কোষ্ঠকাঠিন্য একটি ভয়ানক শারীরিক সমস্যা...  কোষ্ঠকাঠিন্য একটি ভয়ানক শারীরিক সমস্যা...

এই লক্ষণগুলো প্রমাণ করে আপনার শরীর ঠিকভাবে মাংস হজম করতে পারছে না!

অধিকাংশ মানুষের কাছেই মাংসের লোভ সামলানো এক কথায় অসম্ভব একটা ব্যাপার! অসাধারণ মন মাতানো স্বাদের কারণে সকল ধরনের মানুষের কাছেই অত্যন্ত প্রিয় একটি খাবার। বন্ধুরা মাংস তে প্রচুর পরিমাণে পুষ্টি উপাদান রয়েছে এ কথা সত্য, তবে এতে বেশ কিছু প্রাকৃতিক রাসায়নিক বিষাক্ত উপাদান, চর্বি ও অন্যান্য এমন কিছু উপাদান রয়েছে যা মাংস হজমকে অনেকটাই কঠিন করে দেয়। প্রচুর পরিমাণে মাংস ভক্ষণ এর ফলে ডায়াবেটিস, হার্টের রোগ এবং ক্যান্সার হতে পারে। আজ আমরা আপনাদের সেই সকল লক্ষণগুলোর কথা বলব যা দেখতে পেলে আপনি বুঝতে পারবেন আপনার শরীরের ঠিকভাবে মাংস হজম করতে পারছে না!

৯. কোষ্ঠকাঠিন্য 

Tinmoi.News

Tinmoi.News

আমাদের প্রত্যেকেরই স্বতন্ত্র পাচন বা হজম পদ্ধতি রয়েছে, এই পদ্ধতি গুলো পুরোপুরি বংশানুক্রমিক এবং খাদ্যাভ্যাসের উপর নির্ভরশীল। মাংসের টুকরার আকার অনুযায়ী কিছু কিছু মানুষের অনেক বেশি পরিমাণ চর্বি থাকতে পারে। শরীরের চর্বি হজম করতে যথেষ্ট সময় লাগে আর এই জন্যই মাংস ভক্ষণ এর পরের দিন বদ হজম হতে পারে! কোষ্ঠকাঠিন্যের পেছনে একটি অন্যতম কারণ হচ্ছে খাদ্যে থাকা উচ্চ আয়রন যা সাধারণত লাল মাংসে বেশি পরিমাণে থাকে। 

সমাধান ঃ 

GlobalMeatNews

GlobalMeatNews

বেশ কিছু গবেষণায় এটা উন্মোচিত হয়েছে যে, অত্যাধিক পরিমাণে লাল মাংস গ্রহণ নাড়িভুঁড়িতে ক্যান্সার তৈরি করতে পারে! আপনি প্রতি সপ্তাহে ১০০-২০০ গ্রামের বেশি লাল মাংস গ্রহণ করবেন না‌ এবং অবশ্যই মাংস গ্রহণের সাথে প্রচুর পরিমাণে শাক-সবজি ও শস্য জাতীয় খাদ্য গ্রহণ করুন। গরু, ছাগল কিংবা ভেড়ার যকৃত এবং কিডনি খাবেন না। সামুদ্রিক খাবার অথবা মুরগি খাওয়ার অভ্যাস করুন এবং ভালো করে সেদ্ধ করে মাংস ভক্ষণ করুন।

৮. ক্রমাগত ক্ষুধা অনুভব করছেন!

© Depositphotos

© Depositphotos

আপনি খাদ্য গ্রহণের পরেও প্রচণ্ড ক্ষুধার্ত হয়ে পড়ছেন! এটা থেকে বোঝা যেতে পারে যে আপনি অত্যাধিক প্রোটিন সমৃদ্ধ খাবার গ্রহণ করেছেন। যখন আপনার শরীরে পর্যাপ্ত পরিমাণে শর্করা জাতীয় খাদ্য থাকে না, আপনার রক্তে সুগার বা শর্করার পরিমাণ কমে যায়, এবং আপনার শরীরে সেরোটোনিন উৎপন্ন হয় না এর জন্যই আপনার খাদ্য গ্রহণের পরেও প্রচন্ড ক্ষুধা লাগে।

সমাধান:

The Skinny Confidential

The Skinny Confidential

এক্ষেত্রে অবশ্যই আপনার কিছুদিনের জন্য মাংস খাওয়া বন্ধ করা দরকার। এর পরিবর্তে আপনি বেরি ফল এর সাথে দই অথবা অন্য শর্করা জাতীয় খাদ্য গ্রহণ করতে পারেন।

৭. চোখের নিচে কালো দাগ!

Womond.com

Womond.com

চোখের নিচে কালো দাগ হলে সেটা কি সব সময় ঘুম কিংবা ক্লান্তির কারণে হয়েছে বলে মনে করবেন না! আপনার শরীর ঠিক ভাবে মাংস হজম না করতে পারলেও এ ধরনের ঘটনা ঘটতে পারে। যদি অধিক পরিমাণে কালো দাগ দেখতে পান তাহলে বুঝতে হবে আপনার পাকস্থলিতে মাংস ঠিকভাবে হজম হয়নি। এক্ষেত্রে অবশ্যই আপনার কোন বিশেষজ্ঞের পরামর্শ গ্রহণ করতে হবে।

৬. উচ্চ রক্তচাপ 

MyHeart.net

MyHeart.net

যদি আপনার উচ্চ রক্তচাপ দেখা দেয়, এটা হতে পারে আপনার মাংস জাতীয় খাদ্য থেকে নিজেকে দূরে সরিয়ে নেয়ার উপযুক্ত সময়! রান্না করা কিংবা প্রক্রিয়াজাত মাংসে উচ্চমাত্রার সোডিয়াম থাকে। অন্যদিকে মুরগির চামড়া এবং লাল মাংসে প্রচুর পরিমানের চর্বি থাকে। এসব কিছুই উচ্চ রক্তচাপ তৈরি করতে পারে এবং ধীরে ধীরে আপনাকে করোনারি হার্ট ডিজিজে আক্রান্ত করতে পারে।

সমাধান:

UKNow - University of Kentucky

UKNow - University of Kentucky

আপনার মাংস গ্রহণের পরিমাণ ধীরে ধীরে কমানোর চেষ্টা করুন, শাকসবজিতে অভ্যস্ত হোন।

৫. নিঃশ্বাসে এবং শরীরে‌ দুর্গন্ধ

empowher.com

empowher.com

নিঃশ্বাস এবং শরীরের দুর্গন্ধ একটি অন্যতম লক্ষণ যা আপনাকে এই বার্তা দেয় যে, আপনার শরীর মাংস ঠিকভাবে হজম করতে পারছে না। যদি মাংস পাকস্থলীতে ঠিকভাবে হজম না হয়, এক ধরনের দুর্গন্ধ আপনার পাচন প্রক্রিয়া থেকে বেরিয়ে এসে সেটা আপনার ত্বক এবং নিঃশ্বাসের সাহায্যে বের হওয়ার চেষ্টা করে। যদি আপনি এই ধরনের অপ্রীতিকর সমস্যায় পড়েন, তাহলে চেষ্টা করুন ডাইজেস্টিভ এনজাইম গ্রহণ করতে যা আপনার ভক্ষণ করা মাংস ক্ষুদ্র করে হজম করতে সাহায্য করবে এবং কোনো দুর্গন্ধ হতে দেবে না।

৪. দুর্বল রোগ প্রতিরোধ ব্যবস্থা!

Everyday Health

Everyday Health

যখন আপনার শরীর ঠিক ভাবে মাংস হজম করতে পারে না, আপনি প্রায়ই স্বাভাবিকের তুলনায় অনেক বেশি অসুস্থ হয়ে পড়েন। এই সমস্যার পেছনে দায়ী মূলত লাল মাংসে অবস্থিত একধরনের প্রাকৃতিক শর্করা ( Neu5Gc) যা শরীরের পক্ষে হজম করা অনেকটাই দুঃসাধ্য।

সমাধান:

Kiss My Keto

Kiss My Keto

নাট বা বাদাম জাতীয় খাবার কিংবা সবুজ শাকসবজি এবং ফলমূল গ্রহণ করুন। এগুলোতে প্রচুর পরিমাণ এর প্রয়োজনীয় এন্টি অক্সিডেন্ট, ফাইবার এবং প্রোটিন রয়েছে যার ফলে আপনার শরীরের সকল প্রয়োজনীয় সামষ্টিক এবং ব্যষ্টিক পুষ্টি উপাদানগুলোর প্রয়োজন মিটে যায়।

৩.অবসাদ

Johns Hopkins Medicine

Johns Hopkins Medicine

জিজ্ঞেস করল মাংস ভক্ষণ এর পর যদি আপনার প্রচন্ড ক্লান্তি এবং অবসন্ন লাগে, এই বিষয়টা একজন স্বাভাবিক আচরণ হিসেবে নিবেন না! এটা আসলে আপনার শরীর যথাযথ ভাবে মাংস হজম করতে পারছে না সেই বার্তাই দিচ্ছে এবং আপনার নাড়িভুঁড়িতে সেগুলো আটকে আছে। যখন মাংস আপনার নাড়িভুঁড়িতে আটকে যায় তখন পাকস্থলীর সকল পাচন শক্তি স্থানান্তর হয়। যদি আপনি মাংস ভক্ষণ এর বেশ কিছুদিন পরে অনুভব করেন আপনার পেটে কোন পাথর নিয়ে ঘুরছেন, তাহলে অবশ্যই আপনার সবুজ এবং তাজা ফলমূল, কাঁচা শাকসবজি গ্রহণ করা উচিত।

২. বমিভাব

thesgem.com

thesgem.com

মাংস ভক্ষণ এর পরে বমি ভাব বা বমি হওয়া একটি অতি সাধারণ লক্ষণ যা হতে পারে মাংসে উপস্থিত কোন ব্যাকটেরিয়া প্রতিক্রিয়ার কারণে। অনেক গর্ভবতী নারী মাংস গ্রহণের সময় বমি ভাব অনুভব করেন যা আসলে হতে পারে আপনার শরীর মাংস গ্রহণ করতে চাইছে না। সমাধান: যদি সালাত গ্রহণের ৪-২৬ ঘন্টা পরেও আপনার পেট কামড়ানি কিংবা বমি ভাব হয় সে ক্ষেত্রে আপনার চিকিৎসকের শরণাপন্ন হওয়া উচিত।

১. পেট ফাঁপা

© Depositphotos

© Depositphotos

মাংস জাতীয় খাদ্য গুলো মানব দেহের পক্ষে হজম করা সবচাইতে কঠিন কারণ মানুষের যে প্রোটিন থাকে, বিশেষ করে লাল মাংসে, সেটা পাকস্থলীর পক্ষে ভেঙে ক্ষুদ্র করা যথেষ্ট কঠিন, এর ফলে পেট ফাঁপা হতে পারে। সমাধান: এক্ষেত্রে এ ধরনের সমস্যা থাকলে, গরু, ছাগল কিংবা ভেড়ার মাংসের পরিবর্তে মাছ অথবা মুরগি খাওয়া উচিত। এ ধরনের খাদ্য গুলো পাকস্থলীর পক্ষে হজম করার সহজ। সব সময় কাঁচা অথবা সিদ্ধ করা সবজি অথবা সালাত সহখাদ্য হিসেবে খাদ্যতালিকায় রাখুন।

আপনি কি মাংস ছাড়া একদমই ভাত খেতে পারেন না? আপনার জন্য কি মাংস গ্রহণ বন্ধ করা একদমই কঠিন? আপনার মূল্যবান মতামত এবং উত্তর আমাদের কমেন্ট বক্সে জানানোর অনুরোধ রইলো। সাথে থাকার জন্য অসংখ্য ধন্যবাদ...



জনপ্রিয়