এমন সব ছবি তিনি তুলেছেন, যা দেখলে মনে হবে আসলেই ভাগ্য তার সহায় ছিল           এমন সব ছবি তিনি তুলেছেন, যা দেখলে মনে হবে আসলেই ভাগ্য তার সহায় ছিল

বাংলাদেশের জন্মের আগে পরের কিছু ছবি, যা দেখলে বুঝবেন ভাগ্য ফটোগ্রাফারের পাশে ছিলো

মানুষের চোখের তারায় হরহামেশাই বন্দি হয় নানান রকম দৃশ্য। আবার তা মুছেও যায়। তবে এমন কিছু দৃশ্য বা প্রিয় মানুষের মুখ আছে যা ব্যক্তির হৃদয়কে আলোড়িত করে। আর তা হয়তবা আজীবন চিরসজীব হয়ে থাকে ব্যক্তির স্মৃতিপটে।  ছবি ইতিহাস, ঐতিহ্য, সংস্কৃতি সংরক্ষণ করে তেমনি মানুষের আবেগ অনুভূতিও জাগ্রত করে। এমন কি মানুষের চিন্তা চেতনা, বোধবুদ্ধিকেও পাল্টে দিতে পারে। তবে এমন কোন বস্তু, ঘটনা বা কাহিনী যা ইতিহাস ঐতিহ্যের ধারক বা মানবীয় অনুভূতির বহিঃপ্রকাশ ঘটায় এমন ছবি ক্যামেরায় ধারণ করার জন্য চাই অনুসন্ধ্যিত্‍সু, সৌন্দর্যপিপাসু ও সৃজনশীল চোখ।

ঊনসত্তরের গণঅভ্যুত্থান থেকে শুরু করে সত্তরের সাধারণ নির্বাচন এবং ফলাফল, অসহযোগ আন্দোলন, মুক্তিযুদ্ধ, যুদ্ধপরবর্তী হাহাকার, আহাজারি, কান্না, মানুষের দুঃখ-দুর্দশা, মানবিক অনুভূতি, নারী আন্দোলন ও বিভিন্ন সংগ্রাম তিনি তার ক্যামেরার মাধ্যমে মানুষের সামনে আকর্ষনীয় করে উপস্থাপন করেছেন। মানুষের আবেগ-অনুভূতিকে জাগ্রত করে তুলেছেন। বিখ্যাত, বহুল প্রচারিত ও মুদ্রিত এসব ছবি ইতিহাসের সত্যতাকে ধারণ করছে যুগ যুগ ধরে। নিজের এসব ছবি সম্পর্কে অনুভূতি প্রকাশ করতে গিয়ে তিনি শুধু একটি কথাই বললেন। ‘আই অ্যাম আ লাকি ফটোগ্রাফার।’ এমন সব ছবি তিনি তুলেছেন, যা দেখলে মনে হবে আসলেই ভাগ্য তার সহায় ছিল। ভাগ্যবান এই আলোকচিত্র শিল্পীর নাম রশীদ তালুকদার। 

১৯৬২ সালের ২৪ অক্টোবর তিনি প্রথম দৈনিক সংবাদে ফটো জার্নালিস্ট হিসাবে কাজ শুরু করেন। তখন সংবাদের এক্সিকিউটিভ ডিরেক্টর ছিলেন শহীদ বুদ্ধিজীবী শহিদুল্লাহ কায়সার। প্রথম দিনেই শহিদুল্লাহ কায়সার তাঁকে একজন আহত মানুষের ছবি তোলার অ্যাসাইনমেন্ট দেন। কিন্তু সেই সময় ছবি তোলা ছিল অত্যন্ত কঠিনতর একটি কাজ। 

বাংলাদেশের বহু ঐতিহাসিক ঘটনার সাক্ষী হয়ে আছে তাঁর আলোকচিত্র। বিখ্যাত ব্যক্তিত্ব - মাদার তেরেসা, মাওলানা ভাসানী, শেখ মুজিবুর রহমান কিংবা বঙ্গবন্ধুর ৭ই মার্চের ভাষণ, বাংলাদেশের মুক্তি সংগ্রাম, বুদ্ধিজীবিদের লাশ উত্তোলনের স্থিরচিত্র ধারণ করে রশীদ তালুকদার স্মরণীয় হয়ে আছেন। 

 

ছাত্রদের অসহযোগ আন্দোলনে শহীদ আসাদের মৃত্যুতে প্রত্যক্ষদর্শী হিসেবে ছিলেন তিনি। বাংলাদেশের অন্যতম জনপ্রিয় আলোকচিত্র শিল্পী হিসেবে তাঁর ক্যামেরায় স্থিরচিত্র হিসেবে ফুঁটে উঠেছিল ছাত্র-জনতার দীর্ঘ মিছিলসহ আসাদের শার্টের ছবি। 

ছবি: রশীদ তালুকদার

ছবি: রশীদ তালুকদার

 

গুলিবিদ্ধ আসাদকে (ছবিতে শুধু পা দেখা যাচ্ছে) নিয়ে যাওয়া হচ্ছে হাসপাতালে, ২০ জানুয়ারি ১৯৬৯।  

ছবি: রশীদ তালুকদার

ছবি: রশীদ তালুকদার

 

জানাজার পর আসাদের রক্তমাখা শার্ট নিয়ে মানুষের মিছিল, ২০ জানুয়ারি ১৯৬৯।

ছবি: রশীদ তালুকদার

ছবি: রশীদ তালুকদার

 

আসাদের মৃত্যু নানা দিক দিয়ে তাৎপর্যময়। কেননা, এই মৃত্যু একটি গণ-আন্দোলনকে গণ-অভ্যুত্থানে রূপ দিয়েছিল। এই মৃত্যুর ঠিক চার দিন পর ঢাকা শহরের পরিস্থিতি মোনায়েম খানের নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যায় এবং আইয়ুব শাহির পতন ঘটে। সাধারণ জনতা স্বতঃস্ফূর্তভাবে ঢাকার রাস্তায় আইয়ুব নামফলক ভেঙে ফেলে সেখানে আসাদের নাম উৎকীর্ণ করে।

ছবি: রশীদ তালুকদার

ছবি: রশীদ তালুকদার

 

আইয়ুব অ্যাভিনিউ হয়ে যায় আসাদ অ্যাভিনিউ। আইয়ুব গেটের নাম হয় আসাদ গেট। আসাদের এই মৃত্যু যে কেবল বাঙালির চৈতন্যে আঘাত করে জাগিয়ে তোলে তা নয়, এমনকি কাঁপিয়ে দেয় শাসকের হৃদয়ও।

 

বাংলাদেশের স্বাধীনতা-পূর্ব তৎকালীন পূর্ব পাকিস্তানের গণ-অভ্যুত্থানের স্থির চিত্র হিসেবে মিছিলের সম্মুখভাগে টোকাই বা পথশিশুর ছবি তুলে সকলের নজর কাড়েন তিনি।

ছবি: রশীদ তালুকদার

ছবি: রশীদ তালুকদার

 

ইডেন কলেজ হোস্টেলের ছাত্রীরা তৃষ্ণার্ত মিছিলকারীদের খাবার পানি খাওয়াচ্ছেন

ছবি: রশীদ তালুকদার

ছবি: রশীদ তালুকদার

 

প্রেস ক্লাবের সামনে পাকিস্তান সরকারের বিরুদ্ধে আন্দোলনের সময় পুড়িয়ে দেয়া একটা সরকারী গাড়ি

ছবি: রশীদ তালুকদার

ছবি: রশীদ তালুকদার

 

মুক্তিযুদ্ধের আগে জুলফিকার আলী ভুট্টো এবং শেখ মুজিবুর রহমানের বৈঠক

ছবি: রশীদ তালুকদার

ছবি: রশীদ তালুকদার

 

জুলফিকার আলী ভুট্টোর হোটেল শেরাটনে শেষ পূর্ব পাকিস্তানে ভ্রমণ


 

স্বাধীন বাংলাদেশের প্রত্যয়

ছবি: রশীদ তালুকদার

ছবি: রশীদ তালুকদার

 

রাজাকারদের সাথে এক সাথ হয়ে পাকিস্তানি হানাদার বাহিনী কাদের সিদ্দিকীর গেরিলা বাহিনীর উপর হামলা 

ছবি: রশীদ তালুকদার

ছবি: রশীদ তালুকদার

 

মুক্তিযুদ্ধের সময় এমন অগনিত নাম না জানা লাশ পড়ে থাকতো রাস্তায়, জলাশয়ে

ছবি: রশীদ তালুকদার

ছবি: রশীদ তালুকদার

 

রাজাকারদের সাথে এক সাথ হয়ে পাকিস্তানি হানাদার বাহিনী কাদের সিদ্দিকীর গেরিলা বাহিনীর উপর হামলা 

ছবি: রশীদ তালুকদার

ছবি: রশীদ তালুকদার

 

ঢাকায় ভারতীয় ট্যাংকের প্রবেশে সাধারন মানুষদের উল্লাস

ছবি: রশীদ তালুকদার

ছবি: রশীদ তালুকদার

 

পরবর্তীতে বাংলাদেশের মহান স্বাধীনতা যুদ্ধের পর ঢাকার রায়েরবাজার বধ্যভূমি থেকে বুদ্ধিজীবীদের লাশ উত্তোলনের ছবিও তিনিই ধারণ করেন।

ছবি: রশীদ তালুকদার

ছবি: রশীদ তালুকদার

 

রায়েরবাজার বধ্যভূমি থেকে বুদ্ধিজীবীদের লাশ

ছবি: রশীদ তালুকদার

ছবি: রশীদ তালুকদার

 

রায়েরবাজার বধ্যভূমি থেকে বুদ্ধিজীবীদের লাশ

ছবি: রশীদ তালুকদার

ছবি: রশীদ তালুকদার

 

রায়েরবাজার বধ্যভূমি থেকে বুদ্ধিজীবীদের লাশ

ছবি: রশীদ তালুকদার

ছবি: রশীদ তালুকদার

 

রায়েরবাজার বধ্যভূমি থেকে বুদ্ধিজীবীদের লাশ

 

মুক্তিযুদ্ধের পর প্রথম কাদের সিদ্দিকী বামে, এবং ডানে বঙ্গবন্ধুর সন্তানের স্টেজে এক সাথে মানুষের উদ্যেশে ভাষণ

ছবি: রশীদ তালুকদার

ছবি: রশীদ তালুকদার

 

মুক্তিযুদ্ধের পর বঙ্গবন্ধুর নতুন বাংলাদেশে প্রবেশ 

ছবি: রশীদ তালুকদার

ছবি: রশীদ তালুকদার

 

মুক্তিযুদ্ধের পর ডক্টর কামাল হোসেনের প্রথম বাংলাদেশের সংবিধান প্রকাশ 

ছবি: রশীদ তালুকদার

ছবি: রশীদ তালুকদার

 

আপনাদের সংগ্রহে ঐতিহাসিক ছবি থাকলে আমাদের সাথে শেয়ার করতে পারেন, আমরাও কিছু আপনাদের থেকে জানতে পারবো। আপনাদের মতামত আমাদের সাথে শেয়ার করতে পারেন।  আপনার আশে পাশের যে কোন ভালো কিংবা মজার ছবি যদি আমাদের মাধ্যমে পেইজে অথবা আর্টিকেলে শেয়ার করতে চান তাহলে আমাদের ফাঁপরবাজ পেইজের ইনবক্সে ছবিটি কোথায় উঠানো এবং কে উঠিয়েছেন এই তথ্য সহ মূল ছবিটি পাঠাতে পারেন, পরবর্তীতে আমরা আপনার তোলা ছবি সবার সাথে শেয়ার করব। সাথে থাকার জন্য ধন্যবাদ



জনপ্রিয়