সুবিধাবঞ্চিত পথশিশু..          সুবিধাবঞ্চিত পথশিশু..

আত্নশুদ্ধির এই মহিমান্বিত মাসে আমরা কতটা আত্নশুদ্ধি করতে পেরেছি!

প্রতিবছরই রহমত, মাগফিরাত ও নাজাতের বার্তা নিয়ে অন্যান্য বছরের মতো এবারো এলো মাহে রমজান। সিয়াম সাধনার এই মাস আমাদের আত্নসংযম, ত্যাগ ও সহমর্মিতার বাণী শোনায়। ভেতরের কলুষিত হৃদয়কে অন্তত কিছুটা হলেও পবিত্র করে দেয় এই রামাদানুল কারীম বা সিয়াম সাধনার মাস। বিশেষ করে বিত্তবান কিংবা উচ্চ মধ্যবিত্ত শ্রেণীর মানুষগুলো এই মাসে অন্য মাসগুলোর তুলনায় অনেক বেশি অর্থ খরচ করে থাকেন, তাই না? সংযম ও আত্নশুদ্ধির এই মহিমান্বিত মাসে আমরা সত্যিকার অর্থে কতটা আত্নশুদ্ধি করতে পেরেছি? কতটাই বা সৃষ্টিকর্তার নৈকট্য লাভ করেছি?   

©Fiveprime

©Fiveprime

আমাদের দেশে পথশিশুদের সংখ্যার সঠিক পরিসংখ্যান না থাকলেও তাদের সংখ্যা কমপক্ষে ২.৫ লাখ থেকে ৪.৫ লাখ হতে পারে। তারা আমাদের দেশের বড় শহরগুলোতে ঘুরে বেড়ায়।কারো ফেলে দেয়া খাদ্যতেই তাদের ক্ষুধা মেটে। পাশাপাশি আবর্জনা থেকে বিক্রিযোগ্য পরিত্যক্ত জিনিস কুড়িয়ে তারা দিন যাপন করে। 

©Future Hope

©Future Hope

বাস স্টেশান, রেল স্টেশান, লঞ্চ ঘাট, পার্ক কিংবা কোন খোলা জায়গায়ই রাত কাটে তাদের।তাদের জীবনে মৌলিক চাহিদা বলতে আসলে কিছুই নেই!না তারা খাদ্য পাচ্ছে, না পাচ্ছে বাসস্থান, না পাচ্ছে কোন চিকিৎসা, নেই কোন ভালো জামা কাপড়, না আছে ভালো কোন শিক্ষা, না পাচ্ছে কোন সামাজিক নিরাপত্তা! যদি আমরা রাষ্ট্রের সকল সুবিধা ভোগ করার অধিকার রাখি, তাহলে তারা কেনো বঞ্চিত হবে?

ptv.com.pk

ptv.com.pk

অন্যদেশের রোহিঙ্গা নাগরিকদের আমরা ঘর বাড়ি পর্যন্ত করে দিয়েছি, তাদের সার্বক্ষণিক খোঁজ খবর নেয়া হচ্ছে, চিকিৎসা, খাদ্য সবই সরবরাহ করা হচ্ছে। অথচ আমাদের এই দেশেরই অসহায় পথ শিশুদের দিকে কারো কোন সুনজরই নেই! 

© The Financial Express

© The Financial Express

সবাই কম বেশি অনলাইনে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোতে পথ শিশুদের অধিকার নিশ্চিত করতে অনেক বড় বড় কথা বলে থাকে কিন্তু খোঁজ নিয়ে দেখলে দেখা যায়, তাদের খুব কম মানুষই পথশিশুদের জন্য কিছু করার চেষ্টা করেছে! বর্তমানে আমাদের দেশে প্রায় ১৩ লাখ শিশু বিভিন্ন ঝুকিপূর্ণ কাজের সাথে জড়িত। 

©Steemit

©Steemit

এ দেশে শিশু শ্রম বন্ধ নিয়ে অনেক লেখালেখি, আলোচনা, টক শো হয় কিন্তু যে সকল শিশু বিভিন্ন ঝুকিপূর্ণ কাজ করে জীবিকা নির্বাহ করছে তাদের কাজ বন্ধ হয়ে গেলে যে তারা না খেয়ে মরবে সে বিষয়ে কোন আলোচনা হয় না।এই অসহায় শিশুদের স্কুলে পাঠানোর কথা জোর দিয়ে বলা হয়, কিন্তু খালী পেটে কি সত্যিই কোন পড়াশোনা হয়?  

© The Daily Star

© The Daily Star

এই সিয়াম সাধনার মাসে তো আমরা প্রতিদিনই হরের রকমের ইফতার সামগ্রী ্ভোগ করছি, শহরের বিভিন্ন হোটেল, রেস্তোরা থেকে শুরু করে বিভিন্ন বড় বড় প্রতিষ্ঠানে বাহারি রকমের ইফতার সামগ্রী তৈরি করা হয়। এ সকল আয়োজনে থাকে ছোলা, বেগুনি, পেঁয়াজু, জিলাপী, খেজুর সহ মাংসের তৈরি নানান ধরণের মুখরোচক আইটেম।

Internet

Internet

দুঃখজনক হলেও এটা সত্য যে, সহমর্মিতার এই মহান মাসে আমাদের চোখে খুব সহজেই ধরা পড়ে এক বড় ধরণের বৈষম্য। একই শহরের দুটি চিত্র- এক দল মানুষ ইফতারে বলতে গেলে পুরো দোকান নিয়ে বসে আর অন্যদিকে একদল মানুষের খুব সামান্য ইফতারে দিন কাটে। কখনো কখনো এই সামান্যটুকুও তাদের কপালে জোটে না! 

© Robi Axiata Limited

© Robi Axiata Limited

রমজানের সহমর্মিতাই আমাদের সংযমের শিক্ষা। আমাদের একার পক্ষে এই অসহায় পথ শিশুদের জন্য সকল ব্যবস্থা করা হয়তো সম্ভব নাও হতে পারে। এক্ষেত্রে সমাজের বিত্তবান মানুষগুলো পাশাপাশি বড় বড় প্রতিষ্ঠানগুলো এগিয়ে আসলে কিছুটা হলেও এই অসহায় পথ শিশুদের একটু ভালো ইফতারের ব্যবস্থা করে দেয়া সম্ভব। সকল প্রতিষ্ঠানেরই কর্পোরেট সোশাল রেসপনসিবিলিটি বা প্রাতিষ্ঠানিক সামাজিক দায়বদ্ধতা রয়েছে কিন্তু খুব কম প্রতিষ্ঠানই সে দায়বদ্ধতা পূরণ করছে। 

© Robi Axiata Limited

© Robi Axiata Limited

দেশের অন্যতম ডিজিটাল টেলিকম ব্র্যান্ড রবি ও বিদ্যানন্দ একসাথে মিলে প্রথমবারের মতো ছিন্নমূল ও সুবিধাবঞ্চিত পথশিশুদের জন্য নিয়ে এলো ডিজিটাল ইফতার ভেন্ডিং মেশিন "আমার ইফতার"।

© Robi Axiata Limited

© Robi Axiata Limited

একদমই বিনামূল্যে প্রদত্ত এই সুবিধা পথশিশুরা শুধুমাত্র আঙুলের ছাপের মাধ্যমে রেজিস্ট্রেশান বা নিবন্ধন করে এই ভেন্ডিং মেশিন থেকে ইফতার সংগ্রহ করতে পারবে। ঢাকা, চট্টগ্রাম, রংপুর ও রাজশাহীর বিভিন্ন এলাকায় সুবিধাবঞ্চিত পথশিশুদের ইফতারের জন্য এই ভেন্ডিং মেশিন স্থাপন করা হয়েছে। 

© Robi Axiata Limited

© Robi Axiata Limited

আপনার, আমার ও আমাদের সকলের সামান্য সহযোগিতা এই মহান উদ্যোগকে আরো শক্তিশালী ও সমৃদ্ধ করতে পারে। যেখানে অন্য কোন প্রতিষ্ঠান থেকে এই অসহায় পথশিশুদের জন্য তেমন কিছুই করা হয়নি সেখানে রবি ও বিদ্যানন্দের যৌথ এই মানবিক উদ্যোগ সত্যি অনেক বড় প্রশংসা পাওয়ার দাবি রাখে। ধন্যবাদ রবি ও বিদ্যানন্দকে তাদের এই মহান কাজটির জন্য। 

 © Robi Axiata Limited

© Robi Axiata Limited

এই রমজানে, প্রতিবার ৪৩ টাকা এবং ১১৮ টাকার মিনিট বান্ডেল কিনলে বিদ্যানন্দ ফাউন্ডেশনকে রবি দান করবে ২ টাকা এবং ৪ টাকা। দানকৃত অর্থ অসহায় পথশিশু এবং বৃদ্ধদের ইফতারে ব্যয় করা হবে। রবির প্রিপেইড গ্রাহকেরা যথাক্রমে ৪৩ টাকা এবং ১১৮ টাকা রিচার্জে, রবি ‘আমার ইফতার’-এর জন্য যথাক্রমে ২ টাকা এবং ৪ টাকা প্রদান করবে। আর রবি গ্রাহকরা পাবে ৭ ও ১০ দিন মেয়াদি ৭৫ ও ২১৫ মিনিটের আকর্ষনীয় দুটি মিনিট প্যাকেজ।

পরিশেষে বলতে চাই, " ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র বালুকণা, বিন্দু বিন্দু জল গড়ে তোলে মহাদেশ সাগর অতল।" আপনার আমার সামান্য অবদানই অনেক বড় অবদানে পরিণত হতে পারে, হাসি ফোটাতে পারে কোন সুবিধাবঞ্চিত ও অসহায় পথশিশুর মুখে.... 



জনপ্রিয়