অত্যন্ত হিংস্র এই চলচ্চিত্রগুলো ভারতে সর্বাধিক জনপ্রিয় অত্যন্ত হিংস্র এই চলচ্চিত্রগুলো ভারতে সর্বাধিক জনপ্রিয়

অত্যন্ত হিংস্র এই চলচ্চিত্রগুলো ভারতে সর্বাধিক জনপ্রিয়

ভারত বিশ্বের সবচেয়ে চলচ্চিত্র পাগল জাতির একটি।  এই দেশ বলিউড, কলিউড, মোলিউড ইত্যাদি সফল চলচ্চিত্র শিল্পের দেশ। প্রত্যেক রাজ্যের নিজস্ব চলচ্চিত্র শিল্প আছে। কয়েকটি ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রি ক্রমাগতভাবে উন্নতি করছে, যেমন- বলিউড এবং দক্ষিণের চলচ্চিত্র শিল্প। ভারতের দূরবর্তী অঞ্চলে মাল্টিপ্লেক্স খোলার কারণে, আরও বেশি চলচ্চিত্র দর্শকদের কাছে পৌঁছতে সক্ষম হয়েছে।

প্রায় সব ধরনের ভারতীয় চলচ্চিত্র যেমন- রোমান্স, অ্যাকশন, থ্রিলার, নাটক বা যৌন কমেডি ভারতীয় দর্শকরা পছন্দ করে। তবে সবচেয়ে বেশি কোনটি পছন্দ করে সেটা বলতে হলে নিঃসন্দেহে বলতে হবে অ্যাকশন ঘরানার চলচ্চিত্রের কথা। এই সকল ছায়াছবি রক্ত, জমাট বাঁধা রক্ত, বুলেট, যুদ্ধের দৃশ্য, গালিগালাজ এবং সাধারণ শ্রোতাদের জন্য অত্যন্ত হিংসাত্মক বলে মনে করা হয়।

তারা অনেক কাটছাটের পরে সেন্সর বোর্ড থেকে 'এ' সার্টিফিকেট পায়। তবুও এই ধরনের চলচ্চিত্রের দর্শকের অভাব নেই এবং বেশ কিছু বলিউড ও হলিউড চলচ্চিত্র এখনও মারাত্মক জনপ্রিয়। উভয় ক্ষেত্রেই বড় তারকা, সেরা সেরা পরিচালক এসেছেন এবং বক্স অফিসে কাঁড়ি কাঁড়ি অর্থ উপার্জিত হয়েছে।

 ভারতে সর্বাধিক জনপ্রিয় অত্যন্ত হিংস্র এই চলচ্চিত্রগুলো নিয়েই আমাদের আজকের এই আয়োজন।

 

গজনী

source: internet

source: internet

এআর মুরাগাদস পরিচালিত গজনী একটি প্রতিশোধ থ্রিলারধর্মী চলচ্চিত্র। হিংস্র দৃশ্যে পূর্ণ, রক্তপাত এবং প্রচুর মারামারি। অনেকেই এর হিংস্রতা নিয়ে প্রশ্ন তোলেন তবুও ভারতে এটি ১০০ কোটির উপরে ব্যবসা করেছে।

 

গ্যাংস অফ ওয়াসীপুর

source: internet

source: internet

অনুরাগ কাশ্যপের গ্যাংস্টারের এই কাহিনী বিশ্বব্যাপী ভালো রিভিউ পেয়েছে এবং কান চলচ্চিত্র উৎসবে স্টান্ডিং ওভাশন পায়। চলচ্চিত্রটি অত্যন্ত হিংস্র হিসাবে অনুভূত হয় এবং শেষপর্যন্ত 'এ' সার্টিফিকেট দেওয়া হয়।  এই চলচ্চিত্রে যে পরিমাণ হত্যা, রক্তপাত, মারামারি দেখানো হয় তা সাধারণ দর্শকদের জন্য অনেক বেশি ছিল।

 

গো গোয়া গন

source: internet

source: internet

সাইফ আলি খান অভিনীত চলচ্চিত্রটি ভারতের প্রথম জোম্বি কমেডই চলচ্চিত্র। এই চলচ্চিত্রে প্রচুর গালাগালি, রক্তপাত এবং মাথায় গুলি করার দৃশ্য আছে।

 

রক্ত চরিত্র

source: internet

source: internet

রামগোপাল ভার্মা পরিচালিত এই গ্যাংস্টার চলচ্চিত্র অত্যন্ত ইতিবাচক রিভিউ পেয়েছে কিন্তু সহিংসতার জন্য এটি দেখা সকল দর্শকদের পক্ষে সম্ভব ছিল না।

 

সত্য

source: internet

source: internet

রামগোপাল ভার্মা পরিচালিত আরেকটি মাস্টারপিস। বর্ষায় মুম্বাইয়ের রাস্তায় গড়ে ওঠা হিংসাত্মক গ্যাংস্টার একটি চলচ্চিত্র।সহিংসতা ও রক্তপাতের কারণে ছবিটি একটি 'এ' সার্টিফিকেট পায়।

 

সিন সিটি

source: internet

source: internet

কমিক বইয়ের কাহিনীর উপর ভিত্তি করে এই নব্য-কালো অপরাধ থ্রিলার নির্মাণ করা হয়। এর পরিচালক ছিলেন ফ্রাঙ্ক মিলার এবং রবার্তো রদ্রিগেজ। চলচ্চিত্রটিতে প্রচুর পরিমাণ হিংসাত্মক এবং অস্বস্তিকর দৃশ্য রয়েছে কিন্তু একটি ক্লাসিক কাল্ট চলচ্চিত্র হিসেবে বিবেচিত করা হয়।

 

কিল বিল

source: internet

source: internet

কোয়ান্টিন টরান্টিনোর এই চলচ্চিত্রটি একটি প্রতিশোধধর্মী থ্রিলার যেখানে উমা থারমানের কনে হত্যাকারীদের এবং অন্যান্য অপরাধীদের বিরুদ্ধে মারামারি করে। এই চলচ্চিত্রটি সকলের জন্য না এবং এখানে খুব কাছ থেকে মানুষ খুন, তলোয়ার দিয়ে কেটে ফেলার দৃশ্য আছে।

 

ডেডপুল

source: internet

source: internet

রায়ান রেনল্ডস অভিনীত এই চলচ্চিত্রটিকে অনেকদিন ধরে সুপারহিরো চলচ্চিত্রের তকমা দেওয়া হয়নি। ডেডপুল কমিক্সে প্রচুর পরিমাণ গালাগালি, মারামারি, যৌনতা, হিংস্রতা এবং অনেক বিতর্কিত বিষয় নিয়ে কথা বলে হয়েছে। এই চলচ্চিত্রটি সর্বকালের সর্বোচ্চ আয় করা 'R' রেটেড সুপারহিরো চলচ্চিত্র হয়ে থাকবে।

 

পাল্প ফিকশন

source: internet

source: internet

এটিকে সর্বকালের সেরা একটি চলচ্চিত্র হিসেবে গণ্য করা হয়। লস এঞ্জেলেসে ঘটা কিছু কাহিনী নিয়ে এটি বানানো হয়েছে। এই চলচ্চিত্রটিতে অসংখ্য মারামারির দৃশ্য রয়েছে এবং গালাগালি এবং সহিংসতার পরিমাণ কোন কোন ব্যক্তির জন্য অনেক বেশি।

 

ডিজাঙ্কো আনচেইনড

source: internet

source: internet

কোয়ান্টিন টরান্টিনোর অনবদ্য এক মাস্টারপিস। প্রধান ভূমিকায় জেমি ফক্স এবং লিওনার্দো ডিক্যাপ্রিও আছেন। চলচ্চিত্রটি অত্যন্ত সহিংস বলে মনে করা হতো এবং থিয়েটারে পৌঁছাবার আগে এটিকে অনেক কাঁটাছেঁড়ার মধ্যে দিয়ে যেতে হয়েছে।

 

আপনাদের দেখা সবচেয়ে হিংসাত্মক চলচ্চিত্র কোনটি? আমাদের সাথে শেয়ার করতে ভুলবেন না।

আমাদের আয়োজন ভালো লাগলে লাইক, কমেন্ট, শেয়ারের মাধ্যমে আমাদের সাথেই থাকুন। আমাদের পাশে থাকার জন্য ধন্যবাদ।



জনপ্রিয়