রুক্মিণীর, অণির্বানের নিগেটিভ অভিনয়... রুক্মিণীর, অণির্বানের নিগেটিভ অভিনয়...

২০১৮ সালে টালিউডের ছবিতে নেতিবাচক অভিনয়ের জন্য যারা প্রশংসা কুড়িয়েছেন

২০১৮ সালে টালিউডের সিনেমাতে যারা এ বছর নেতিবাচক ভুমিকায় অভিনয়ের জন্য প্রশংসা কুড়িয়েছেন। আজকের আয়োজনে থাকলো তাঁদের কথা। চলুন দেরি না করে মূল আলোচনা শুরু করা যাক।

০৯. আবির চ্যাটার্জী অভিনীত "ফ্ল্যাট নং- ৬০৯"

Youtube

Youtube

মুক্তির পরদিন ‘ফ্ল্যাট নং ৬০৯’ দেখতে গিয়ে দেখা গেল প্রায় হাউসফুল! ছবির গল্প সাদামাটা। অর্ক আর সায়ন্তনীর সবে বিয়ে হয়েছে। বিয়ের পর নতুন ফ্ল্যাটের খোঁজ করছে তারা। শহর থেকে খানিকটা দূরে একটা পছন্দমতো বাড়ি মিলেও যায়। ফ্ল্যাট নং ৬০৯। ভাড়া বাড়ি। বেশ স্বচ্ছন্দে থাকার মতো পরিবেশ। সব থেকে বড় ব্যাপার পকেটের রেস্ত বেশি খসাতে হয় না। 
কিন্তু ফ্ল্যাটে ঘটতে থাকে নানা অদ্ভুত ঘটনা। দেওয়ালে ছবিটা পড়ে যায়। জলের বোতলটা হঠাৎ কাত হয়ে জল পড়ে। অর্ক-সায়ন্তনী পাত্তা দেয় না। তারপর অর্ক ট্যুরে চলে যায়। একা ফ্ল্যাটে সায়ন্তনী। ঘটতে শুরু করে নানা অদ্ভুত ঘটনা। ধীরে ধীরে আরও বড় আকার নেয় ব্যাপারটা। সায়ন্তনী বরকে বলে। বন্ধু অনন্যাকে বলে। তারা উড়িয়ে দেয় বিষয়টা। পাশের ফ্ল্যাটের পড়শিকে জিজ্ঞেস করেও খুব একটা কিনারা করতে পারে না। পড়শিরা যেন জানে কিন্তু ঠিক খুলে বলতে চায় না। সাদামাটা গল্পে এভাবেই আসতে থাকে পরতে পরতে মোচড়। খুব নিপুণভাবে পরিচালক অরিন্দম ভট্টাচার্য হরর এবং থ্রিলারকে মিশিয়েছেন। হরর পেরিয়ে থ্রিলারের মোচড়ও বেশ ভালো।

০৮. হৃত্তিক চক্রবর্তী অভিনীত "গুড নাইট" 

Youtube

Youtube

এক রাতের গল্প নিয়ে টানটান থ্রিলার 'গুড নাইট সিটি'। মধ্যরাতে এক 'অপরাধি'র ফোন আসে পুলিশের কাছে। সব ধরনের অপরাধ করা হয়ে গিয়েছে, এবার নিজেকে শেষ করে ফেলবে সে। একদিকে পুলিশ কর্তার যেমন প্রচেষ্টা, তার কাছে পৌঁছানোর, পাশাপাশি এক মনোবিদের প্রচেষ্টা মানবিক দৃষ্টিভঙ্গীতে পুরোটা জেনে, সত্য খুঁজে বের করা। থ্রিলার শেষে যেমন চমক থাকে, এখানেও চমক রয়েছে গল্পের শেষে। তবে সেটা শুধু চমকের কারণে নয়, তার সঙ্গে মানবিক আবেদনের কারণেও। আর সে জন্যই 'গুড নাইট সিটি' একেবারে শেষ দৃশ্য পর্যন্ত দর্শককে আটকে রেখেছে পর্দার সামনে। 

০৭. দেব ও রুক্মিনী অভিনীত "কবির"

Unknown

Unknown

সিনেমার ভাল দিক যদি পরিচালক অনিকেত চট্টোপাধ্যায়ের গল্প বলার ধরনটা। তাহলে খারাপ অনেক দিক আছে। দেবের সংলাপ বলার কায়দাটা না হয় বাদ দেওয়া গেল! কিন্তু এত বাজার চলতি ডায়লগ, কে লেখেন! চিত্রনাট্য বেশ দুর্বল। আসলে গল্প বলা এক কাজ, আর চিত্রনাট্য আরেক। চিত্রনাট্য লেখার সময় বোধহয় তাড়াহুড়ো করা হয়েছে। থ্রিলার বানাতে গিয়ে থ্রিলিং পার্টটাই বাদ পড়ে গিয়েছে। ২৬/১১ মুম্বাই হামলা নিয়ে তৈরি হয়েছে ছবি 'কবীর'।

The Statesman

The Statesman

এই ছবিতে নিজের চেনা ভূমিকা ছেড়ে খানিকটা নেগেটিভ চরিত্রেই দেখা যেতে যাবে দেবকে। ছবি নিয়ে মন্তব্য করতে গিয়ে দেব জানিয়েছেন , কবীর-এ একগুচ্ছ চমক থাকছে দর্শকদের জন্য। তবে এখানে কোনও বিশেষ ধর্মকে আঘাত দিয়ে কিছু দেখানো হয়নি। ছবিতে মুম্বাই হামলা ও তার সঙ্গে জড়িত কয়েকজন জঙ্গির ঘটনা তুলে ধরা হয়েছে। অভিনেত্রী রুক্মিনী এখানে নেতিবাচক ভুমিকায় অভিনয় করেছেন।

০৬. কাঞ্চন মল্লিক অভিনীত "পিয়া রে"

YouTube

YouTube

সোহম-শ্রাবন্তী জুটির নতুন ছবি ‘পিয়া রে’র ট্রেলার। পরিচালক অভিমন্যু মুখোপাধ্যায়ের এ ছবিতে সোহম-শ্রাবন্তী ছাড়াও রয়েছেন কাঞ্চন মল্লিক, সোমরাজ মাইতি, সুপ্রিয় দত্তরা। প্রযোজনায় সুরিন্দর ফিল্মস।রবি ও রিয়ার ভালবাসার কাহিনি ফুটিয়ে তোলা হয়েছে এ গল্পে। রবি ভালবাসে রিয়াকে। ভাল রিয়াও বাসে। কিন্তু নিজের পরিবারের দায়িত্ব নিতে গিয়ে রবির ভালবাসাকে ত্যাগ করতে হয় রিয়াকে। মায়ের চিকিৎসার খরচ জোগাতে আদিত্যর সঙ্গে চলে যেতে হয় তাকে। রবিও মেনে নেয় রিয়ার চলে যাওয়া। সময় নিজের নিয়মে চলতে থাকে। কিন্তু আচমকা রিয়ার সম্পর্কে চাঞ্চল্যকর তথ্য জানতে পারে রবি। ছবিতে কাঞ্চন মল্লিক নেতিবাচক অভিনয় করে দর্শকদের মন জিতেছেন। 

০৫. অনির্বাণ ভট্টাচার্জী অভিনীত "উমা"

Unknown

Unknown

Indian Express Bengali

Indian Express Bengali

ছবির কিছু ভেতরে দেখবেন কলকাতায় এসে একটি বার মাকে দেখতে চায় উমা। তাই উমার জন্য নকল মা-ও (শ্রাবন্তী) জোগাড় করে ফেললেন ব্রহ্মানন্দ। ঠিক হল, একটি বড় আবাসনের ভিতরে নকল পুজোর সেট তৈরি হবে। আর সেই আবাসনেরই একটি ফ্ল্যাটে আসল বাবার সঙ্গে এসে নকল মায়ের সঙ্গে থাকবে উমা।

গল্প এ পর্যন্ত ঠিকঠাক, মোটামুটি বিশ্বাসযোগ্য ছিল। কিন্তু উমা কলকাতায় এসেই বায়না ধরে, সে ম্যাডক্স স্কোয়ার, দেশপ্রিয় পার্ক, একডালিয়া, মহম্মদ আলি পার্ক-সহ বড় বড় পুজোও দেখতে চায়। পরিচালক ব্রহ্মানন্দ চ্যালেঞ্জটা নিলেন আর তিন দিনের মধ্যে শহরের বিভিন্ন প্রান্তে খান পাঁচ-ছয় থিম পুজো দাঁড় করিয়ে দিলেন। ব্যস, গল্পের গরু বাঁই করে একেবারে মগডালে উঠে পড়ল।অনির্বাণ ভট্টাচার্জী এই ছবিতে নেতিবাচক ভূমিকায় অভিনয় করেছেন।

০৪. অঙ্কুশ অভিনীত "ভিলেন"

Kolkata24x7

Kolkata24x7

সিঙ্গাপুর থেকে ফিরছে রিয়া (মিমি) আর স্নেহা (ঋত্বিকা)। আলাপ দু'জনের। রিয়ার ভার্টিগো। তার ভয় দূর করতে স্নেহা এগিয়ে আসে। বলে নিজেদের প্রেমের গল্প বলতে। শুরু করে রিয়া। তার ভালোবাসার নাম রাজা। স্নেহা জানায় তার বিয়ে জয়ের সঙ্গে। এয়ারপোর্টে জয়কে (অঙ্কুশ) দেখে রিয়া রাজা বলে গুলিয়ে ফেলে। কারণ জয়কে দেখতে হুবহু রাজার মতো। গল্পের ট্যুইস্ট শুরু এখান থেকেই।

দু'জনে একই ব্যক্তি না আলাদা এই প্রশ্ন মিমির মনে-দর্শকেরও। কিন্তু চিত্রনাট্য প্রশ্নকে সফলভাবে ধরতেই পারল না। ছবির নাম 'ভিলেন'। অথচ একবারও ভিলেনওচিত কোনও টেনশন ছবিতে নেই, যা দেখে দর্শকের পিলে চমকাবে। তাই নতুন অবতারে অঙ্কুশের হাজার চেষ্টা বিফলেই গেল। দর্শকে সিটি থেকে তিনি বঞ্চিতই হলেন। তবে অঙ্কুশ যে ব্রেকটা নিয়েছিলেন নিজেকে তৈরি করার, তাতে সফল।

০৩. অনির্বাণ ভট্টাচার্জী অভিনীত "এক যে ছিল রাজা"

Unknown

Unknown

যিশুকে এই ছবিতে নতুন করে আবিষ্কার করেছেন সৃজিত। সেই মত সুযোগও দিয়েছেন ছবি জুড়ে। তবে এক চুল জমিও অভিনয়ের দাপটে ছাড়েননি জয়া আহসান। বাংলাদেশী এই অভিনেত্রীর অসামান্য বাংলা উচ্চারণ রীতিমত মুগ্ধ করেছে সকলকে। পাশাপাশি, রুদ্রনীল ও অনির্বাণ ভট্টাচার্য এই ছবির সম্পদ হিসাবে উঠে এসেছেন।

০২. কৌশিক সেন অভিনীত " রেইনবো জেলী" 

Unknown

Unknown

পরিচালক সৌকর্য ঘোষালের এই ছবি সবাই না দেখলে, বদলাবে কীভাবে সমাজ ? রূপকথারা কীভাবে বাঁচবে? মেশিন, অ্যাপ, মোবাইল ঘেরা এই সমাজে কীভাবে বেঁচে থাকবে শৈশব ও তাঁর রংবেরঙ, আজগুবি স্বপ্ন ! সৌকর্যের এই ছবি ঠিক যেন এখান থেকেই শুরু ! যেখানে এক ‘স্পেশাল চাইল্ড’, নিজের মতো করে স্বপ্ন বুনে চলেছে ৷ জানলার বাইরের জগতটা কঠিন বাস্তব৷

০১. বোমকেশ গোত্র 

Youtube

Youtube

রহস্য , শারীরিক সম্পর্ক, ধোঁয়াশা আর মিথ্যের প্রলেপ.. এই সমস্য কিছু ভেদ করে সত্যান্বেষণের সাফল্য। এই সাফল্যের জন্যই বাঙালি চেনে ব্যোমকেশকে। আর চেনা ব্যোমকেশ আরও একবার সেলুলয়েড বন্দি করে তাকে আকর্ষণীয় রসদে পরিপূর্ণ করতে পারাটা একটা বড় চ্যালেঞ্জ নিঃসন্দেহে। ফের একবার নিজের ব্যোমকেশ টিমকে নিয়ে মাঠে নেমে পড়েছেন পরিচালক অরিন্দর শীল।

আর এছবির এবারের নতুন মুখ 'অজিত'-এর ভূমিকায় রাহুল। আবির চট্টোপাধ্যায়ের ব্যোমকেশ হিসাবে নিজের অভিনয় দক্ষতা আরও খুঁড়ে বার করেছেন। সংলাপ থেকে চাউনি সমস্ত কিছু যেন এই মুহূর্তে আবির ছাড়া ব্যোমকেশ হিসাবে তিনি আর কারোর কথা ভাবতেই দিচ্ছেন না দর্শককে। এ ছবিতে আলাদা করে বলতেই হয় অর্জুনের কথা। নিঃসন্দেহে অর্জুন চক্রবর্তী এই 'ব্যোমকেশ গোত্র'-এর অন্যতম সম্পদ।
আমাদের আয়োজন ভালো লাগলে বেশি বেশি লাইক, কমেন্ট ও শেয়ার দিয়ে সাথেই থাকুন।



জনপ্রিয়