কিভাবে আপনার ফেসবুক আইডি হ্যাকিং থেকে বাঁচাবেন?                কিভাবে আপনার ফেসবুক আইডি হ্যাকিং থেকে বাঁচাবেন?

কিভাবে আপনার ফেসবুক আইডি হ্যাকিং থেকে বাঁচাবেন?

সামজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোর মধ্যে ফেসবুক সবচাইতে জনপ্রিয় এটা অস্বীকার করার সুযোগ নেই। ২০১৮ সালে এমন লোক পাওয়া যাবে বলে মনে হয় না যারা ফেসবুক ব্যবহার করে না। আমরা আমাদের একটা গুরুত্বপূর্ণ সময় এই ফেসবুকে ব্যবহার করি। অফিসে, বাইরে কিংবা বাসায় কখনো বা পিসিতে কখনো বা স্মার্টফোনে কিংবা ল্যাপটপে আমারা ফেসবুক ব্যবহার করি।

কিন্তু আপনি কি জানেন যে যখন আপনি ফেসবুক ব্যবহার করেন তখন কোন হ্যাকার আপনার গতিবিধি নজরদারি করতে পারে? এবং আপনার অজান্তেই সে আপনার গুরুত্বপূর্ণ কোন তথ্য ফেসবুক থেকে নিয়ে নিতে পারে? সর্বোপরি আপনার ফেসবুক আইডি হ্যাক করে আপনাকে মারাত্নক ঝামেলায় ফেলে দিতে পারে? তো এটা কি আপনার জন্য মঙ্গলজনক নয় যে আপনি কোন দূর্ঘটনা ঘটার আগেই সতর্ক হয়ে যাওয়া? আসুন জেনে নেয়া যাক কি করে আপনি আপনার ফেসবুক আইডি হ্যাকারের কাছ থেকে নিরাপদে রাখবেন।

১০. পাসওয়ার্ড

Internet

Internet

অবশ্যই খেয়াল রাখুন যাতে আপনার ফেসবুক পাসওয়ার্ড কমপক্ষে ৮ অক্ষরবিশিষ্ট হয়। এর বেশি হলে আরো ভালো। যত বড় পাসওয়ার্ড তত বেশি নিরাপদ। দীর্ঘ পাসওয়ার্ড হ্যাক করতে অনেক সময় লাগে এজন্য পাসওয়ার্ড দীর্ঘায়িত করুন এবং অনুমান করা কঠিন তেমন কিছু পাসওয়ার্ড হিসেবে ব্যবহার করুন। ইউজার নেমে যে নাম ব্যবহার করেছেন তা, পোষা প্রাণীর নাম, আপনার জন্ম তারিখ ইত্যাদি কখনোই পাসওয়ার্ড হিসেবে বয়বহার করবেন না। এবং প্রতি ৬ মাস পর পর পাসওয়ার্ড পরিবর্তন করুন। 

 প্রথমে সেটিংস >> জেনারেল >> পাসওয়ার্ড>>  শক্তিশালী পাসওয়ার্ড বসান।

০৯. মোবাইল নম্বর কনফার্মেশান বা নিশ্চিতকরণ

wikiHow

wikiHow

ফেসবুকে আপনার মোবাইল নম্বর নিশ্চিত করার ফলে আপনার ফেসবুক আইডির নিরাপত্তা আরো বেশি শক্তিশালী হয়।এর সাহায্য আপনি আপনার পাসওয়ার্ড ভুলে গেলে আবার আপানার নম্বরে ফেসবুকের পাঠানো OTP বা ওয়ান টাইম পাসওয়ার্ড এর সাহায্যে আপনার ফেসবুক একাউন্ট ও পাসওয়ার্ড আবার নতুন করে ঠিক করে নিতে পারবেন। 

একাউন্ট সেটিংস >> মোবাইল  >> ফোন নাম্বার যুক্ত করুন

০৮. কোড জেনারেটর এবং লগইন এপ্রুভাল সচল করে দিন

wikiHow

wikiHow

লগইন এপ্রুভাল নামক অপশনটা ফেসবুক ডেভেলপারগণ কতৃক প্রদত্ত একটা নতুন ফিচার।এটা আপনি যতবার ফেসবুক লগইন করবেন ততবার ই সিকিউরিটি পিন চাইবে। এভাবে করতে হবে- সেটিংস >> সিকিউরিটি >> লগইন এপ্রুভাল >> এডিট লিঙ্ক >> লগইন এপ্রুভাল নামে একটা বক্স আছে সেটা সচল বা একটিভেট করুন>> চেঞ্জেস সেভ করুন। 

আপনাকে ফেসবুক উপরের কাজটি করার পর আপনার মোবাইল নাম্বারে OTP বা ওয়ান টাইম পাসওয়ার্ড পাঠাবে এবং একটা কোড তৈরি করে দেবে। যদি আপনার এই সুবিধাটি না থাকে তাহলে একবার নিশ্চিত হয়ে নিন যে আপনার সেটিংস >> সিকিউরিটি >> কোড জেনারেটর নামক অপশনটি চালু করা নেই কিনা?

এবার আপনি আপনার কোড জেনারেটর সচল করুন এভাবে- সেটিংস>> সিকিউরিটি  >> কোড জেনারেটর >> স্টার্টেড নামক অপশনটি ক্লিক করুন। এভাবে সবকিছু সম্পন্ন করার পর আপনি যখন আপনার ফেসবুক অ্যাপে লগ ইন করতে চাইবেন  আপনার ফোনে প্রটিবার নতুন একটা  করে লগ ইন কোড যাবে যা দিয়ে আপনি লগ ইন করতে পারবেন। 

০৭. আগের কার্যক্রম এবং অতীত সেশন গুলো মুছে দিন

wikiHow

wikiHow

ফেসবুক আপনার লগ ইন সংক্রান্ত আগের তথ্য ও সক্রিয় সেশান গুলো দেখায়। যেখানে আপনি বিস্তারিত জানতে পারেন আপনি সবশেষ লগ ইন কোথায় করেছেন এবনহ কোন কোন মোবাইল বা পিসিতে আপনার ফেসবুক আইডিতে ঢোকা হয়েছিল। এটা দেখতে আপনাকে যেতে হবে-  একাউন্ট সেটিংস >> সিকিউরিটি >> হয়ার ইউ লগড ইন >> একটিভ সেশান >> এডিট এবার আপনি দেখবেন আপনার সকল অতীত লগ ইন রেকর্ড বা তথ্য দেখানো আছে। আপনি "এন্ড একটিভিটী" নামক অপশনটিতে ক্লিক করলেই আগের কার্যক্রম এবং অতীত সেশন গুলো মুছে যাবে। 

০৬. নিয়মিত সিকিউরিটি চেকআপ অনুসরণ করুন

TNW

TNW

এজন্য আপনাকে ৩ টি ধাপ অনুসরণ করতে হবে-

Alexandra Samuel

Alexandra Samuel

ক. Who can see my stuff?

কে আপনার পোস্ট বা ছবি ইত্যাদি দেখতে পারবে? শুধুমাত্র ঘনিষ্ঠ ও বিশ্বস্ত কাছের মানুষের সুযোগ দিলে আপনার জন্য ভালো 

খ. Who can contact me?

কে আপনার সাথে যোগাযোগ করতে পারবে? উত্তরে "everyone" দেয়ার অর্থ আপনাকে যে কেউ যোগাযোগ করতে পারবে বোঝায়। অতএব এমন ভয়ানক অনুমতি না দেয়াই উত্তম।

গ.Who can look me up?

কে আপনাকে খুঁজে পেতে পারবে?

এক্ষেত্রে আপনি নিচের উত্তরগুলো দিলে ভালো হয় 

Who can look you up using the email address you provided? >> Friends
Who can look you up using the phone number you provided? >> Friends
Do you want search engines outside of Facebook to link to your Profile? >> No

০৫. নিরাপদ ব্রাঊজিং নিশ্চিত করুন 

World Privacy Forum

World Privacy Forum

ফেসবুকের সাথে জড়িত সকল অ্যাপ, ডিভাইস এবং ব্রাউজার যা আপনি ফেসবুকে থাকা অবস্থায় সার্ফ করেন ভালো করে খেয়াল রাখুন। অনেক সাইট আছে যেকানে আপনি লগ ইন অবস্থায় গেলে আপ্নাএ আইডি হ্যাক হতে পারে। শুধু এটা নিশিত করুন আপনি যে ব্রাউজার ই ব্যবহার করছেন না কেন আপনি নিরাপদ কোন পেজে আছেন। ফেসবুকে সিকিউর অপশন নামে একটা জিনিস আছে যার সাহায্যে আপনি আপনার লগ ইন থাকা অবস্থায় নিরাপদে ব্রাউজ করতে পারবেন। 

সেটিংস >> সিকিউরিটি >> রিকগনাইজড ডিভাইস  >>চেক অল দা ডিভাইসেস>> আপনার আইডেন্টিটি নিশিত করুন এব অবাঞ্ছিত সকল ডিভাইস যেখানে আপনাকে লগড ইন দেখাচ্ছে সেগুলো রিমুভ করুন বা মুছে ফেলুন>> চেঞ্জেস সেভ করুন। 

০৪. স্প্যাম লিঙ্ক

wrapyourselfdebtfree.tumblr.com

wrapyourselfdebtfree.tumblr.com

ভুলেও কোন স্প্যাম লিঙ্ক শেয়ার বা নিজে ব্রাউজ করার চেষ্টা করবেন না। সে সকল লিঙ্কে আপনি ব্রাউজ করলে আপানি প্রতারনার শিকার হতে পারেন এবং আপনার আইডি হ্যাক হতে পারে।যেটা সন্দেহ লাগে সেটায় না ঢোকাই ভালো। 

০৩. আপডেট

iMore

iMore

সবসময় আপনার সেটিংস আপডেটেড রাখার চেষ্টা করুন। এজন্য ভালো হয় আপনি লগ ইন এলার্ট চালু রাখা। এর ফলে যদি কেউ কোঠাও কোন ডিভাইস দিয়ে আপনার আইডিতে লগ ইন করতে চায় সাথে সাথে আপনি ইমেইল বা মোবাইলে নোটিফিকেশান পাবেন। এই সুবিধা পেটে সেটিংস >> সিকিউরিটি >> লগ ইন এলার্ট >> এডিট বা সম্পাদন করুন আপনার সুবিধা অনুযায়ী

০২. ভাইরাস মুক্ত কম্পিউটার বা ল্যাপটপ

Phys.org

Phys.org

আপনার কম্পিউটারে এবং ল্যাপটপে অবশ্যই এন্টি ভাইরাস প্রতিস্থাপন করুন। কারণ ফেসবুকে এমন অনেক অ্যাপে আপনি ক্লিক করার সাথে সাথে আপনার আইডি ভাইরাস আক্রান্ত হয়ে তথ্য চুরি সহ হ্যাক ও হতে পারে। যে সব সাইট বা পেজ আপনার পরিচিত নয় সেগুলোতে না ঢোকাই ভালো। 

০১. সর্বোত্তম ও নিরাপদ ফেসবুক ব্যবহার অনুশীলন করুন

Internet

Internet

আপনার পাসওয়ার্ড কারো সাথেই শেয়ার করবেন না। এবং আপনি কোন ডিভাইসে রিমেম্বার পাসওয়ার্ড নামক অপশনটি ক্লিক করবেন না এতে আপনার লগ ইন তথ্য সক্রিয় থেকে কোন হ্যাকারের কাজ সম্পাদনে অনেক সহায়তা করতে পারে। 

আয়োজনটি কেমন লাগলো আমাদের কমেন্ট বক্সে জানাবেন। আর বেশি বেশি লাইক ও শেয়ার দিয়ে সবাইকে বিষয়টি সম্পর্কে জানান। এতে কেউ প্রতারণা ও বিব্রতকর পরিস্থিতি থেকে বেঁচে যেতে পারেন। 



জনপ্রিয়