মাংস লাল রঙ করতে ক্ষতিকর কার্বন মনোক্সাইড ব্যবহার কিংবা বোতলজাত পানির নামে কলের পানি বিক্রি ব্যবসায়ীদের অনৈতিক কাজ...    মাংস লাল রঙ করতে ক্ষতিকর কার্বন মনোক্সাইড ব্যবহার কিংবা বোতলজাত পানির নামে কলের পানি বিক্রি ব্যবসায়ীদের অনৈতিক কাজ...

ব্যবসায়ীরা যেভাবে আমাদের প্রতিদিন ই বলির পাঠা বানায়!

ব্যবসায়ের একটাই লক্ষ্য সেটা হলো মুনাফা অর্জন। এবং তারা এজন্য যে কোন কাজ করতে পারেন অর্থাৎ ক্রেতাদের ঠকাতে তারা সব করতে পারেন সেটা এবার নৈতিক বা অনৈতিক হোক। বড় বড় ব্যবসায়ের অনেক গোপনীয়তা রয়েছে যা তারা আমাদের কখনোই জানান না।আর যদি আমরা জেনে যাই তাহলে তাদের আইনগত সমস্যা হতে পারে। চলুন আমরা আজ জানব যে ব্যবসায়ীদের আসলে কোন ধরণের বিষয়গুলো সবসময় গোপন করে।

৮. লাল মাংসের রহস্য  

listverse.com

listverse.com

আপনি কি মাংসের রঙ লাল দেখে সেটা তাজা কিনা বিচার করেন? আমাদের বেশীরভাগ মানুষ ই গরুর মাংস কেনার সময় সেটা লাল দেখে কেনার চেষ্টা করেন। এর কারণ হচ্ছে আমরা লাল রঙ দেখে মাংসকে তাজা মনে করি। কিন্তু আপনি কি জানেন যে বেশিরভাগ ব্যবসায়ী কিংবা সুপার শপগুলোতে লাল মাংসের রহস্য কি? আমি বলছি, আসলে মাংসে ক্ষতিকর কার্বণ মনোক্সাইড মিশিয়ে এর মাংস লাল করা হয়। এই কার্বণ মনোওক্সাইড গাড়ির কালো ধোয়ার মতই বিষাক্ত।

অবাক করার বিষয় হচ্ছে মাংস পচে গেলেও এই লাল রঙ অক্ষত থাকে। মাংস প্রাকৃতিকভাবে কাটার কিছুদিনের মধ্যে ধূসর কিংবা বাদামী হয়। এটা প্রতিরোধ করতে ব্যবসায়ীরা প্যাকেটজাত করার সময় কার্বন মনোঅক্সাইড মেশায় যার ফলে ১ বছর ও মাংসের রঙ লাল এবং তাজা থাকে। সুতরাং মাংস কেনার সময় অন্তত সুপার শপ থেকে না কিনে কাছাকাছি কোন কসাইয়ের কাছ থেকে কিনুন।  

৭. ক্যাবল টেলিভিশন চ্যানেলগুলো প্রোগ্রাম দ্রুত করে দেখানোর রহস্য

Slate Magazine

Slate Magazine

ক্যবল টেলিভিশন চ্যানেলগুলো গোপনে শো, নাটক বা অনুষ্ঠানগুলোর সময় নির্ধারিত সময়ের চেয়ে দ্রুত করে দেয় যাতে বেশি বেশি বিজ্ঞাপন দেখাতে পারে। তারা এ কাজ করে দুটো কারণে। প্রথমত, তারা বিজ্ঞাপন কম দেখালে তাদের মুনাফা কমে যাবে যেহেতু টিভি চ্যানেল বেশি হওয়ায় বিজ্ঞাপনের মুল্য এখন কমে গেছে। দ্বিতীয়ত, তাদের বিজ্ঞাপনদাতাদের সাথে দর্শকসংখ্যা সংক্রান্ত চুক্তি অনুযায়ী বেশি দর্শকদের কাছে বিজ্ঞাপন পৌঁছানো।

অনুষ্ঠান চলাকালীন গতি হঠাত বেড়ে যাওয়া হয়ত সাধারণ দর্শকদের কাছে মামুলি ব্যাপার মনে হতে পারে। একটা ৩০ মিনিটের ফিল্ম গতি বাড়িয়ে ২ মিনিট এখান থেকে বের করে নিতে পারে! কিন্তু এই সামান্য সময়ের জন্য দর্শকদের কোন কিছু যায় আসে না। তবে আপনি জানেন এই ২ মিনিটে ক্যবল টিভি চ্যানেলগুলো ৩/৪ লাখ টাকা কামিয়ে ফেলেছে। 

৬. মূল উৎপাদনকারীর প্রিন্টারের কালির মতই থার্ড পার্টির উৎপাদিত কালি ভালো বা গুনগতমানসম্পন্ন 

Photo credit: extremetech.com

Photo credit: extremetech.com

প্রিন্টার উৎপাদকরা আমাদেরকে তাদের তৈরি কালি ছাড়া অন্য কালি ব্যবহার করতে নিষেধ করেন। তারা বলে থাকেন থার্ড পার্টি তৈরি করা কালি খুবই বাজে মানসম্পন্ন যার কারনে প্রিন্টারের ক্ষতি হতে পারে। এটা পুরোপুরি মিথ্যা। প্রিন্টার উৎপাদনকারীরা তাদের তৈরি কালি ব্যবহারের জন্যই মূলত এই মিথ্যাচার করে থাকে। বাজারের সবচেয়ে বড় প্রিন্টার তৈরিকারক প্রতিষ্ঠান এইচপি এবং ইপসন তাদের প্রিন্টারের ব্যবসার চেয়েও বেশি কালির ব্যবসার সাথে জড়িত। তারা অনেক ক্ষেত্রেই প্রিন্টার ক্ষতিতে বিক্রি করেন কারণ তারা তাদের কালি বিক্রির মাধ্যমে সেই ক্ষতি পুষিয়ে নেয়।

অথচ থার্ড পার্টি কালি উৎপাদনকারীরা প্রিন্টার বিক্রি করে না এজন্য তারা এইচপি কিংবা ইপসন এর মত বড় কোম্পানিগুলোর চেয়ে ৯০% কম দামে একই মানের কালি সরবরাহ করতে পারে। প্রিন্টার তৈরিকারী প্রতিষ্ঠানগুলো ভালো করেই জানেন যে মানুষ বাজারের সস্তা দামে পাওয়া একই মানের কালি ব্যবহার করবে। এজন্যই তারা মানুষকে উদ্বুদ্ধ করেন যে অন্য কোম্পানির কালি ব্যবহার করলে প্রিন্টার নষ্ট হয়ে যাবে। প্রিন্টার তৈরিকারী প্রতিষ্ঠানগুলো এজন্য প্রিন্টার এর মধ্যে আলাদা কার্ট্রিজ ব্যবহার করেন যাতে আপনি তাদের তৈরি কালি ব্যবহারে বাধ্য হন।

৫. পরিকল্পিত যান্ত্রিক ত্রুটির সাহায্যে নতুন মডেল ব্যবহারে বাধ্য করা 

listverse.com

listverse.com

নতুন মডেল ব্যবহারে বাধ্য করতে ইলেকট্রনিক্স কোম্পানি গুলো তাদের তৈরি পণ্যের মধ্যে অন্তর্নিহিত ত্রুটি আগে থেকে দিয়ে রাখেন।"পরিকল্পিত কার্যকারিতা হ্রাস" হচ্ছে এমন একটি বিষয় যা সম্পর্কে আপনি আগে কখনো শোনেননি। এটা হচ্ছে উৎপাদকদের পরিকল্পিত ইলেকট্রনিক্স সামগ্রীতে একটা ইচ্ছাকৃত ক্ষতি। এর সাহায্যে উৎপাদকরা আপনাকে তাদের নতুন পণ্য ব্যবহারে বাধ্য করে।গতবছর অ্যাপল তাদের প্রচলিত আইফোন গুলোর ধীরগতিসম্পন্ন করে দিয়ে ক্রেতাদের নতুন আইফোন কিনতে বাধ্য করার জন্য অভিযুক্ত হয়।

বাজারে শুধুমাত্র অ্যাপল কোম্পানি এই অপরাধের সাথে যুক্ত নয় বরং বেশিরভাগ ইলেকট্রনিক্স পণ্য তৈরি করে প্রতিষ্ঠানগুলো এই অপরাধের সাথে যুক্ত। মূলত সফটওয়্যার আপডেট এ একটা এমন কোড গোপন ভাবে কোম্পানিগুলোর দিয়ে দেয় যার ফলে আপনার ব্যবহৃত মোবাইল ফোনটির ধীরে ধীরে কার্যকারিতা হ্রাস পেতে থাকে। এর ফলশ্রুতিতে আপনি নতুন একটি আপডেটেড ফোন কেনার জন্য বাধ্য হন।

৪. পোষা প্রাণীদের জন্য পশু চিকিৎসকের নির্দেশনা অনুযায়ী খাবার গুলো একটা জোচ্চুরি

Photo credit: sacbee.com

Photo credit: sacbee.com

যদিও বাংলাদেশ এখনো অতটা ব্যাপকভাবে পোষা প্রাণী লালন পালন জনপ্রিয় হয়নি, ইউরোপ আমেরিকাতে পোষা প্রাণী পালন একটা জনপ্রিয় সখ হিসেবে বিবেচিত। যাই হোক পশু চিকিৎসকগণ প্রায়শই এসকল দেশে তাদের নির্দেশনা অনুযায়ী পশু খাবার গ্রহণ করাতে মানুষদের বাধ্য করেন। মজার বিষয় হচ্ছে তারা যে খাবারগুলো পশুদের জন্য নির্দেশনা দেন সেগুলোর কোনটিতে ওষুধের সামান্য উপস্থিতি ও পাওয়া যায়নি। তার মানে কি দাঁড়ায়?

আপনার আদরের পোষা প্রাণীটি অসুস্থ হলে আপনি পশু ডাক্তারের কাছে যান এবং তার নির্দেশনা অনুযায়ী আপনি পশুকে খাবার গ্রহণ করান। এটা শুধুমাত্র একটা লোক ঠকানো ব্যবসা ছাড়া আর কিছুই না। বলতো পশুখাদ্য তৈরিকারী প্রতিষ্ঠান এবং পশু চিকিৎসকদের মধ্যে এ ধরনের চুক্তি হয়ে থাকে যে তাদের পশুখাদ্য প্রেসক্রিপশনে লিখলে তারা মোটা অংকের অর্থ সরবরাহ করবেন।

৩. দাম বৈষম্য

Photo credit: techradar.com

Photo credit: techradar.com

আমেরিকার তৈরি সফটওয়্যার ও হার্ডওয়ার গুলো অস্ট্রেলিয়াতে এত বেশি দামে বিক্রি হয় যে একটা নির্দিষ্ট সফটওয়্যার কেনার টাকার চেয়ে ও অনেক সস্তায় অস্ট্রেলিয়া থেকে লস অ্যাঞ্জেলসে বিমানে করে ঘুরতে যাওয়া যায়। ২০১৩ সালে অ্যাডোব এবং মাইক্রোসফট সফটওয়্যার প্রোডাক্টগুলো আমেরিকার দামের চেয়ে ৪২% এবং ৬৬% বেশি দামে বিক্রি করা হয়। এবং হার্ডওয়্যারের দামের ক্ষেত্রেও আমেরিকার চেয়ে অস্ট্রেলিয়ায় ৪৬% বেশি। যখন বিষয়গুলো অস্ট্রেলিয়ার সরকারের নজরে আসে তারা তদন্ত করলে এই দাম নির্ধারিত মাত্রায় ধার্য করা হয়।

২. বোতলজাত পানি গুলো আসলে সাধারণ কলের পানি

Photo credit: clark.com

Photo credit: clark.com

যুক্তরাষ্ট্রের বোতলজাত পানি গুলোর অর্ধেকেরও বেশি সাধারণ কলের পানি। এটা শুধুমাত্র ফিল্টার করা হয়। ফিল্টারের সময় পানি থেকে ফ্লুরাইড আলাদা করে ফেলা হয় যার ফলে যারা এই পানি পান করবে তাদের দাঁতে মারাত্মক ক্ষতি হতে পারে। অর্থাৎ দাঁতের এনামেল ক্ষয় হতে পারে এবং দাতে গর্ত তৈরি হতে পারে। এজন্য সেখানকার অনেক লোকই মনে করেন বোতলজাত পানির চেয়ে সাধারণ কলের পানি অনেক ভালো। বোতলজাত পানি তৈরিকারক প্রতিষ্ঠানগুলো মন ভুলানো বিজ্ঞাপনে আমাদের বোকা বানায়। সবচেয়ে ভালো হয় নিজেই প্রাকৃতিক উপায়ে ঘরে পানি বিশুদ্ধ করে তা পান করা।

১. ঔষধ প্রস্তুতকারক কোম্পানি গুলো চিকিৎসকদের নিজেদের তৈরি ওষুধ ব্যবস্থাপত্রে লিখতে অর্থ প্রদান করে

listverse.com

listverse.com

ঔষধ প্রস্তুতকারক কোম্পানি গুলো চিকিৎসকদের নিজেদের তৈরি ওষুধ ব্যবস্থাপত্রে লিখতে অর্থ প্রদান করে। একই ঔষধ বিভিন্ন কোম্পানি প্রস্তুত করে। তবে আপনি একই রোগ নিয়ে ভিন্ন ভিন্ন চিকিৎসকের কাছে গেলেই বুঝতে পারবেন যে আসলে ব্যবস্থাপত্রে কতটা পার্থক্য? ভিন্ন ভিন্ন চিকিৎসক একই রোগের জন্য ভিন্ন ভিন্ন প্রতিষ্ঠান তৈরি ওষুধ ব্যবস্থাপত্রে লেখেন এর কারণ হচ্ছে সে আগে থেকেই সেই কোম্পানির টাকা খেয়েছেন।গবেষণায় দেখা যায় কোম্পানিগুলো তাদের গবেষণা ও উন্নয়নমূলক কর্মকাণ্ডে ব্যবহৃত অর্থের চেয়েও দ্বিগুন অর্থ চিকিৎসকদের সরবরাহ করে তাদের ওষুধ ব্যবস্থাপত্রে লেখার জন্য।

আপনার কি মনে হয় যে আপনি অ ব্যবসায়ীদের এ ধরণের কর্মকান্ডে ক্ষতিগ্রস্থ? যদি এমন কিছু আপনার চারপাশে হয়ে থাকে আমাদের কমেন্টে জানাতে ভুলবেন না। সাথে থাকার জন্য ধন্যবাদ। 



জনপ্রিয়