সেলুনে বইয়ের সমাহারঃ অসাধারণ উদ্দ্যোগে বই পড়ছে স্থানীয়রা!  সেলুনে বইয়ের সমাহারঃ অসাধারণ উদ্দ্যোগে বই পড়ছে স্থানীয়রা!

সেলুনে বইয়ের সমাহারঃ অসাধারণ উদ্দ্যোগে বই পড়ছে স্থানীয়রা!

খুলনার বটিয়াঘাটা উপজেলার বাটিয়াঘাটা বাজারে এমন এক সেলুন আছে যেখানে তাকে তাকে সাজানো গল্পের বই। অবাক হওয়ার কিছু নেই, আধুনিক কফিশপগুলোর মতো স্টাইল হিসেবে বই ব্যবহার করা হয় না এখানে। খুবই সাধারণ একটি সেলুন। এই সেলুনের মালিক মিলন শীল। তার পরিকল্পনাতেই আসলে বানানো হয়েছে এই ভিন্নধর্মী সেলুন যেখানে রয়েছে বইয়ের সমাহার।

মিলন শীলের এই সেলুন এতটাই জৌলুসহীন যে মফস্বলের আর দশটা সেলুনের চেয়ে আলাদা করা যায় না। টিনের ঘরের এই সেলুনে মাত্র দুটি চেয়ার, একটি আয়না আর চুল কাটার যন্ত্রপাতি। আর এই টিনের ঘরের এক প্রান্তে রয়েছে আলমারি যা এই জৌলুসহীন ঘরকেই করে রেখেছে আলোকিত। আলমারিতে রয়েছে প্রায় ৩০০ বই।

রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর, শরৎচন্দ্র চট্টোপাধ্যায় থেকে বিভিন্ন লেখকের বই জায়গা পেয়েছে সেখানে। আলমারিতে থাকা কিছু বই মিলন নিজে কিনেছে আর কিছু বই বন্ধুবান্ধবের কাছ থেকে সংগ্রহ করেছেন। সেলুনে চুল কাটাতে আসা বা অন্য কোনো কাজে আসা কেউ কেউ বসে এসব বই পড়ে। আবার যদি কেউ চায় বাড়ীতে নিতে তবে খাতায় নাম, ঠিকানা লিখে বই বাড়িতেও নিয়ে যাওয়া যায়। মিলন শীলের বাড়ি খুলনার বটিয়াঘাটা উপজেলার হেতালবুনিয়া গ্রামে। তাঁর সেলুনটি বটিয়াঘাটা বাজারে। ১৯ বছর আগে সেলুনটি দিয়েছিলেন তাঁর বাবা। ১৩ বছর আগে বাবার হাত ধরে ওই সেলুনের দায়িত্ব নেন মিলন।

একসময় চতুর্থ শ্রেণী পর্যন্ত পড়লেও সেলুন চালানো আর বই পড়ার ফাঁকে উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় থেকে এসএসসি পাসও করেছেন মিলন। বর্তমানে পুরোদস্তুর সেলুনের কাজে মনোযোগী তিনি। আর সময় পেলেই বই পড়েন। উপজেলায় কোনো পাবলিক লাইব্রেরি নেই। এ কারণে বই পড়তে আগ্রহী ব্যক্তিরা এসে বসেন মিলনের সেলুনে। পুরোনো লেখকের বই পড়তে বেশি পছন্দ করেন মিলন। এ কারণে তাঁর সংগ্রহে বেশির ভাগই আগের দিনের খ্যাতিমান লেখকদের বই।

রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের সঞ্চয়িতা, কাজী নজরুল ইসলামের সঞ্চিতা, শরৎচন্দ্রের মেজদিদি, শ্রীকান্ত, ফাল্গুনী মুখোপাধ্যায়ের শাপমোচন, শীর্ষেন্দু মুখোপাধ্যায়ের বেশি দূরে নয়, মধুসূদন রচনাসমগ্রসহ অনেক বই আছে তাঁর দোকানে। সেলুনের ভেতরে এমন ছোট লাইব্রেরি গড়ে তোলায় ২০১৬ সালে ঘুমভাঙ্গানিয়া নামের একটি স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন মিলন শীলকে শুভেচ্ছা স্মারক উপহার দেয়। মিলন শীল আমাদের সমাজের জন্য অনুসরণীয় দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন। নিজের সাধ্যের মধ্যে তিনি একটি মহৎ কাজ করছেন। তাঁর মহত্ত্বকে ছড়িয়ে দেওয়া আমাদের কর্তব্য।

আপনার মূল্যবান মতামত কমেন্টে জানাতে ভুলবেন না। সাথে থাকার জন্য ধন্যবাদ...



জনপ্রিয়