বিশ্বের সবচেয়ে দামী আটটি খাবার - কি এমন আছে যে এগুলো এতো দামী?     বিশ্বের সবচেয়ে দামী আটটি খাবার - কি এমন আছে যে এগুলো এতো দামী?

বিশ্বের সবচেয়ে দামী আটটি খাবার - কি এমন আছে যে এগুলো এতো দামী?

জাফরানের নাম আমরা প্রায় সকলেই শুনেছি। যদি শুনে থাকেন, তবে হয়তো এটাও শুনেছেন বিশ্বের সবচেয়ে দামী মশলার একটি এই জাফরানের প্রতি আউন্সের দাম স্বর্ণের দামের চেয়েও বেশি! এজন্য জাফরানকে 'লাল স্বর্ণ' বলা হয়। এখন প্রশ্ন হলো - কেন এগুলোর দাম এতো বেশি? চলুন জেনে নেওয়া যাক-

৮. ফোয়া গ্রা

ফোয়া গ্রা

ফোয়া গ্রা

মূলত হাঁস বা রাজহাঁসের লিভার বা যকৃৎ দিয়ে তৈরি ফোয়া গ্রা একটি দামী খাবার। হাঁস বা রাজহাঁসকে জোর করে অধিক পরিমাণ খাইয়ে স্বাভাবিক আকারের চেয়ে দশগুন পর্যন্ত বড় করা হয় বলে এই লিভারের স্বাদ বেশি।

৭. কোপি লুয়াক কফি

কোপি লুয়াক কফি

কোপি লুয়াক কফি

দামী খাবারের তালিকায় কফি? একটু বিস্মিতই হলেন মনে হয়। এই জাতীয় কফির মূল্য প্রতি কেজি ৭০০ ডলার। যে কফি বীজ থেকে এই কফি তৈরি হয়, সেই কফি বীজগুলো এশিয়ান পাম সিভেট নামের বিড়ালকে খাওয়ানো হয়। যেগুলো ওই বিড়ালগুলোর পাকস্থলীর এসিডে জারিত হয়। পরে, বিড়ালের মলের সাথে বেরিয়ে আসা ওই বীজ সংগ্রহ করে তৈরি হয় বিশ্বের সবচেয়ে দামী কফি।

৬. ওয়েগু বিফ

ওয়েগু বিফ

ওয়েগু বিফ

ওয়েগু বিফ হলো জাপানি গরুর মাংস। এই গরুর মাংসে চর্বির আধিক্য থাকে। তবে, রান্না করার পর ওই চর্বি গলে মাংসে মিশে যাওয়ার ফলে মাংস বেশ নরম হয়ে যায়। এসব গরু পালতে খরচ বেশি বলে এর দাম এত বেশি। প্রতি কেজির দাম ৬৪০ ডলার।

৫. ইবেরিকো হ্যাম

ইবেরিকো হ্যাম

ইবেরিকো হ্যাম

ইবেরিকো হ্যাম কেবল মাত্র স্পেন আর পর্তুগালের একটি নির্দিষ্ট এলাকা থেকে আসা এই বিশেষ ধরণের শুকরের মাংস। প্রায় তিন থেকে চার বছর এই শুকরের মাংস প্রক্রিয়াজাত করা হয়। ইবেরিয়ান শুকরের একটি পা সর্বোচ্চ ৪ হাজার ৮০ ডলার দামে বিক্রি হয়েছিল বলে উল্লেখ রয়েছে গিনেজ বুকে।

৪. সাদা ট্রাফল

সাদা ট্রাফল

সাদা ট্রাফল

মাটির নীচে জন্মানো সাদা ট্রাফল বিশ্বের সবচেয়ে দুর্লভ ছত্রাকগুলোর একটি। এই ছত্রাক চাষ করা যায় না, প্রাকৃতিকভাবেই জন্মায়। অনেক পরীক্ষা-নিরীক্ষার পরও এই ট্রাফলের চাষ করা সম্ভব হয়নি। দারুণ সুগন্ধ এবং খুবই তীব্র এক স্বাদ এই ছত্রাক তাই এতো বেশি দামী। একটি মাত্র সাদা ট্রাফলের জন্য ২০০৭ সালে ৩ লাখ ৩০ হাজার ডলার খরচ করেছিলেন ম্যাকাও এর এক ক্যাসিনো মালিক স্ট্যানলি হো।

৩. ঝিনুক

ঝিনুক

ঝিনুক

বর্তমান সময়ে বিলাসী খাবার হিসেবে বিবেচিত ঝিনুক উনিশ শতকের শুরুতেও বেশ সস্তা ছিল এবং এটি উপকূলীয় এলাকার শ্রমজীবী মানুষদের প্রধান খাবার ছিল। অতিরিক্ত ঝিনুক আহরণ এবং সমূদ্র দূষণের ফলে ঝিনুকের সংখ্যা কমে যাওয়ায় এর দাম বৃদ্ধি পেয়েছে।

২. ক্যাভিয়ার

ক্যাভিয়ার

ক্যাভিয়ার

বিশ্বের সবচেয়ে সুস্বাদু খাবারের একটি বলে গণ্য ক্যাভিয়ার আসলে এক ধরণের সামুদ্রিক মাছের ডিম। কাস্পিয়ান সাগর এবং কৃষ্ণ সাগরে পাওয়া বেলুজা স্টার্জেন মাছ থেকে সবচেয়ে বিখ্যাত ক্যাভিয়ার পাওয়া যায়। এক কিলোগ্রাম অ্যালবিনো ক্যাভিয়ারের সর্বোচ্চ দাম উঠেছিল ৩৪ হাজার ৫শ ডলার গিনেজ বুক অব ওয়ার্ল্ড রেকর্ডসে ঠাঁই করে নিয়েছে।

১. জাফরান

জাফরান

জাফরান

খাদ্য রঙিন করতে ব্যবহার করা হয় জাফরান। এটি আসলে একটি ফুলের গর্ভমুন্ড। প্রতি আউন্স জাফরানের দাম স্বর্ণের দামের তুলনায় বেশি। এজন্যে জাফরানের ওপর নাম 'লাল স্বর্ণ।'

আপনার মূল্যবান মতামত কমেন্টে জানাতে ভুলবেন না। সাথে থাকার জন্য ধন্যবাদ...



জনপ্রিয়