যেসব পর্যটন আকর্ষণ সমূহ আপনার সাহসিকতার পরীক্ষা নিবে!         যেসব পর্যটন আকর্ষণ সমূহ আপনার সাহসিকতার পরীক্ষা নিবে!

যেসব পর্যটন আকর্ষণ সমূহ আপনার সাহসিকতার পরীক্ষা নিবে!

আমাদের অনেকেই বিভিন্ন স্থানে ঘুরে, প্রকৃতির কাছাকাছি থাকতে পছন্দ করি। পৃথিবীর আনাচে-কানাচে এমন অনেক পর্যটন আকর্ষণ রয়েছে যেগুলো আপনার সাহসিকতার পরীক্ষা নিবে। এমনই কিছু স্থান নিয়ে আমাদের আজকের আয়োজন। চলুন দেখে আসা যাক-

ঝাংজিয়াজী গ্লাস সেতু, চীন

© cindygovin

© cindygovin

চীনের ঝাংজিয়াজী ন্যাশনাল পার্ক গ্র্যান্ড ক্যানিয়নের উপর এই সেতুটি তৈরি। সেতুটি লম্বায় ১,১৮০ ফুট ও চওড়ায় ২০ ফুট। এই সেতুটির নকশা ও পরিকল্পনা করেছেন ইসরায়েলের বিখ্যাত আর্কিটেক্ট হায়িম দোতান। আপনি যদি খুব সাহসী না হন তবে এই সেতুর উপর হাঁটা আপনার পক্ষে সম্ভব নয়।

ব্রোমো টেনগার সেমেরু ন্যাশনাল পার্ক, জাভা, ইন্দোনেশিয়া

© captainmartin8

© captainmartin8

ব্রোমো টেনগার সেমেরু ন্যাশনাল পার্কটি বিশাল, প্রাচীন আগ্নেয়গিরির জলাধার এবং তার থেকে উত্থিত সুরক্ষিত আগ্নেয়গিরির একটি অসাধারন দৃশ্যের জন্য বিখ্যাত ।

এই পার্কটির নাম দুটি পাহাড়, মাউন্ট সেমেরু, মাউন্ট ব্রোমো এবং অঞ্চলটিতে বাসকারী টঙ্গার লোকের নামে।সেভেরু জাভাতে সর্বোচ্চ পর্বত এবং ইন্দোনেশিয়ার সবচেয়ে সক্রিয় আগ্নেয়গিরির একটি। ব্রোমোর ধোঁয়াঙ্কার শঙ্কুটি আগ্নেয়গিরির বালি সমুদ্রের মধ্যে অবস্থিত, যা খড়ের প্রান্তের উঁচু খিলান দ্বারা ঘেরা।

ভলকানো সেরো নেগ্রো, নিকারাগুয়া

© wild_alaskan1124

© wild_alaskan1124

নিকারাগুয়ায় অবস্থিত এই আগ্নেয়গিরিটি গত ১০০ বছরে মোট ২৩ বার উদগীরণ করেছে। সামনে হয়তো আরো বেশি করতে পারে। প্রায়ই এটাকে কাঁপতে দেখা যায়।

এর পাশের মানুষগুলোর উচিত তখন সেখান থেকে সরে যাওয়া। কিন্তু তারা সেটা তো করেই না, উল্টো পর্যটকদের আকর্ষণে পরিণত হয়েছে এই স্থানটি কেবল এই আগ্নেয়গিরিটির জন্য।

পেড্রা দে গভিয়া, রিও ডি জেনেইরো, ব্রাজিল

© karleeblair

© karleeblair

পেড্রা দে গভিয়া একটি উপকূলে অবস্থিত বিশ্বের বৃহত্তম শিলা। এই বিরাট প্রাচীন দৈত্যটি ২৭৬২ ফুট উঁচু এবং এটির উপরে খোলা দৃশ্যটি বেশ উত্তেজনাপূর্ণ। সময়ের সাথে সাথে, প্রকৃতির নানা উপাদান শিলাটিকে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে, এটির এক দিক মানুষের চেহারার মতো দেখতে।

ডেভিল'স পুল, ভিক্টোরিয়া জলপ্রপাত, জাম্বিয়া

© sirajrajie

© sirajrajie

দ্য ডেভিল'স পুল একটি প্রাকৃতিক পুল যা হাজার হাজার বছরের ক্ষয়ক্ষতির পর জলপ্রপাত পাথর দ্বারা গঠিত হয়েছিল। আপনি যদি যথেষ্ট সাহসী হন তবে এখানে ভ্রমণে যেতে পারেন।

সিএন টাওয়ার, টরন্টো, কানাডা

© adamlarner

© adamlarner

সিএন টাওয়ার ৫৫৩.৩৩ মিটার উঁচু কংক্রিট যোগাযোগ এবং শহরের কেন্দ্রস্থল টরন্টো, অন্টারিও তে অবস্থিত কানাডা পর্যবেক্ষণ টাওয়ার। সাবেক রেলওয়ে ভূমির উপর নির্মিত এই টাওয়ার ১৯৭৬ সালে সম্পূর্ণ হয়, বিশ্বের সবচেয়ে লম্বা বিনামূল্যে স্থায়ী কাঠামো এবং সেই সময়ে বিশ্বের সবচেয়ে উঁচু টাওয়ার হিসেবে পরিচিত ছিল।

২০১০ সালে বুর্জ খলিফা এবং ক্যান্টন টাওয়ার সম্পন্ন না হওয়া পর্যন্ত টানা ৩৪ বছর ধরে সবচেয়ে উঁচু টাওয়ার ছিল। ১৯৯৬ সালে সিএন টাওয়ার সিভিল ইঞ্জিনিয়ার্স আমেরিকান সোসাইটি দ্বারা বিশ্ব আধুনিক সপ্তাশ্চর্যের মধ্যে একটি ঘোষণা করে।

ট্রিফট সাসপেনশন সেতু, সুইজারল্যান্ড

© __janines__

© __janines__

এই সেতুটি বিপজ্জনক সেতুর তালিকায় রয়েছে। এই সাসপেনশন সেতুটি সুইস আল্প্সের গাদম্যান শহরের কাছে ট্রিফ্ট গ্লাসিয়ারে অবস্থিত। এটি সমুদ্রপৃষ্ট থেকে প্রায় ৩২৮ ফুট উচুঁতে এবং প্রায় ৫৫৮ ফুট দূরত্বে অবস্থিত।

এটি আল্পসের দীর্ঘতম এবং সর্বোচ্চ পথচারী সাসপেনশন সেতুগুলোর মধ্যে একটি। এই সেতুটির নির্মাণ ২০০৪ সালে সম্পন্ন হয়। যেন প্রচন্ড বাতাসের বেগেও সেতুটি ভেঙে না পড়ে সেজন্য ২০০৯ সালে এই সেতুতে তারের সংযোগ দেয়া হয়।

সাঁতারের গুহা, সান লুইস পটোসি, মেক্সিকো

© jisuspisus

© jisuspisus

গুহাটির কল্পনা প্রবেশদ্বার খোলার সাথে ১৬৭৯ ফুট গভীর, যা ১৯৬ ফুট প্রশস্ত, এটি বিশ্বের বৃহত্তমতম গুহাগুলোর মধ্যে একটি। গুহা দেয়াল হাজার হাজার পাখির জন্য একটি আশ্রয়স্থল যারা সকালে তাদের বাসা ছেড়ে চলে যায় এবং সন্ধ্যায় নিকটবর্তী বন থেকে ফিরে আসে। আপনি যদি যথেষ্ট সাহসী হন তবে এখানে যাওয়ার সাহস করবেন।

© dany_pelayo

© dany_pelayo

ভিলারিকা ভলকানো, চিলি

© marillimasultan

© marillimasultan

চিলির ব্যস্ততম পর্যটন রিসোর্ট পুকোনের খুব কাছাকাছি এবং রাজধানী স্যান্টিয়াগোর মাত্র ৭৫০ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত এই ভিলারিকা আগ্নেয়গিরি। এই সক্রিয় আগ্নেয়গিরিতে চাইলে আপনি ঝাঁপ দিতে পারবেন! এটি করার জন্য, আপনাকে আক্ষরিক অর্থে ৩৫০ ফুট দীর্ঘ দড়ি দিয়ে সংযুক্ত একটি হেলিকপ্টার থেকে নিজেকে নিক্ষেপ করতে হবে। যার জন্য আপনাকে খরচ করতে হবে ১৬০০০ ডলার।

Moaning Caverns, ক্যালিফোর্নিয়া, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র

© i.amtheweirdo

© i.amtheweirdo

আপনি যদি গুহাগুলো সম্পর্কে আরো ঘনিষ্ঠভাবে অধ্যয়ন করতে চান তবে Moaning Caverns এর আশেপাশে একটি সফর করা আপনার খুবই প্রয়োজন। এখানে, আপনি একটি দড়ির সাহায্যে গুহার ভিতরে গভীর নিচে বা বড় পাথরের গঠন দেখতে একটি সর্পিল সিঁড়ি বেয়ে নিচে যেতে পারেন।

© forestgirl71

© forestgirl71

মাউন্ট হুয়ানান, হুয়াইন সিটি, চীন

© skipwithgrace

© skipwithgrace

হুয়াইন শহর এবং চীনের সবচেয়ে পবিত্র পর্বতমালাগুলির মধ্যে অবস্থিত মাউন্ট হুয়ানান বিশ্বের সবচেয়ে বিপজ্জনক স্থানগুলির মধ্যে একটি হিসাবে বিবেচিত হয়েছে। 

কারণ এখান থেকে বহু পর্যটক পড়ে গিয়ে মারা গেছেন। অনেকটা ইচ্ছা মৃত্যুর মতো হয়েছে ব্যাপারটা, জেনে শুনে এমন জায়গায় উঠার চিন্তা ভাবনা করাই তো বিপদজ্জনক।

এই পর্যটন আকর্ষণ সমূহের মধ্যে আপনি কোনটিতে ভ্রমণে যেতে চান? কমেন্টে জানাতে ভুলবেন না। সাথে থাকার জন্য ধন্যবাদ... 



জনপ্রিয়