ডিম না মুরগী! ডিম না মুরগী!

অতি বিতর্কিত প্রশ্ন ডিম আগে না মুরগী আগে?

প্রজন্ম থেকে প্রজন্মে "ডিম আগে না মুরগী আগে?" প্রশ্নটি ছিল সবচাইতে বিতর্কিত যার সঠিক উত্তর কেউ দিতে পারে নি! বন্ধুরা, এই আয়োজনটি "ডিম আগে না মুরগী আগে" বিতর্কিত উক্তিটির যথার্থ উত্তর পেতে সাহায্য করবে! লেখাটির শিরোনাম হয়তো অনেকের কাছেই নিরর্থক মনে হয়েছে।কিন্তু কখনো কি আপনি বিষয়টি নিয়ে গভীরভাবে ভেবে দেখেছেন , যে ডিমের সৃষ্টি আগে না মুরগির সৃষ্টি আগে?এটি যদি আপনি বৈজ্ঞানিক দৃষ্টিকোণ থেকে না দেখেন তাহলে হয়তো আপনি কখনো এই প্রশ্নটির সঠিক কোন উত্তরে পৌছতে পারবেন না।

কারন এই প্রশ্নটিকে আপনি যে ভাবেই দেখেন না কেন এ রকম অনেক প্রশ্ন নিয়ে আমাদের পূর্বপুরুষ ও প্রাচীনকালের মানুষেরা অনেক ভেবেছেন।কেউ কেউ হয়তো  এগুলকে ধর্মীয় দৃষ্টিভঙ্গি থেকে দেখেছেন আবার কেউ হয়তো এগুলকে দার্শনিক দৃষ্টিভঙ্গি থেকে দেখেছেন।আপনি যদি সঠিক ভাবে বৈজ্ঞানিক বিশ্লেষণ না করেন তবে আপনি আজকের এই প্রশ্নটিতে এক এক সময় এক এক সিদ্ধান্তে এসে পৌঁছবেন।কারন ডিম ছাড়া যেমন মুরগি সৃষ্টি সম্বব না, তেমনি মুরগি ছাড়া এই ডিমটি  এল ই বা কোথা থেকে তাই না? 

অ্যারিস্টোটল এবং প্লুটো দুজনেই দাবি করেছিলেন যে মুরগী এবং ডিম উভয়ই শুরু থেকেই ছিল! কারণ তাঁরা দুজনেই বিশ্বাস করতেন পৃথিবীর সবকিছুই প্রথমে প্রাণের অস্তিত্বে ছিল! কিন্তু বিজ্ঞান তো প্রমাণ ছাড়া বিশ্বাস করে না! 

স্টিফেন হকিং দাবি করেন ডিম আগে এবং মুরগী পরে এসেছে!  অন্যদিকে বাইবেল অনুযায়ী ডিম আগে মুরগী পরে এসেছে বলে জানা যায়! কিন্তু বুদ্ধ ও হিন্দু ধর্ম অনুযায়ী কেউ আগে বা পরে আসেনি, অনন্তকালে কোন কিছুই কারো আগে বা পরে নয়! সুতরাং না ডিম না মুরগী কোনটিই আগে আসে নি! 

আবার আরেকটি যুক্তি রয়েছে যেখানে বলা হয়েছে, মুরগী আসলে অন্য কোন প্রাণীর ডিএনএ এর পরিবর্তনের ফলে সৃষ্টি হয়েছে! ডিএনএ কোষগুলো প্রথমে ডিমের ভেতর অবস্থান নেয়, সুতরাং ডিম ই আগে এসেছে! 

২০১০ সালে ব্রিটিশ বিজ্ঞানীরা সুপার কম্পিউটার ব্যবহার করে দাবি করেছেন যে তাঁরা "ডিম আগে না মুরগী আগে" শিরোনামের বিতর্কিত প্রশ্নটির সমাধান করেছেন! তাঁরা ডিমের খোসা পর্যবেক্ষণ করে জানতে পেরেছেন যে, মুরগীর পেটে ডিমের খোসা তৈরি হওয়ার জন্য ovocleidin-17 নামে একটি প্রোটিন দরকার হয় এবং ২৪ ঘণ্টায়ই একটি ডিম পাড়ার জন্য ২৪ ঘন্টাই যথেষ্ট। সুতরাং ডিম মুরগী ছাড়া উৎপাদন সম্ভব নয়! এজন্য মুরগী আগে এবং ডিম পরে এসেছে! 

আপনার মূল্যবান মতামত জানাতে ভুলবেন না যেন! সাথে থাকার জন্য অসংখ্য ধন্যবাদ.. 

Source: 

From the book, "Ask a Science Teacher: 250 Answers to Questions You’ve Always Had About How Everyday Stuff Really Works"; Copyright © Larry Scheckel, 2013. Available December 17 wherever books are sold.

 

 



জনপ্রিয়