এই সহজ অভ্যাসগুলো প্রতারণা থেকে আপনার ব্যাংক একাউন্টকে রক্ষা করবে এই সহজ অভ্যাসগুলো প্রতারণা থেকে আপনার ব্যাংক একাউন্টকে রক্ষা করবে

এই সহজ অভ্যাসগুলো প্রতারণা থেকে আপনার ব্যাংক একাউন্টকে রক্ষা করবে

আজকাল, অধিকাংশ লোকেরাই কার্ডে পেমেন্ট করাকে বেশি প্রাধান্য দিয়ে থাকেন, যার কারণে কার্ড প্রতারণার ঘটনাও প্রায় কমন বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে। তবে, ভালো খবরটা হচ্ছে কার্ডহোল্ডাররা ইতোমধ্যে অনেক টিপস সম্পর্কে সচেতন যা তাদের অর্থকে সুরক্ষিত করতে পারে।

আজকে আমরা আপনার ক্রেডিট কার্ড এবং একাউন্ট সুরক্ষা করার জন্য কয়েকটি টিপস আপনাদের সামনে উপস্থাপন করছি। 

 

১. যখন এটিএম চালু করবেন

© Depositphotos

© Depositphotos

- এটিএম চালু করার সময়, নিরাপত্তার জন্য ৪ ডিজিটের পাসওয়ার্ড চাপার পরিবর্তে প্রথমে ভুল ৬-৭ ডিজিটের কী চাপ দিবেন। এতে প্রতারকেরা ভিডিওতে আপনার সমস্ত কাজ রেকর্ড করলেও, জালিয়াতির জন্য আপনার পিন কোড সনাক্ত করা তাদের কাছে কঠিন হয়ে যাবে।  

- এটিএমের কাছাকাছি থাকা যেকোন সাহায্যকারী ব্যক্তি থেকে সাবধান হোন। একজন প্রতারক বিশেষ করে এমন পরিস্থিতি তৈরি করতে পারে, যেখানে আপনি এটিএম থেকে আপনার কার্ড বের করতে পারছেন না এবং আপনি তাদের সাহায্য চাইলে তারা আপনাকে পিন কোড দিয়ে ‘সমস্যা সমাধান করতে’ পরামর্শ দিতে পারে। এভাবেই কার্ডহোল্ডাররা আশা হারানোর পর সাহায্যের জন্য ব্যাংকের কাছে যান, তখন প্রতারকেরা কার্ডটি বের করে পিন কোডের সাহায্য টাকা আত্মসাৎ করে ফেলে, কারণ সে ইতোমধ্যে পিন কোডটি জেনে গেছে।

© Pexels   © Depositphotos

© Pexels © Depositphotos

- শুধুমাত্র ব্যাংক অফিসে অবস্থিত এটিএম ব্যবহার করার চেষ্টা করুন। কারণ সেগুলো প্রায় সার্বক্ষণিক নজরদারির মধ্যে থাকে এবং কোন কার্ড থেকে তথ্য চুরি করার জন্য সেটির উপর অতিরিক্ত গ্যাজেট ইনস্টল করা বেশ কঠিন।  

 

২. একটি দোকানে

© Depositphotos   © Depositphotos

© Depositphotos © Depositphotos

- আপনার কার্ডটি আগে থেকেই আপনার ওয়ালেট থেকে বের করবেন না (উদাহরণস্বরূপ, আপনি যখন লাইনে অপেক্ষা করছেন) এবং আপনার হাতে দীর্ঘ সময়ের জন্য সেটি ধরে রাখবেন না। একজন প্রতারক লাইনে দাঁড়ানোর ভান করে অতি সহজেই আপনার কার্ডের উভয় পাশের ছবি তুলতে পারে এবং চৌম্বকীয় স্ট্রিপ থেকে তথ্য কপি করতে পারে।   

- আপনার কার্ডের পিছনে একটি স্টিকার বা অ-স্বচ্ছ আঠালো টেপ দিয়ে সিভিভি আটকে রাখুন, যাতে কেউ এটি দেখতে না পারে।  

© Aliexpress

© Aliexpress

- সিভিভি কোডগুলি কার্ড থেকে সম্পূর্ণরূপে মুছে ফেলা যেতে পারে, এতে কার্ড চুরি হয়ে গেলে বা হারিয়ে গেলেও সেগুলো ব্যবহার করা আরো কঠিন হয়ে যাবে। তবে, মাঝেমধ্যে এটি বিদেশে কার্ড ব্যবহার করার সময় কিছু সমস্যা সৃষ্টি করতে পারে।

কার্ড তথ্য অননুমোদিত রিমোট পড়া প্রতিরোধ করার জন্য ক্রেডিট কার্ডগুলির জন্য বিশেষ সুরক্ষা বাক্স এবং ওয়ালেট ব্যবহার করুন।

 

৩. ইন্টারনেট ব্যাংকিং ব্যবহার এবং অনলাইনে পরিশোধ করার সময়    

© Pexels   © Pexels

© Pexels © Pexels

- এমন কোন কম্পিউটার থেকে ইন্টারনেট ব্যাংকিং করবেন না, যেগুলো অন্যান্য মানুষের বা অরক্ষিত নেটওয়ার্কের হয়ে থাকে। আপনার কাছে যদি কোন উপায় না থাকে, তবে এটি লেনদেনের পরে লগ আউট করতে এবং হিস্ট্রি মুছে দিতে ভুল করবেন না।

- অনলাইনে পেমেন্ট করার সময়, ব্রাউজার লাইনের ঠিকানাটি সাবধানে পড়ুন, ব্যাংক ডোমেনের সাথে সামান্যতম পার্থক্য লক্ষ্য করার অর্থ হল আপনি সম্ভবত একটি ফিশিং (ব্র্যান্ড স্পুফিং) সাইট ব্যবহার করছেন।   

© brightside

© brightside

- অনলাইনে কেনাকাটা করার সময়, চেক করা ট্রেডিং প্ল্যাটফর্মগুলোতে মনোযোগ দিন। কারণ বর্তমান যুগে, আসল রিয়েল স্টোর থেকে পেমেন্ট সিস্টেম হ্যাক করার চেয়ে প্রতারকদের কাছে তাদের নিজস্ব ‘ইন্টারনেট-স্টোর’ তৈরি করা আরো সহজ।

- আপনার কম্পিউটার এন্টি ভাইরাস প্রোগ্রাম ইনস্টল এবং রিফ্রেশ করুন। আধুনিক ব্রাউজার এবং ই-মেইল প্রোগ্রাম অপশন ব্যবহার করুন। এছাড়াও, বিভিন্ন ফন্টের অক্ষর এবং সংখ্যার জটিল সংমিশ্রণ নির্বাচন করে পাসওয়ার্ডগুলি পরিবর্তন করতে ভুলবেন না (অন্তত প্রতি ৩ মাসে একবার)।  

 

৪. কার্ড বা অ্যাকাউন্ট সেটিংস পরিবর্তন করার সময়

© Depositphotos

© Depositphotos

- পেমেন্ট লেনদেনে যুক্তিসঙ্গত পরিমাণ নির্ধারণ করুন, যাতে আপনি PIN কোড প্রবেশ না করিয়ে এক স্পর্শেই ব্যয়বহুল কেনাকাটা করতে না পারেন।  

- সিএনপি (কার্ড উপস্থিত নেই) অপারেশন, যার মানে ইন্টারনেটে লেনদেন করতে হয়, সেগুলি পেমেন্ট করার মুহূর্তে কিছু সময়ের জন্য সক্রিয় রেখে, বন্ধ করে দেওয়াই ভালো।

- এসএমএস এর নোটিফিকেশন অবমূল্যায়ন করবেন না। তারা অনুপ্রবেশ নিশ্চিত করতে, প্রতিটি অপারেশন জন্য পাসওয়ার্ড পাঠাতে এবং টাকা গ্রহণ বা উইতড্রো সম্পর্কে নোটিফিকেশন পাঠিয়ে সাহায্য করতে পারে। এমনকি আপনার কার্ড চুরি হয়ে গেলেও, প্রতারণাকারীরা আপনার ইন্টারনেট ব্যাংকিংয়ের পাসওয়ার্ড ধারণ করে এমন একটি এসএমএসের নোটিফিকেশন ছাড়া আপনার একাউন্টে প্রবেশ করতে পারবে না। এমনকি যদি তারা কোনভাবে এটি পরিচালনা করতেও পারে, তারপরেও প্রথম ক্রয়ের বিষয়ে আপনি তাৎক্ষণিকভাবে জানতে পারবেন এবং অবিলম্বে কার্ডটি ব্লক করে দিতে পারবেন।

 

৫. ব্যাংক এবং মোবাইল অপারেটরদের সাথে যোগাযোগ করার সময়

© Pexels   © Pexels

© Pexels © Pexels

- সম্প্রতি প্রযুক্তিগত সুরক্ষা ব্যবস্থা বাড়ানোর কারণে, প্রতারকেরা ব্যক্তিগত যোগাযোগের উপর নির্ভর করতে শুরু করেছে এবং কার্ডহোল্ডারের কাছ থেকে তথ্যটি খুঁজে বের করার চেষ্টা করছে। এই ঘটনাটি ফিশিংয়ের খুব কাছাকাছি এবং এটির অনুরূপ শব্দ ভিশিং(বা ভয়েস ফিশিং) নাম রয়েছে।

- প্রতারকেরা ক্রেডিট কার্ডের তথ্য এবং ফোনে (ব্যাংক থেকে চেক করা, জরিপ করা, তথ্য সরবরাহ করা) এই কথাগুলো বলে একটি গোপন কোডের তথ্য জানার চেষ্টা করে। একটা কথা মনে রাখবেন, ফোনের মাধ্যমে কোন আর্থিক সমস্যা সমাধান করা যায় না।

- যেহেতু আপনার ফোনটি কিছু আর্থিক লেনদেনের জন্য ব্যবহৃত হয়, তাই আপনার সঠিক পদক্ষেপ নেওয়া উচিত। উদাহরণস্বরূপ- আপনি যে SIM কার্ডটি ব্যবহার করছেন তা আপনার নামে নিবন্ধিত এবং অ্যাটর্নি চিঠির দ্বারা পরিবর্তন করা যাবে না তা নিশ্চিত করুন।

 

বোনাসঃ আপনার মূল্যবান জিনিস লুকানোর জন্য নিরাপদ জায়গা

© KATY B.   © picmia.com

© KATY B. © picmia.com

এমন অনেক জায়গার একটি তালিকা রয়েছে, যেখানে লোকেরা তাদের মূল্যবান জিনিসগুলো প্রায়শই রাখে এবং চোর-ডাকাতেরা সেই জায়গায় প্রথমে হামলা করে বা ভাংচুর করে।

আপনার জিনিসগুলো যে স্থানে রাখবেন নাঃ

বই, ওয়্যারড্রপ, টয়লেট বাটি।

এটার পরিবর্তে আপনি সেগুলো যে জায়গায় রাখবেনঃ

- ভেতর থেকে আঁকা একটি মেয়োনেজের পাত্রে, যেটি দেখে মেয়োনেজপূর্ণ মনে হবে।  

- ফ্রিজের নিচে একটি বিশেষ অংশে রাখুন।

- একটি টেনিস বলের ভিতরে

- একটি সকেটের মধ্যে

- একটি চেয়ারে

- কোন অ-স্বচ্ছ প্লাস্টিকের বাক্সে (গাম, ডিওডোরেন্ট ইত্যাদি)

 

ক্রেডিট কার্ড রক্ষা করার জন্য আপনি কোন পদ্ধতিটি ব্যবহার করেন?

 



জনপ্রিয়