বয়সকে যারা ফুঁ মেরে উড়িয়ে দিয়েছেন! বয়সকে যারা ফুঁ মেরে উড়িয়ে দিয়েছেন!

বয়সকে যারা ফুঁ মেরে উড়িয়ে দিয়েছেন!

বিজ্ঞানীরা নিশ্চিত করেছেন যে, বয়স বাড়ার সাথে সাথে আমাদের দাম্পত্য সম্পর্ক যদি ভালো থাকে তবে তা অন্য যে কোন কিছুর তুলনায় স্বাস্থ্যকে ভালো রাখে। যারা তাদের সঙ্গীর সাথে সুখে থাকে ৮০ বছর বয়সেও তারা সুস্থ থাকে। কিছু মানুষকে দেখলে আপনি তাদের বয়স আন্দাজই করতে পারবেন না, কারণ তাদের এতো প্রাণবন্ত এবং দারুণ দেখায়। 

এরকম প্রাণবন্ত ও অসাধারণ কিছু মানুষ নিয়েই আমাদের আজকের এই আয়োজন যাদের কাছে বয়স শুধুই একটা সংখ্যা।

 

তাতায়ানা নেক্লুদোভা

বয়স- ৬১ বছর

source: internet

source: internet

চমৎকার এই মহিলা ২ কন্য্যর মা ও ৩ জন নাতিনাতনির দাদীমা। তিনি একজন স্থপতি ছিলেন, কিন্তু তার বয়স যখন ৬০ তখন তার জীবন বদলে যায়। তাতায়ানা নেক্লুদোভাকে প্রথমে একটি সিনেমার তারকা হওয়ার জন্য অডিশনে ডাকা হয়। বর্তমানে তিনি একজন মডেল এবং অনেক নারীর অনুপ্রেরণায় পরিণত হয়েছেন। 

 

নাম- ইভান পেটকভ

বয়স- ৫৩ বছর 

source: internet

source: internet

একজন সার্টিফায়েড শিক্ষক হিসেবে ইভান শিক্ষকতা করতেন। এরপর তিনি থিয়েটার ডেকোরেশনের জন্য স্কেচ করা শুরু করেন এবং বিভিন্ন থিয়েটারের নাটক এবং চলচ্চিত্রে অংশগ্রহণ করেন। ইভান পেটকভ বর্তমানে একজন সিনিয়র মডেল, বয়সের প্রতি মানুষের দৃষ্টিভঙ্গিকে পালটে দিয়েছেন।

 

নাম- ভেরাস্ক্কা ফন লেহেন্ডোরাফ 

বয়স- ৭৯ বছর

source: internet

source: internet

অনেক ফ্যাশন মডেল ৩০ বছরের কাছাকাছি অবসর গ্রহণ করেন, কিন্তু ভেরাস্ক্কা ফন লেহেন্ডোরাফ নন। তিনি ৬০ এর দশকে মডেলিং-এ ছিলেন এবং ৭৮ বছর বয়সে আবার মডেলিং-এ ফিরে আসেন। তিনি সুইডিশ ব্র্যান্ড ব্রণ স্টুডিওর নতুন মুখ হয়ে উঠেছেন, নতুনভাবে জীবনকে সাজাচ্ছেন।

 

 

নাম- হোং-অড অজি

বয়স- ১০১ বছর

source: internet

source: internet

ফিলিপাইনের এই মহিলা পৃথিবীর সবচেয়ে বয়স্ক ট্যাটু আর্টিস্ট। চিন্তা করে দেখুন, তার বয়স ১০১ বছর! এবং তিনি এখনও তার পছন্দের কাজ করে যাচ্ছেন। তিনি পুরনো কালের কৌশল এখনো ব্যবহার করেন, একটি কাঁটা, একটি বাঁশের লাঠি, কয়লা এবং জল ব্যবহার করে। এই মহিলাকে দিয়ে ট্যাটু করাতে চান?

 

 

নাম- জিম অ্যারিংটন

বয়স- ৮৫ বছর বয়সী

source: internet

source: internet

এই ফিট মানুষটি বিশ্বের সবচেয়ে বয়স্ক পেশাদার বডিবিল্ডার। ১৫ বছর বয়স থেকে তিনি এই পেশায় আছেন। তার কাছে বয়স কোন ব্যাপারই না।

 

 

নাম-  মায়ে মুস্ক

বয়স- ৭০ বছর

source: internet

source: internet

পুরো বিশ্ব তার ছেলেকে চিনে, এলোন মুস্ক, একজন বিলিওনিয়ার এবং টেসলার সিইও। মায়ে মুস্ক শুধুই একজন গর্বিত মা নন, তিনি তার অশেষ সৌন্দর্য দিয়ে তার পরিবারকে গর্বিত করেছেন। ৬৯ বছর বয়সে একজন মডেল হিসেবে একটি ম্যাগাজিনের কভারগার্ল হয়ে ওঠেন এবং তিনি একজন পেশাদার পুষ্টিবিদ। 

 

 

নাম- ওয়াং দেশুন

বয়স- ৮২ বছর

source: internet

source: internet

চীনের হটেস্ট দাদু, যিনি তার খোলা বুক চীনের রাস্তায় দেখাতে ভয় পান না। ৫০ বছর বয়সে তিনি জিমে ভর্তি হন এবং সময়ের সাথে সাথে দৈনন্দিন ব্যায়াম রুটিন বেশ তীব্র হয়ে ওঠে। তার আদর্শবাক্য হল- কখনোই হাল ছাড়বেন না।

 

 

নাম-  টাও পোচারন লিঞ্চ

বয়স- ১০০ বছর

source: internet

source: internet

টাও পোচারন লিঞ্চ সবচেয়ে বয়স্ক যোগব্যায়ামের শিক্ষক হিসেবে গিনেস ওয়ার্ড রেকর্ডে জায়গা করে নিয়েছেন। তিনি এখনও নিয়মিত ক্লাস নেন এবং অসাধারণ সব যোগব্যায়াম দেখান। তিনি প্রমাণ করেছেন বয়স বাড়লেও যৌবন ধরে রাখা যায়।

 

 

নাম- রন জ্যাক ফলি

বয়স- ৫০ বছর 

source: internet

source: internet

আপনি হয়তো চিন্তা করছেন, তার গোপন রহস্য কি? রন জ্যাক ফলি এখনও বেশ শক্তপোক্ত এবং শক্তিশালী, তিনি যে কোন তরুণের সাথে টেক্কা দিতে পারবেন। তিনি স্বাস্থ্যগতভাবে খাওয়া এবং নিয়মিত খেলাধুলা করাকে গুরুত্বপূর্ণ মনে করেন। এটাই তার গোপন রহস্য, আপনি পারবেন তো?

 

 

নাম- জুলিয়া হকিন্স

বয়স- ১০২ বছর

source: internet

source: internet

এই অসাধারণ মহিলার ডাক নাম "হ্যারিকেন'- এবং বুঝতেই পারছেন গতিই তার প্রধান শক্তি। তিনি শুধু দৌড়ান না, ৮১ বছর বয়সেও অ্যাটরেট ছিলেন। নতুন কিছু শুরু কথার জন্য বয়স কোন ব্যাথাই নয়!

 

 

নাম- রবার্ট মার্চ্যান্ড

বয়স- ১০৬ বছর

source: internet

source: internet

যাই হোক না কেন, এই লোক পেডেলিং করতে থাকে। রবার্ট মার্চ্যান্ড অনেকগুলো ওয়ার্ড রেকর্ডের অধিকারী এবং এগুলো সব ১০০ বছরের পরে কথা। যদিও এখন তিনি প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করেন না কিন্তু তার অ্যাপার্টমেন্টের সামনে স্টেনশনারী সাইকেল চালান।

 

 

নাম- এভেলিন হল

বয়স- ৭২ বছর

source: internet

source: internet

আপনাদের মনে হতে পারে এই অসাধারণ মহিলা সবসময় ভালো ম্যাগাজিনের কভারে এসেছেন। কিন্তু বাস্তবতা হল তার ৬৫ বছর বয়সে তিনি মডেলিং-এ আসেন এবং এই শিল্পে সফল কর্মজীবন শুরু করেন। এভেলিন হল সেই সকল মহিলাদের রোল মডেল যিনি বার্ধক্য এবং তার স্বাভাবিক অনুগ্রহ হারানোর বিষয়ে উদ্বিগ্ন থাকেন।

 

 

নাম- মেজোরিও গিলবার্ট

বয়স- ১০২ বছর

source: internet

source: internet

মেজোরিও গিলবার্ট যিনি এতো সুন্দরভাবে মডেলিন-এর পোজ দেন তিনি আসতে কোন মডেল নন! আসলে তিনি জীবনে শুধু একবারই পোজ ছিলেন তাও বিশেষ একটা কারণে। বিখ্যাত ম্যাগাজিন ভোগ তাদের ১০০ বছর পূর্তি উপলক্ষে ১০০ বছর বয়সী একজন মহিলাকে মহিলা দিতে চায়। মেজোরিও গিলবার্ট প্রমাণ করেছেন, নতুন কিছু করার জন্য বয়স কোন ব্যবহারই নয়।

 

 

নাম- ফিলিপ ডুমাস

বয়স- ৬২ বছর

source: internet

source: internet

ফিলিপ ডুমাসের এই দাড়িগুলো শুধুই জীবন পরিবর্তনীয়। ফিলিপ ডুমাসের জীবন খুব সাধারণ ছিল কিন্তু দাড়ি গজানো শুরু করলে তার জীবন বদলে যায়। সবাই তার দিয়ে দৃষ্টি দেওয়া শুরু করেন এবং ফ্যাশন জগতকে তিনি ঝড়ের বেগে জয় করে নেন। 

 

 

নাম- চুয়ান্ডো টান

বয়স- ৫১ বছর

source: internet

source: internet

হ্যাঁ, আপনি সত্যি বলছি, বাচ্চাসুলভ এই চেহারার আসল বয়স ৫১ বছর!!! তার আসল বয়সের অর্ধেক লাগে তাকে দেখতে। চুয়ান্ডো টান সিঙ্গাপুরের বাসিন্দা এবং তিনি এখন ফটোগ্রাফার হিসেবে কাজ করেন। 

 

এদের কোন কার গল্পটা আপনাকে সবচেয়ে বেশই অনুপ্রাণিত করেছে? আমাদের সাথে শেয়ার করতে ভুলবেন না।

আমাদের আয়োজন ভালো লাগলে লাইক, কমেন্ট, শেয়ারের মাধ্যমে আমাদের সাথেই থাকুন। আমাদের পাশে থাকার জন্য ধন্যবাদ।



জনপ্রিয়