জেড তাঁর এই ছবির  নামকরণ করেছিলেন , আমি এখন দক্ষিণ মেরুতে, আপনি চাইলে এটা খেতে পারেন!   জেড তাঁর এই ছবির  নামকরণ করেছিলেন , আমি এখন দক্ষিণ মেরুতে, আপনি চাইলে এটা খেতে পারেন!  

মেয়ে বলে অবজ্ঞার সেরা জবাব

ষোল বছর বয়সী অস্ট্রেলিয়ান তরুণী স্কিয়ার জেড হ্যামিস্টার, যিনি সবচেয়ে কম বয়সী স্কিয়ার হিসেবে মেরুর বরফ টুপি ভ্রমণ করার গৌরব অর্জন করেছেন। মাত্র ৩৭ দিনের যাত্রায় তিনি উত্তর মেরু, দক্ষিণ মেরু এবং গ্রীনল্যান্ড বরফ চাদরে ভ্রমণ করেন ।   

দুই বছর আগে হ্যামিস্টার এক  TEDx talk এ মেরুর বরফ টুপি ভ্রমণের কথা বলতে গিয়ে তিনি অন্যান্য নারী স্কিয়ারদের সাহস ও উৎসাহ দেন। তিনি ইতোমধ্যে উত্তর মেরু ভ্রমণ করেছিলেন। তবু তার এ চলার নেশা থেমে থাকেনি। এই দুঃসাহসিক লক্ষ্যমাত্রা অর্জন করতে গিয়ে রীতিমত বিরূপ মন্তব্যও শুনতে হয়েছে এই তরুণীকে। তিনি স্কিয়ার হওয়ার পরিবর্তে “স্যান্ডউইচ বানানোর” প্রস্তাব পেয়েছিলেন। অবশেষে ২০১৮ সালের ১৩ জানুয়ারি তিনি তাঁর কাঙ্ক্ষিত লক্ষ্যমাত্রা অর্জন করতে সক্ষম হয়েছেন।    

জেড হ্যামিস্টার ২০১৭ সালে গ্রীনল্যান্ডের মেরু এলাকা পরিভ্রমণের মাধ্যমে বরফ টুপির দ্বিতীয় ধাপ সম্পন্ন করেন। দক্ষিণ মেরুতে পৌঁছতে তিনি  অ্যান্টার্কটিকা বরাবর  ২২০-পাউন্ডের স্লেজগাড়ী ৩৭৩ মাইল চালিয়েছেন । দক্ষিণ মেরুতে পৌঁছার পর  হ্যামিস্টারকে ছবিতে দেখা যায় তিনি একটি প্লেট হাতে দাঁড়িয়ে আছেন, ক্যাপসানে  তিনি লিখেছিলেন, “আমি আপনার জন্য স্যান্ডউইচ বানিয়েছি’’। জেড তাঁর এই ছবির  নামকরণ করেছিলেন , আমি এখন দক্ষিণ মেরুতে, আপনি চাইলে এটা খেতে পারেন!  

১৬-বছর বয়সী অস্ট্রলিয়ান স্কিয়ার জেড হ্যামিস্টার যিনি সবচেয়ে কম বয়সে মেরুর বরফ টুপি সফর করেছেন। 

 দু বছর আগে জেদ কে বলা হয়েছিলো, “যাও তুমি বরং স্যান্ডউইচ বানাও’’

আমি এখন দক্ষিণ মেরুতে, আপনি চাইলে এটা খেতে পারেন। 

 

বোরড পান্ডা থেকে অনুদিত।



জনপ্রিয়