যে নারীরা ইন্টারনেটে ঝড় তুলেছিল  যে নারীরা ইন্টারনেটে ঝড় তুলেছিল

যে নারীরা ইন্টারনেটে ঝড় তুলেছিল

২১ শতকের মধ্যে নারীরা কী করতে পারবে, কী কাজ করবে এবং কী অর্জন করবে সেটার জন্য অনেক বিকল্প উপায় রয়েছে। যাইহোক, আজকে আমরা আপনাদের জন্য একটি শক্তিশালী ম্যাসেজ দিতে চাচ্ছি, বিশেষভাবে যখন এটি বিশ্বব্যাপী মানুষকে প্রভাবিত করে। এমনি কয়েকজন নারীর গল্প নিয়ে আজকে আমাদের আয়োজন, যারা ইন্টারনেটে ব্যাপক সাড়া জাগিয়েছিল।        

সংসদ অধিবেশনের সময় সন্তানকে বুকের দুধ খাওয়ানো প্রথম নারী

© ODN / youtube   © larissawaters / twitter

© ODN / youtube © larissawaters / twitter

একজন অস্ট্রেলিয়ান সিনেটর লারিসা ওয়াটারস, অস্ট্রেলিয়ার পার্লামেন্টে অধিবেশন চলাকালে প্রথমবারের মতো নিজ সন্তানকে বুকের দুধ পান করালেন। অনুগ্রহের সাথে তিনি তারা স্বামী এবং সিনেটের সমর্থনে দাঁড়িয়েছিলেন। আমাদের উল্লেখ করা উচিৎ যে, অস্ট্রেলিয়ার সংসদের নিম্ন কক্ষে শিশুকে বুকের দুধ পান করানোর অনুমতি দেয়া হয়েছিল গত দুয়েক বছর আগে। কিন্তু এর আগে কোন নারী সদস্য তার শিশুকে অধিবেশন কক্ষে বুকের দুধ পান করান নি।

তবে মিসেস ওয়াটারস ২০১৭ সালে সংসদ অধিবেশনের সময় সন্তানকে বুকের দুধ পান করানোর মধ্য দিয়ে আমাদের মনে করিয়ে দেয় যে, কিছু করার অধিকার কেবল অনুশীলন করার মধ্য দিয়েই কার্যকর হয় এবং এটি একটি বিরাট পার্থক্য তৈরি করতে পারে।

পৃথিবীর অনেক দেশের সংসদে শিশুকে বুকের দুধ পান করানোর বিষয়টি বেশ সংবেদনশীল হিসেবে মনে করা হয়।    

 

মহাকাশে প্রথম মা

© spaceweathertransmissions

© spaceweathertransmissions

মহাকাশ ইন্ডাস্ট্রির একটি ছোট পদক্ষেপ- নারীজাতির জন্য একটি বিশাল পরিবর্তন নিয়ে এসেছে। আন্না লি ফিশার শুধুমাত্র মহাকাশে যাত্রা করা প্রথম নারী ছিলেন না, বরং বাইরের মহাকাশে যাত্রা করা প্রথম মা ছিলেন।

তিনি শুধুমাত্র দক্ষ রসায়নবিদ, চিকিৎসক এবং মা নয়, বরং সেইসাথে তিনি নাসার একজন মহাকাশচারী এবং তিনি ৩টি প্রধান মহাকাশ কর্মসূচির সাথে জড়িত ছিলেন।

 

ন্যায়বিচারের জন্য ১৬ বছরের অনশন-ধর্মঘট

© Zuhairali / wikimedia

© Zuhairali / wikimedia

আপনি কি কখনো একটি মহৎ উদ্দেশ্যে দীর্ঘ সময়ের জন্য অনশন ধর্মঘটে অংশী হওয়ার কথা কল্পনা করেছেন? ইরম শর্মিলা চানু এমনই একজন নারী, যিনি টানা ১৬ বছর ধরে অনশন করে যাচ্ছেন। তাঁকে মণিপুরের লৌহমানবী বলা হয়। তিনি ২০০০ সালের ২ নভেম্বরের পর থেকে ‘মণিপুরে সৈন্য বাহিনীর বিশেষ ক্ষমতা আইন’ বাতিল করার জন্য অনশন করে যাচ্ছেন। কারণ এই আইনের কারণেই ২০০০ সালের নভেম্বর মাসে দুপুরে ইম্ফলের উপকন্ঠে মালমে ঘটে যায় এক হত্যাকাণ্ড। বাসস্ট্যান্ডে দাঁড়িয়ে থাকা দশজনকে নির্বিচারে গুলি চালিয়ে মেরে ফেলে আধাসামরিক বাহিনী আসাম রাইফেলসের সদস্যরা।

এই ঘটনাটিকে পাচলৈ ‘মালম গণহত্যা’ হিসেবে উল্লেখ করা হয়। এই ঘটনার প্রতিবাদে তিনি অনশন আরম্ভ করেন। বিশ্বব্যাপী নারীকে তিনি অনুপ্রাণিত করছেন, এ কারণে ২০১৪ সালের আন্তর্জাতিক নারী দিবসে তাঁকে ভারতের শীর্ষ নারী হিসেবে ঘোষিত করা হয়।

 

৬৪ বছর বয়সে কিউবা থেকে ফ্লোরিডায় সাঁতার কেটে ১১০ মাইল পাড়ি দিলেন

© Gage Skidmore / wikimedia

© Gage Skidmore / wikimedia

সাহসিকতা এবং অধ্যবসায় দুটি শব্দ স্পষ্টভাবে ডায়ানা নিয়াদের জন্য প্রযোজ্য। তিনি ৬৪ বছর বয়সে কিউবা থেকে ফ্লোরিডায় সাঁতার কেটে পাড়ি দেওয়া প্রথম ব্যক্তি নন, পাশাপাশি একটি শার্ক কেজ ছাড়া সাঁতার কাটার সাহস দেখান। মার্কিন এই নারী একাধারে দীর্ঘ দূরত্বের সাঁতারু, একদিকে মোটিভেশনাল স্পিকার, লেখক এবং সাংবাদিক।

এটি তার প্রথম প্রচেষ্টা ছিল না (এটা তার পঞ্চমতম ছিল), কিন্তু ২০১৩ সালে তিনি তার লক্ষ্য অর্জন করেন। ৬৪ বছরের এক বৃদ্ধার এমন অদম্য মনের জোর দেখে সবাই বিস্মিত হয়ে গিয়েছিল। তিনি একটানা ৪৯ ঘন্টা সাঁতার কেটেছিলেন। তিনি বলেছিলেন, ‘আসলে সব বয়সেই স্বপ্ন দেখা যায়। আর সেটা পূরণ করার জন্য বয়স কোন বাধা হয়ে দাঁড়াতে পারে না’। তাই ৬৪ বহচর বয়সে বিশ্বকে দেখিয়ে দিয়েছেন ইচ্ছাশক্তি থাকলে মানুষ কী না করতে পারে!

 

১২২ বছর বয়সী আইকন

© Source / wikimedia   © unknown / wikimedia

© Source / wikimedia © unknown / wikimedia

বিশ্বের সবচেয়ে বয়োজ্যেষ্ঠ ব্যক্তি জেইন ক্যালমেট, তিনি শুধুমাত্র তার বেশি দিন আয়ু পাওয়ার জন্যই বিখ্যাত হননি, বরং সোশ্যাল মিডিয়াতে তার উপস্থিতির কারণে তিনি বিখ্যাত হয়ে উঠেছিলেন!

নিজের শেষ সময় পর্যন্ত তিনি নিজের শক্ত মানসিকতা ধরে রাখতে সমর্থ হয়েছিলেন।

 

মায়িম বিয়ালিক

© jfcitsjimparsons

© jfcitsjimparsons

মায়িম বিয়ালিক একজন শিশু অভিনেত্রী ছিলেন, এনবিসি এর জনপ্রিয় সিটকম ব্লোজমের মুখ্য চরিত্রে অভিনয় করেছিলেন। বেশ কয়েক বছর পর তিনি পিএইচডি ডিগ্রী অর্জন করেন, বিয়ে করেন, পরে তালাক হয় এবং তার দুই সন্তান রয়েছে।  

তিনি অভিনেত্রী হিসেবে তার পেশায় ফিরে যান নি, কিন্তু জীবনের জন্য অন্য পরিকল্পনা ছিল- এক পর্যায়ে তাকে সত্যিই স্বাস্থ্য বীমা করার দরকার পড়ে এবং সেসময় তার স্বামী মাস্টার্স ডিগ্রি নিয়ে ব্যস্ত ছিলেন। তাই তিনি ভেবেছিলেন যে, তিনি অস্থির চিত্ত দম্পতির একটি অভিনয় করবেন এবং পরে তিনি ব্যাপকভাবে জনপ্রিয় দ্য বিগ ব্যাং থিওরির একটি অংশ হওয়ার সুযোগ পেয়েছিলেন।

কিন্তু সে কি করতে পারবে তার কোন সীমা নেই! তার নামে নতুন বই রয়েছে এবং সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হল- তিনি অনলাইনে তার YouTube চ্যানেলের মাধ্যমে দর্শকদের সাথে যোগাযোগ রাখেন, যেখানে তিনি সৎ, সহজবোধ্য এবং সত্যবাদী থাকেন।

 



জনপ্রিয়