নিতম্বের ব্যথা দূর করার কার্যকরি উপায় নিতম্বের ব্যথা দূর করার কার্যকরি উপায়

নিতম্বের ব্যথা দূর করার কার্যকরি উপায়

নিতম্বের স্নায়ু আপনার শরীরের সবচেয়ে দীর্ঘ এবং প্রস্থের একক স্নায়ু যা আপনার নিচের পিঠ থেকে আপনার পা পর্যন্ত যায়। যদি এটি জ্বলে বা মোচড়ায়, তাহলে আপনি সাইটিটিকে ভুগতে পারেন, যা সাধারণত আপনার এক পায়ে নিচ পর্যন্ত গুরুতর ব্যথা অনুভূত হবে।

অন্যান্য উপসর্গের মধ্যে রয়েছে- আপনি সম্ভবত দুর্বল অনুভব করতে পারেন, অসাড় অবস্থা, জ্বালা জ্বালা অনুভব, পা এবং পায়ের পাতায় খোঁচা দেয়ার মতো ব্যথার অনুভূতি অনুভব করতে পারেন। এটি সঠিকভাবে চিকিৎসা না করালে আপনার চলাফেরা এবং ভারসাম্যে খারাপ প্রভাব ফেলতে পারে।

আজকে আমরা সাইটিটিক স্নায়ু ব্যথা দূর করার সবচেয়ে কার্যকরী উপায়গুলোর একটি তালিকা সংগ্রহ করেছি, যা আপনাকে ওষুধ ছাড়াই স্বাভাবিক অবস্থায় নিয়ে আসতে পারবে।

 

১. ক্যাট কাও পোজ

চার হাত পা ব্যবহার করে মাথা নিচু করে বসুন। আপনার কাঁধের নিচে আপনার কোমর এবং আপনার হাঁটু এবং কোমরের দুরত্ব সমান রাখুন।

শ্বাস নিন, আপনার পিঠ বাঁকা করুন এবং উপরের দিকে তাকান। আপনি যখন শ্বাস ফেলবেন তখন আপনার পিঠ উপরের দিকে উঠিয়ে চারদিকে ঘুরান এবং আপনার নাভির দিকে তাকানোর চেষ্টা করুন।

এটি এক মিনিট ধরে করুন। ৫. ৩০ সেকেন্ডের বিরতি নিন এবং পুনরায় করুন।

কার্যকারিতাঃ এই পোজ আপনার ঘাড়, কাঁধ এবং মেরুদন্ডের নমনীয়তা বৃদ্ধি করে। তাছাড়াও এটি আপনার কোমর, পিঠ, পেট, বুক এবং ফুসফুসের পেশী প্রসারিত করবে। এটি মাসিক বন্ধের চাপের পাশাপাশি কোমরের নিচের ব্যথা উপশম করতে সহায়তা করবে। 

 

২. হ্যামস্ট্রিং প্রসারিত করা

একপা বাঁকিয়ে আপনার পিঠের ওপর ভর করে মেঝেতে শুয়ে পড়ুন। একটি প্রসারিত দড়ি বা আপনার হাত ব্যবহার করে, পা সোজা রেখে উপরে তুলে আপনার মাথার দিকে টানুন। আপনি আরামদায়ক অনুভব না করা পর্যন্ত এবং দৃঢ় প্রসারিত না হওয়া পর্যন্ত টানুন।

এভাবে ৩০ সেকেন্ডের জন্য ধরে রাখুন এবং অন্য পায়েও একইভাবে এই কাজটি করুন। এটি দুইবার পুনরাবৃত্তি করুন।

কার্যকারিতাঃ হ্যামস্ট্রিং প্রসারিত আপনার ঊরুর পেশী প্রসারিত করে আপনার পিঠের ব্যথা কমাতে সাহায্য করবে। দীর্ঘস্থায়ী পেশী পিঠের নিম্নভাগের চাপ উপশম করবে এবং ব্যথা কমাতে সহায়তা করবে।

 

৩. বার্ড ডগ ব্যায়াম

আপনার হাত সরাসরি আপনার কাঁধের নিচে এবং আপনার হাঁটু আপনার হিপের নিচ বরাবর রেখে অবস্থান করুন।

আপনার পিঠ এবং পেলভিস স্থির এবং স্থিতিশীলভাবে ধরে রাখুন, আপনার ডান হাত সামনের দিকে এবং বাম পা পিছন দিকে প্রসারিত করুন। এক সেকেন্ডের জন্য ধরে রাখুন এবং পরে প্রাথমিক অবস্থানে ফিরে আসুন। অন্য পাশেও একইভাবে ১০-১৫ বার পুনরাবৃত্তি করুন।

কার্যকারিতাঃ এই ব্যায়াম আপনাকে যথোপযুক্ত অঙ্গবিন্যাস বজায় রাখতে সহায়তা করবে।

 

৪. প্রজাপতি স্টাইলে প্রসারিত করা

আপনার হাঁটু বাঁকা করে সোজা হয়ে বসুন, যাতে আপনার পায়ের তলা একে অপরকে স্পর্শ করে।

আপনার হাঁটু যেখানে বাঁকা হয়েছে সেখানে আপনার করতলটি রাখুন এবং উপর থেকে পায়ের তলা পর্যন্ত মৃদুভাবে চাপ দিন। চাপ দেয়ার সময় আপনার হিপ সামনের দিকে বাঁকা করুন, যাতে আপনার বুক আপনার পায়ের কাছাকাছি হয়। ১০-২০ সেকেন্ডের জন্য ধরে রাখুন।

কার্যকারিতাঃ এই অবস্থান আপনাকে ধীরে ধীরে আপনার হিপ মুক্ত হতে এবং গুঁতানো পেশী প্রসারিত হতে সহায়তা করবে।

 

৫. ভিনাগারে পা ডুবিয়ে রাখা

আপনি ঘুমাতে যাবার প্রায় ১ ঘন্টা আগে, গরম পানির একটি ছোট গামলা নিন, সেখানে ৫০০ মিলি আপেল সিডার ভিনেগার এবং এক কাপ লবণ যোগ করুন এবং সেগুলো ভালোভাবে মিক্স করুন। সেই পানিতে আপনার চা চুবিয়ে ১০-১৫ মিনিটের জন্য রাখুন, পরে একটি তোয়ালে দিয়ে তা শুকিয়ে নিন এবং নিশ্চিত করুন যেন সেগুলো রাতে উষ্ণ থাকে। পরের দিন সকালে খালি পায়ে মেঝেতে দাঁড়াবেন না।

কার্যকারিতাঃ আপনি যদি সপ্তাহে এই পদ্ধতিটি ৩-৪ বার পুনরাবৃত্তি করেন, তবে আপেল সিডার ভিনেগারের এন্টি-প্রদাহের বৈশিষ্ট্যের কারণে আপনার ব্যথা কমে যাবে।

 



জনপ্রিয়