বিড়ালের সঙ্গে ঘুমিয়ে আয়!   বিড়ালের সঙ্গে ঘুমিয়ে আয়!

বিড়ালের সঙ্গে ঘুমিয়ে আয়!

মানুষ যে ঘুমিয়ে ঘুমিয়েও যে আয় করা যায়, তা প্রমাণ করেছেন যুক্তরাষ্ট্রের টেরি লরমেন নামের এক ব্যাক্তি। ৭৫ বছর বয়সী টেরি বিড়ালের সঙ্গে ঘুমিয়ে দুদিনে আয় করেছেন ৩০ হাজার মার্কিন ডলার। তবে তিনি নিজের জন্য নয়, পোষা প্রাণীর একটি আশ্রয়কেন্দ্রের জন্য এই আয় করেছেন।

SAFE HAVEN PET SANCTUARY

SAFE HAVEN PET SANCTUARY

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের উইসকনসিন অঙ্গরাজ্যের গ্রীন বে শহরে পোষা প্রাণীদের জন্য একটি আশ্রয়কেন্দ্র রয়েছে যেখানে বিড়াল, কুকুরের মতো পোষা প্রাণীগুলো শারীরিক বা অন্য কোনো সমস্যায় ভুগছে, তাদের উইসকনসিন সেফ হ্যাভেন পেট স্যাংকচুয়ারি নামের ওই কেন্দ্র পুনর্বাসন করে। এলিজাবেথ ফেল্ডহজেন নামের এক ব্যাক্তি প্রতিষ্ঠানটি গড়ে তুলেছেন। টেরি লরমেন সেখানেই কাজ করেন। তবে এই কাজের বিনিময়ে তিনি কোনো পারিশ্রমিক নেন না।

SAFE HAVEN PET SANCTUARY

SAFE HAVEN PET SANCTUARY

টেরি লরমেনের কাজটা একটু অন্যরকম। বেশির ভাগ দিন তিনি ওই কেন্দ্রে বিড়ালকে সঙ্গে নিয়ে ঘুমিয়ে বা ঝিমিয়ে সময় পার করেন। তাঁর এভাবে ঘুমানোর কয়েকটি ছবি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমগুলোয় ভাইরাল হয়ে পড়ে। এসব ছবি মানুষের হৃদয় এমনভাবে ছুঁয়ে গেছে যে প্রতিষ্ঠানটি সেগুলোর বদৌলতে মাত্র দুদিনে ৩০ হাজার ডলার তহবিল সংগ্রহ করেছে!

SAFE HAVEN PET SANCTUARY

SAFE HAVEN PET SANCTUARY

প্রতিষ্ঠাতা এলিজাবেথ ফেল্ডহজেন জানান যে তাঁদের এই ছোট উদ্যোগ বড় দাগ কেটেছে মানুষের মনে। কেউ এক ডলার, কেউ দুই ডলার, আবার কেউ পাঁচ ডলার করে দিচ্ছেন। লরেন মূলত একজন অবসরপ্রাপ্ত স্কুলশিক্ষক। নিজের হাতে কেন্দ্রটি ঝেড়ে-মুছে বিড়ালদের জন্য বাসযোগ্য করে তোলেন।

SAFE HAVEN PET SANCTUARY

SAFE HAVEN PET SANCTUARY

এলিজাবেথ জানান, প্রিয় বিড়ালকে নিয়ে লরমেনের ঘুমানোর ছবি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে প্রথম যখন পোস্ট করলেন তাঁরা, ব্যাপক সাড়া পাওয়া গেল। এক দিনের মধ্যেই বিড়ালটিকে নিয়ে গেল একটি পরিবার। এ কারণে মজা করেই এলিজাবেথ সংবাদ মাধ্যমকে বলেন, 'ঘুমের শক্তি আবারও প্রমাণিত হলো!'

আপনার মূল্যবান মতামত কমেন্টে জানাতে ভুলবেন না। সাথে থাকার জন্য ধন্যবাদ...



জনপ্রিয়