চিরবিদায়ের ১৮ ঘন্টা আগে ভালোবাসার বিয়ে। চিরবিদায়ের ১৮ ঘন্টা আগে ভালোবাসার বিয়ে।

চিরবিদায়ের ১৮ ঘন্টা আগে ভালোবাসার বিয়ে।

এতে কোন সন্দেহ নেই যে,ক্যান্সার রোগীকে অনেক কষ্ট ভোগ করতে হয়। কিন্তু সেই ব্যক্তি একা ভোগেন না, তাদের পরিবার এবং প্রিয়জনেরাও উনার এই যন্ত্রণা এবং আতঙ্ক ভোগ করেন। আপনি কি জানেন, প্রতি ৮ জনের ১ জন মহিলা স্তন ক্যান্সার এ ভুগেন। এটি খুবই দুঃখের সংবাদ। আজ আমরা আপনাদের একটা কাহিনী শোনাবো। এই কাহিনী শুনে আপনি চোখের পানি আটকে রাখতে পারবেন না। এই কাহিনী একজন ক্যান্সার আক্রান্ত রোগীর যিনি তার বিয়ের কয়েক ঘন্টা পর মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়েছিল।

 

হিদার মোশার নামে ৩১ বছর বয়সী একজন মহিলা ২০১৬ সালের ডিসেম্বর থেকে এই ভয়ানক রোগে ভুগছিলেন। ২০১৬ সালের ২৩ ডিসেম্বর তার  স্তন ক্যান্সার ধরা পড়েছিল। কিন্তু সবচেয়ে দুঃখের ব্যাপার কি জানেন? সেদিন তার প্রেমিক তাকে বিয়ের প্রস্তাব দেওয়ার কথা ছিল।

1

1

 

তার প্রেমিক ডেভিড এর জন্য ব্যাপারটা খুব কঠিন ছিল। কারোন হিদারের এর অবস্থা খুব খারাপ ছিল। কিন্তু ডেভিড শেষ পর্যন্ত তাকে বিয়ের প্রস্তাব দেওয়ার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করে। ডাব্লুএফএসবি-টিভির মতে, তিনি তার ভবিষ্যৎ স্ত্রীকে বলতে চেয়েছিলেন যে, হিদার এই ব্যাপারে একা নন, ডেভিড সবসময় তার পাশে থাকবেন।

কিন্তু ভাগ্য হিদারেরর পাশে ছিল না। কেমোথেরাপি এবং অস্ত্রোপচার কোন কাজ করছিল না এবং ক্যান্সার সারা শরীর জুড়ে ছড়িয়ে পড়েছিল। একটি সময় ডাক্তাররা তাকে ভেন্টিলেটরে (দূষিত বায়ু সরিয়ে নির্মল বায়ু প্রবেশ করাবার যন্ত্র) রাখা শুরু করে।

2

2

 

ডেভিড ও হিদার ২০১৭ সালের ৩০ ডিসেম্বর বিয়ের দিন নির্ধারণ করে। কিন্তু ডাক্তাররা বুঝতে পেরেছিলেন হিদার এতোদিন বাঁচবেন না। তাই তারা ডেভিডকে বিয়ের দিন আরো এগিয়ে নিয়ে আসতে বলেন।

3

3

 

হিদারকে আবার ভেন্টিলেটরে রাখা হয়। তার পরিবার ও বন্ধুরা মিলে তার বিয়ের গাউন, উইগ ও অন্যান্য জিনিসপত্র কেনাকাটা করে।

২০১৭ সালের ২২ ডিসেম্বর, সেন্ট ফ্রান্সিস হাসপাতাল এবং হার্টফোর্ডে মেডিকেল সেন্টার এ বিবাহ অনুষ্ঠিত হয়। হিদারকে বিয়ের দিন অসাধারণ সুন্দর লাগছিল। তার বিয়ের পোশাকটি খুব সুন্দর ছিল। যখন সে বিয়ের জন্য হ্যাঁ বলে দেয় তখন তার পরিবারের সদস্যরা ও বন্ধুরা কান্নায় ভেঙ্গে পড়ে।

4

4

 

তার স্বামী, ডেভিড এবিসি নিউজকে বলেছিলেন যে এই ঘটনাটি তার জন্য অবিশ্বাস্য ছিল। তার জীবনের ভালবাসার প্রতি তাঁর শপথের বদলে তিনি তাকে বিদায় বলেছিলেন। তার হৃদয় ভেঙ্গে গিয়েছিল। বিয়ের ঠিক ১৮ ঘন্টা পর হিদারের চিরবিদায় ঘটে।

5

5

 

শেষ মুহূর্তে হিদার প্রিয়জনদের ভালবাসার সাথে ছিল। তিনি শেষ মুহূর্ত পর্যন্ত তার জীবনকে উপভোগ করেছেন এবং তার জীবনের ভালোবাসাকে বিয়ে করেছিলেন। প্রথম যেদিন তারা আসলে বিবাহ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছিল সেদিন হিদারের অন্ত্যেষ্টিক্রিয়া অনুষ্ঠিত হয়। 

6

6

 

ভালোবাসায় পরিপূর্ণ এই কাহিনীগুলো আমাদের দেখায় জীবনের প্রতিটি মুহূর্ত কতটা মুল্যবান। ভালোবাসা কতটা মহান। এই ভালোবাসা জীবনের সবচেয়ে বড় সম্পদ। এরকম ভালোবাসায় তো সকলের কাম্য।

আমাদের আয়োজন ভালো লাগলে আমাদের সাথেই থাকুন। ধন্যবাদ।

 



জনপ্রিয়