কর্মক্ষেত্রে আমরা যে ভুলগুলো করে থাকি  কর্মক্ষেত্রে আমরা যে ভুলগুলো করে থাকি

কর্মক্ষেত্রে আমরা যে ভুলগুলো করে থাকি

আপনি যদি মনে করেন যে, আপনার সহকর্মীর সাথে আপনার সম্পর্ক ক্যারিয়ারের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ অংশ নয় তবে আপনি ভুল ভাবছেন। গবেষণায় দেখা গেছে যে, সহকর্মীর সাথে সম্পর্ক বন্ধুত্বপূর্ণ হলে উৎপাদনশীলতা উল্লেখযোগ্যভাবে বৃদ্ধি পায়। কিন্তু, দুর্ভাগ্যবশত, আমরা যখন একটি নতুন কর্মক্ষেত্রে কাজ শুরু করি, তখন হয়তো আমরা অনেকেই ভুল করে থাকি যা আমরা লক্ষ্য করি না।

আমরা আশা করি যে, আপনার ইতোমধ্যে সত্যিকারে বন্ধুত্বপূর্ণ একটি টিম রয়েছে। কিন্তু কর্মক্ষেত্রে আপনি যদি এখনো সহকর্মীদের সাথে বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক গড়ে তুলতে না পারেন তাহলে এই আর্টিকেল আপনার কিছু সমস্যার সমাধান করতে পারে।   

 

১. আপনি নাম মনে করতে পারেন না

© brightside

© brightside

‘একজন ব্যক্তির নাম সেই ব্যক্তির কাছে যে কোন ভাষার চেয়ে মিষ্টি এবং সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ শব্দ’। 

বিখ্যাত লেখক এবং পাবলিক স্পীকার ডেল কার্নেগী পরামর্শ দিয়েছেন যে, আপনার যখন কোন পরিচিত ব্যক্তিদের সাথে দেখা হবে তখন তাদের নাম ধরে জিজ্ঞাসা করুন। কারণ এতে আপনারা দুজনই নাম মনে রাখতে পারবেন এবং একে অপরের প্রতি শ্রদ্ধা প্রদর্শন করতে পারবেন।

 

২. আপনি সুস্বাদু খাবার নিয়ে আসেন না

© brightside

© brightside

কেউ যখন আমাদের বাসায় আসেন তখন আমরা তাদেরকে ভালমন্দ খাওয়ানোর চেষ্টা করি। কিন্তু কর্মক্ষেত্রে আপনার করণীয় কি? আপনি যদি আপনার সহকর্মীদের কাছে ভাল থাকতে চান এবং খ্যাতি অর্জন করতে চান, তবে কর্মক্ষেত্রে কিছু ট্রিট দিন।

এজন্য আপনাকে রান্নাঘরে পুরো দিন কাটাতে হবে না, আপনি বাইরে দোকান থেকে কিছু জলখাবার কিনে তা সবার সাথে শেয়ার করে খান। এটা পরবর্তীতে পুরো টিমের জন্য একটা আচারানুষ্ঠানে পরিণত হয়ে যাবে এবং কর্মক্ষেত্রে আপনি কখনই ক্ষুধার্ত হবেন না।

 

৩. আপনি আপনার সহকর্মীকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে অ্যাড করতে ভয় পান

© brightside

© brightside

আপনি যদি কোম্পানি সম্পর্কে এবং আপনার সহকর্মীদের সাথে বন্ধুত্ব সম্পর্ক গড়ার ব্যাপারে আরো জানতে চান, তাহলে আপনাকে তাদের আগ্রহ এবং সাফল্য সম্পর্কে আরো জানতে হবে। প্রথমত, এটি আপনাকে কিছু বিষয়ে কথা বলতে সহায়তা করবে এবং দ্বিতীয়ত, আপনি বুঝতে পারবেন কি বিষয়ে কথা বলা উচিৎ হবে না। সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হল যে আপনি অন্য লোকেদের কাছ থেকে শোনা কথাগুলো ছড়িয়ে দেবেন না।

 

৪. আপনি আরো বেশি যোগাযোগ রাখার চেষ্টা করেন

© brightside

© brightside

প্রথমেই সবাই যদি আপনাকে পছন্দ করতে শুরু করে, তবে সেটা ভাল। কিন্তু আপনি যদি নাছোড়বান্দা হন, তাহলে আপনার সহকর্মী আপনার কাছ থেকে দূরে থাকার চেষ্টা করতেও পারে। যারা আপনার সাথে কাজ করেন তাদেরকে পর্যবেক্ষণ করুন। আপনাকে প্রত্যেক ব্যক্তির সাথে যোগাযোগের একটি উপায় বের করতে হবে। কারণ তাদের মধ্যে অনেকেই গল্প করতে পছন্দ করে, আবার অনেকেই বেশি কথা বলা পছন্দ করে না।

তাই দ্রুত বন্ধুত্ব তৈরি করার চেষ্টা করবেন না বা নিজের ব্যক্তিগত তথ্যগুলো শেয়ার করবেন না। মনে রাখবেন যে, এই ধরনের কথাবার্তা কর্মক্ষেত্রে বলা উচিৎ নয়।

 

৫. আপনি প্রশংসা করেন না

© brightside

© brightside

আপনি যদি আপনার সহকর্মীদের তোষামোদ ছাড়া তাদের উপকার এবং প্রতিভা লক্ষ্য করেন এবং তাদেরকে অভিনন্দন জানান তাহলে এটি আপনাকে উদার এবং বিনীত ব্যক্তির পরিচয় এনে দেবে। সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হল সৎ থাকা এবং সংযমী হওয়া।

 

৬. আপনি নিরপেক্ষ নন

© brightside

© brightside

আপনি যদি লক্ষ্য করেন যে আপনার কর্মক্ষেত্রে সহকর্মীদের মধ্যে কিছু গ্রুপ রয়েছে, তাহলে কোন পক্ষ নিবেন না। নিরপেক্ষ থাকাটা অনেক গুরুত্বপূর্ণ, কারণ আপনি যদি নিরপেক্ষ থাকেন তাহলে পুরো দলের সাথে আপনার খ্যাতি এবং ভাল সম্পর্ক প্রভাবিত হতে পারে।

তাই সবার প্রতি নম্র এবং সদয় হোন, তাদের সামাজিক অবস্থান যাই হোক না কেন, অন্য মানুষ সম্পর্কে সব ধরনের নেতিবাচক শব্দ ব্যবহার থেকে দূরে থাকুন।

   

৭. আপনি আপনার শারীরিক অঙ্গভঙ্গি খেয়াল করেন না

© brightside

© brightside

যেকোন ধরনের যোগাযোগের জন্য শারীরিক ভাষা বা অঙ্গভঙ্গি সত্যিই গুরুত্বপূর্ণ। আমরা মাঝেমধ্যে অবচেতন মনে আমাদের সহকর্মীদের সাথে এমন সব অঙ্গভঙ্গি প্রদর্শন করে ফেলি, যার কারণে তারা বন্ধুত্বপূর্ণ যোগাযোগ রাখা বন্ধ করে দেন। সবসময় মুখ ভারী করে রাখা ঠিক নয়, এতে সহকর্মীরা আপনা থেকে দূরে থাকার চেষ্টা করবে। আপনি যদি আপনার সহকর্মীদের সাথে ভাল যোগাযোগ রক্ষা করতে চান, তাহলে আপনাকে কিছু বিষয় লক্ষ্য রাখতে হবেঃ

- আপনার সাথে যে কথা বলছে তার দিকে তাকান।

- যখন তারা আপনার সাথে কথা বলছে তখন আপনার শরীর তাদের দিকে ঘুরে বসুন।

- যতটা সম্ভব ভদ্রভাবে হাসার চেষ্টা করুন।

- মানুষের দিকে আপনার আঙ্গুল বা অন্য কোন বস্তু নির্দেশ করবেন না।

- কথা বলার সময় আপনার মুখ ঢাকবেন না।

এই সহজ সুপারিশগুলো অনুসরণ করলে, এটি আপনাকে কথা বলার জন্য একজন চমৎকার ব্যক্তি হিসেবে গড়ে উঠতে সহায়তা করবে।

 

আমরা আশা রাখি, আপনি আমাদের সুপারিশ করা বিষয়গুলো থেকে কিছু কাজের উপযোগী বিষয় খুঁজে পেয়েছেন। বা আপনি হয়তো সহকর্মীদের সাথে ভাল সম্পর্ক গড়ে তোলার কিছু অন্যান্য উপায় সম্পর্কে জানেন। কমেন্টে আমাদের সাথে সেগুলো শেয়ার করে জানাবেন এবং অন্যদেরকে উপকৃত হতে সহায়তা করবেন। সাথে থাকার জন্য ধন্যবাদ।      



জনপ্রিয়