অসংখ্য তেলেগু মালায়ালাম এবং হিন্দি ছবিতে তিনি অভিনয় করেছেন। তিনি তার বিদ্যালয় জীবন শেষ করেছেন মুম্বাইয়ের অবস্থিত ইন্টারন্যাশনাল স্কুল থেকে। পরবর্তীতে তিনি ইন্টার ন্যাশনাল কারিকুলাম স্কুলে ভর্তি হন। তবে তার যথাযথ শিক্ষাগত যোগ্যতা জানা যায়নি। 

১২. ইলিয়ানা ডি ক্রুজ

ইলিয়ানা ডি ক্রুজ

ইলিয়ানা ডি ক্রুজ

টলিউডের অন্যতম বিখ্যাত একজন অভিনেত্রী ইলিয়ানা ডি ক্রুজ। অসংখ্য প্রেমিকের ক্রাশ হচ্ছেন ইলিয়ানা ডি ক্রুজ। ১৯৮৭ সালে ১ নভেম্বর ভারতের মুম্বাইয়ের মাহিম নামক স্থানে জন্মগ্রহণ করেন এই অভিনেত্রী। অভিনয়ের পাশাপাশি পড়াশোনা ও কম করেননি। তিনি বোম্বে ইউনিভার্সিটি থেকে স্নাতক সম্পন্ন করেন।

১৩. এমি জাকসন

এমি জাকসন

এমি জাকসন

এমি জ্যাকসন সবচেয়ে বেশি পরিচিতি পেয়েছেন তার ছবি "আই" এবং "সিং ইজ ব্লিং" এ অভিনয়ের মাধ্যমে। তিনি ১৯৯১ সালে ৩১ জানুয়ারি যুক্তরাজ্যের আইল অফ ম্যান এর জন্ম গ্রহন করেন। এই আবেদনময়ী অভিনেত্রী এসটি. এডওয়ার্ড কলেজ থেকে বেশ কিছু বিষয় যেমন- ইংরেজি সাহিত্য, ফিলোসোফি, ইথিকস সংক্রান্ত বিষয়ে পড়াশোনা করেছেন। দক্ষিণী সিনেমার নায়িকা পড়াশোনায় যথেষ্ট ভালো এটা বোঝাই যায়।

১৪. নিথিয়া মেনেন

নিথিয়া মেনেন

নিথিয়া মেনেন

নিথিয়া আসলে একজন সাংবাদিক হতে চেয়েছিলেন কিন্তু পরিশেষে হয়ে গেলেন অভিনেত্রী। ১৯৮৮ সালের ৮ এপ্রিল ভারতের কর্ণাটকের ব্যাঙ্গালুরুতে তিনি জন্মগ্রহণ করেন। তিনি অভিনয়ের পাশাপাশি একজন প্লেব্যাক সিঙ্গার। এই অভিনেত্রী সাংবাদিকতা বিষয়ে স্নাতক সম্পন্ন করেছেন মানিপাল ইনস্টিটিউট অফ কমিউনিকেশন থেকে।

১৫. শ্রিয়া সরন

শ্রিয়া সরন

শ্রিয়া সরন

শ্রিয়া সরণ এর পুরো নাম হচ্ছে শ্রিয়া সরন ভাটনাগার। তিনি দক্ষিণী চলচ্চিত্রের আরেকটি জনপ্রিয় নাম। তিনি শুধুমাত্র অভিনেত্রী নন বরং একজন প্রশিক্ষিত নৃত্য শিল্পী। শ্রিয়া ১৯৮২ সালের ১১ সেপ্টেম্বর ভারতের উত্তরখন্ডের দেরাদুনে জন্মগ্রহণ করেন। তিনি তামিল বলিউড এবং আমেরিকান ছবিতে অভিনয় করেছেন। অসম্ভব গুণী এই অভিনেত্রী পড়াশোনায় ও কৃতিত্বের স্বাক্ষর রেখেছেন। তিনি লেডি শ্রীরাম কলেজ ফর উইমেন থেকে ইংরেজি সাহিত্যে স্নাতক সম্পন্ন করেন।

 আমাদের আয়োজন কেমন লাগলো কমেন্টে জানাতে ভুলবেন না যেন। আমাদের সাথে থাকার জন্য অসংখ্য ধন্যবাদ..



জনপ্রিয়