প্রেগন্যান্সির সময় কান্নাকাটি করছেন? দেখুন এটা গর্ভের শিশুর উপর কি প্রভাব ফেলে প্রেগন্যান্সির সময় কান্নাকাটি করছেন? দেখুন এটা গর্ভের শিশুর উপর কি প্রভাব ফেলে

প্রেগন্যান্সির সময় কান্নাকাটি করছেন? দেখুন এটা গর্ভের শিশুর উপর কি প্রভাব ফেলে

বিজ্ঞান অনেক দিন ধরেই শিক্ষা দিয়ে আসছে যে, গর্ভবতী মায়েরা যা খায় বা পান করে তা গর্ভের শিশুর উপর প্রভাব ফেলে, কিন্তু সেই গর্ভবতী মায়ের আবেগ কি প্রভাব ফেলে? 

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের মানসিক বিজ্ঞান সমিতির একটি সমীক্ষা অনুযায়ী, গর্ভবতী মায়ের আবেগ ছয় মাসের ভ্রূণকে প্রভাবিত করতে পারে এবং এটিই সবকিছু নয়। গর্ভবতী হলে, গর্ভবতী মায়ের মানসিক অবস্থা সম্ভবত ভ্রূণ তার নিজের মনোভাবের ভিত্তি তৈরি করতে পারে।

কিন্তু গর্ভবতী মায়ের অশ্রু গর্ভের শিশুকে কিভাবে প্রভাবিত করে? এই সব কিছু আপনি কেমন মা সেটির উপর নির্ভর করে এবং আপনার অনুভূতিগুলো আপনার শিশুকে কিভাবে রূপান্তরিত করে এবং চিরকালের জন্য তার পছন্দগুলো কিভাবে তৈরি হচ্ছে সে বিষয়ে এই ক্যাটাগরিগুলো আপনাকে ভাল ধারণা দেবে।

 

আপনি যদি একজন স্ট্রেসড মা হন

psychoanalyst.pro

psychoanalyst.pro

গর্ভাবস্থায় একজন গর্ভবতী মায়ের শরীরে এত মাত্রায় হরমোনাল পরিবর্তন হয় যে, তখন সেই মায়ের স্ট্রেসের লেভেল বাড়তে সময় লাগে না। প্রত্যেক মায়েরই মাঝেমাঝে স্ট্রেস বাড়তে পারে এবং স্ট্রেস নিয়ে বাড়তি চাপ নেয়ার দরকার নেই। কারণ এটি সম্পূর্ণরূপে ভাল এবং স্বাভাবিক, এটি গর্ভের শিশুর উপর কোন স্থায়ী প্রভাব ফেলবে না।  

যাইহোক, গর্ভবতী মা যদি গর্ভাবস্থায় দীর্ঘ সময় ধরে স্ট্রেসে থাকে এবং দীর্ঘস্থায়ী উদ্বেগে থাকে, তাহলে তার পেটে ব্যথা এবং উদ্বিগ্ন শিশু জন্ম হওয়ার সম্ভাবনা বেশি থাকে। গর্ভবতী মা যখন নিরাশায় ভোগে, তখন তার শরীর একটি স্ট্রেস হরমোন তৈরি করে এবং অনেকেই বিশ্বাস করে যে, আবেগ এবং অনুভূতিগুলো গর্ভেরফুল অতিক্রম করতে পারে না। কিন্তু সেই বেদনাদায়ক চাপ হরমোন গর্ভফুল অতিক্রম করতে পারে এবং সেই হরমোনটি বাচ্চার বিকশিত সিস্টেমে প্রায়শই লক্ষ্য করা যায়, সেও দীর্ঘস্থায়ী চাপে অভ্যস্ত হতে পারে।    

 

আপনি যদি একজন বিষণ্ণ মা হন

womensmentalhealth.org

womensmentalhealth.org

হেলথ লাইনে প্রকাশিত একটি গবেষণার মতে, গর্ভাবস্থায় বিষণ্নতায় ভোগা হল প্রসব পরবর্তী বেদনার মতো একটি সাধারণ ঘটনা। তবে, গর্ভধারণের আগে এবং গর্ভাবস্থায় যে বিষণ্ণতা দেখা দেয় তা কিন্তু প্রসব পরবর্তী বিষণ্ণতা থেকে আলাদা।

গবেষণা মতে, শীঘ্রই মা হতে যাওয়া গর্ভবতীরা আশ্চর্যজনকভাবে ১০% বিষণ্ণতায় ভোগে এবং এই পূর্বাভাসটি ভাল না। বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই মহিলারা নিজেদের এই ধরণের সমস্যার ব্যাপারে উদাসীন থাকে।

গর্ভাবস্থায় মা বিষন্নতায় ভুগলে সেটা সন্তানের ওপর বিরূপ প্রভাব ফেলে। জন্মের পর ওই সন্তানের ঘুমে ব্যাঘাত ঘটতে পারে এবং এক পর্যায়ে সেই শিশুটিও বিষণ্ণতার শিকার হতে পারে। ফলে শারীরিক এবং মানসিক বৃদ্ধিতে ব্যাঘাত সৃষ্টি করবে।     

এছাড়াও গর্ভাবস্থায় বিষন্নতায় আক্রান্ত মায়েদের সন্তানের মস্তিষ্ক সঠিকভাবে বিকাশিত হতে পারে না। বিষন্নতা গর্ভের শিশুর মস্তিষ্ক বিকাশে বাধা প্রদান করে। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ব্রিস্টল বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকেরা এ বিষয়ে গবেষণা করে জানান যে, বিষণ্ণতায় আক্রান্ত মায়েদের শরীরে স্ট্রেস হরমোন কটিসলের পরিমাণ বেশি থাকে। এই হরমোন কর্টিসল গর্ভফুল অতিক্রম করতে পারে। ফলে, গর্ভের ভ্রূণের উন্নয়নশীল মস্তিষ্ক বিকাশে বাধা সৃষ্টি করে।

তাছাড়া, গর্ভাবস্থায় মায়েরা যদি বিষণ্ণতায় ভোগে এবং সেটি প্রতিকার না করে তাহলে আরো কিছু সমস্যা দেখা দিতে পারে। যেমন- গর্ভের বাচ্চা ৩৭ সপ্তাহের আগেই অকালে জন্ম নিতে পারে। জন্মের সময় বাচ্চার ওজন কম হতে পারে এবং গর্ভকালীন বিষণ্ণতা কাটিয়ে উঠতে না পারলে প্রসব পরবর্তী বিষণ্ণতায় আক্রান্ত হতে পারে।

 

আপনি যদি আপনার প্রেগন্যান্সিতে বিরক্ত হন

FirstCry Parenting

FirstCry Parenting

আপনি যদি আপনার গর্ভের ভিতরে থাকা ছোট ব্রুণটাকে বেড়ে উঠানোর জন্য বিরক্তি নিয়ে সংগ্রাম করেন, তবে এটি কেবল বিষয়টিকে আরও খারাপ করে তুলবে। গবেষণা মতে, যে গর্ভবতী মায়েরা তাদের গর্ভের সন্তানের জন্য কোন বন্ধন বা সংযুক্ত অনুভব করে না, তাদের সন্তানেরা জন্মের পর মানসিক সমস্যা নিয়ে বেড়ে উঠে।  

 

আপনি যদি মাঝেমাঝে খারাপ দিনের মধ্যে দিয়ে অতিবাহিত করেন

Scary Mommy

Scary Mommy

গর্ভাবস্থায় দীর্ঘ নয় মাসের যাত্রায় মাঝেমধ্যে খারাপ দিন যাওয়াটা একেবারে স্বাভাবিক বিষয়। প্রত্যেক গর্ভবতী মায়েদের ক্ষেত্রেই সেটা হয়ে থাকে। এটাকে নিয়ে দুশ্চিন্তা করবেন না। মাঝেমধ্যে আকস্মিকভাবে ঘটে যাওয়া এই খারাপ দিনগুলো আপনার নব জাতকের উপর কোন স্থায়ী প্রভাব ফেলবে না।   

 



জনপ্রিয়