এই সেলেব্রিটিরা নিজেদের দুর্বলতা জয় করে সেরা্দের কাতারে সামিল হয়েছেন এই সেলেব্রিটিরা নিজেদের দুর্বলতা জয় করে সেরা্দের কাতারে সামিল হয়েছেন

এই সেলেব্রিটিরা নিজেদের দুর্বলতা জয় করে সেরা্দের কাতারে সামিল হয়েছেন

সাফল্য এতো সহজে আসে না, অনেক কঠিন পথ পাড়ি দিয়ে সফলতা অর্জন করতে হয়। এর জন্য কঠোর পরিশ্রমের পাশাপাশি অধ্যবসায় ও ইচ্ছাশক্তিও লাগে। তবে কিছু কিছু সেলেব্রিটির জন্য সফলতা অর্জন অন্যদের তুলনায় অনেক বেশি কঠিন ছিল। তারা এমন কিছু কঠিন পরিস্থিতির সম্মুখীন হয়েছিলেন যেখান থেকে উঠে আসা খুব কঠিন ছিল। কিন্তু তারা ভেঙ্গে পড়েননি এবং সবকিছু অতিক্রম করে নিজেদের সেরাদের কাতারে নিয়ে গিয়েছেন।

আজ আমাদের আয়োজনে থাকছে সেইসব সেলেব্রিটিদের কথা যারা নিজেদের দুর্বলতা জয় করে সেরা্দের কাতারে সামিল হয়েছেন।

 

সেলেব্রিটির নাম- ক্যারোলিন কুরকোভা

source: instragram

source: instragram

চেক মডেল, ক্যারোলিন কুরকোভা ভিক্টোরিয়া'স সিক্রেট এর আন্ডারওয়্যার প্রদর্শনীর জন্য বেশ বিখ্যাত। আপনি যদি এই ছবিটি ভালো করে খেয়াল করেন তবে দেখতে পাবেন উনার নাভী নেই। তবে অনেক জায়গায় দেখতে পাবেন কারণ ফটোশপ করা হয়। শৈশবে একটি সার্জারির কারণে এমনটি হয়, সম্ভবত অস্ত্রোপচারের কারণে এমনটি হয়েছে। যদিও এইসব তার সৌন্দর্য নষ্ট করতে পারে নি। 

 

সেলেব্রিটির নাম- মেলানি গেডোস

source: instragram

source: instragram

আপনার সম্পূর্ণ চেহারা পরিবর্তন করে এমন একটি জেনেটিক রোগ থাকার ফলে অনেক লোক সম্পূর্ণ ভেঙ্গে পড়তে পারে, কিন্তু মেলানি গেডোস এটি জয় করেছেন। ২৮ বছর বয়সী মডেলের অক্টোডার্মাল ডিসপ্লেসিয়া রয়েছে এবং এর কারণে তিনি প্রায় অন্ধ এবং মাথায় চুল নেই। এতদসত্ত্বেও মডেলিং জগতে তার বেশ সুনাম রয়েছে, Eugenio Recuenco, Galore magazine, Cosmopolitan ইত্যাদি বিখ্যাত প্রতিষ্ঠানের জন্য তিনি মডেলিং করেছেন। New York Fashion Week এ  Nina Athanasiou -এর জন্যও তিনি স্টেজে হেঁটেছেন।

 

 

সেলেব্রিটির নাম- মেগান ফক্স

© Dream Works

© Dream Works

কে ভাবতে পেরেছিল হলিউডের সবচেয়ে হট একজন অভিনেত্রীর কোন দুর্বলতা আছে? মেগান ফক্সের অঙ্গুষ্ঠ এবং হাতের আকার জানতে পারলে আপনি অবাক হয়ে যাবেন। মেগান ফক্স clubbed thumbs নামে একটি রোগে ভুগছেন। অভিযোগ করা হয় এই দারুণ অভিনেত্রী এটি নিয়ে আগে বেশ নিচু অনুভব করতেন, পরবর্তীতে তিনি নিজের শরীরকে পূর্ণভাবে সম্মান করতে শিখেন।

 

 

সেলেব্রিটির নাম- সিলভেস্টার স্ট্যালন

source: instragram

source: instragram

আপ্নি মিস্টার স্ট্যালনের অভিনয় ক্ষমতা সম্পর্কে তর্ক করতে পারেন, কিন্তু এটা কেউ অস্বীকার করতে পারবেন না তিনি ৯০ দশকের চলচ্চিত্র জগতের আইকন হয়ে উঠেছিলেন। কিন্তু এর আগে, তাকে তার মুখের ক্ষতিগ্রস্ত স্নায়ুর বিরুদ্ধে সংগ্রাম করে তাকে পরাস্ত করতে হয়েছিল- মুখের অর্ধেক অংশ খুব কম নড়াচাড়া করতে পারতেন। 'র‍্যাম্বো' চলচ্চিত্রে এই অর্ধেক নড়াচাড়ায় তাকে খ্যাতি এনে দিয়েছিল।

 

 

সেলেব্রিটির নাম- সিল

source: instragram

source: instragram

মুখের ডানপাশে তার যে চিহ্ন তা আপনি তা দেখে থাকতে পারবেন না। যদি আপনি ভেবে থাকেন এটি মুখের কোন খারাপ ব্রণের সমস্যা, তবে আপনি ভুল ভাবছেন। তিনি "lupus" এর একটি ধরন  "discoid lupus erythematosus (DLE)'" তে ভুগছেন।

এটি একটি দীর্ঘস্থায়ী চামড়ার অবস্থা যা প্রদাহ ও চামড়ায় দাগের সাথে জড়িত। এটি সূর্যের কারণে বেশি হয়।

 

 

সেলেব্রিটির নাম- পাওলা আন্টোনিনি

source: instragram

source: instragram

২০১৪ সালে এই তরুণী যুবতীর পায়ের উপর একজন মাতাল ড্রাইভার গাড়ি চালিয়ে গেলে তিনি তার একটি পা হারিয়ে ফেলেন। যেখানে অনেকেই সেই অবস্থায় ভেঙ্গে পড়ার কথা, তিনি সেখান থেকে উঠে আসেন। তিনি একজন মডেল হয়ে উঠেছেন এবং সেইসাথে শরীর ইতিবাচক জীবনধারার একজন আইনজীবী। দেখুন, এই ছবিতে তিনি কত খুশি।

 

 

সেলেব্রিটির নাম- লিলি আলেন

source: instragram

source: instragram

এই অত্যন্ত প্রতিভাবান গায়িকা তার গানের অনুষ্ঠানে , ফটোশুট এবং লাল গালিচা অনুষ্ঠানে অনেক ঝুঁকিপূর্ণ পোশাক পড়েন। ভালো করে খেয়াল করলে দেখা যায় তার স্তনসংকট রয়েছে-তার একটি একটি তৃতীয় স্তনবৃন্ত রয়েছে। কিন্তু এটি তাকে সফলতা অর্জন থেকে বিরত রাখতে পারেনি।

 

 

সেলেব্রিটির নাম- কেট বসঅর্থ

source: instragram

source: instragram

21The Horse Whisperer and Young Americans এই চলচ্চিত্রগুলোর মাধ্যমে  কেট বসঅর্থ সকলের হৃদয় জয় করে নিয়েছেন। আপনি তার থেকে চোখ ফেরাতে পারবেন না, যদিও তার চোখ বেশ আকর্ষণীয়! তিনি "হেটেরোক্রমিয়া" নামে একটি রোগে ভুগছেন যেখানে দুই চোখের রং দুইরকম হয়। তার একটি চোখের মণি নীল এবং আরেকটি বাদামি এবং নীল।

 

 

সেলেব্রিটির নাম- অ্যান্ডি গার্সিয়া

© Gilbert Flores/Broadimage/Broad Image/East News

© Gilbert Flores/Broadimage/Broad Image/East News

এটা শুনে আপনার রুপকথার গল্প মনে হতে পারে, কিন্তু অ্যান্ডি গার্সিয়া তার কাঁধে সংযুক্ত একজন জমজের সাথে জন্মগ্রহণ করেন! সৈকতে তার ছবিগুলো ভালো করে খেয়াল করলে লক্ষ্য করবেন তার বাম কাঁধে একটা কাটা দাগ আছে। কিন্তু এটি তাকে তার দুর্দান্ত অভিনয় থেকে আটকাতে পারেনি।

 

 

সেলেব্রিটির নাম- মিলা কুনিস

source: instragram

source: instragram

এই আইকনিক অভিনেত্রী, মা এবং তরুণদের সেনসেশন chronic iritis-এ (দীর্ঘস্থায়ী কারণে চোখের আইরিস প্রদাহ) ভুগছেন। বছর ধরেই এটি তার এক চোখ অন্ধ করে রেখেছে। আপনি তার চোখের দিকে ভালো করে তাকালে দুই চোখের রঙের পার্থক্য দেখতে পাবেন, যেটিও এই রোগের কারণে হয়েছে। 

 

 

সেলেব্রিটির নাম- জেরার্ড বাটলার

source: instragram

source: instragram

জেরার্ড বাটলারকে কানে ভোঁ ভোঁ শব্দের জন্য ছোটকালেই সার্জারি করতে হয়েছিল। যার কারণে তার একটি কান বাইরের দিকে ঝুলে পড়া। চলচ্চিত্রের সময় আঠা দিয়ে তার কান আটকে দেওয়া হয়!

 

 

সেলেব্রিটির নাম- মিলো ভেন্টিমিগ্লিয়া

source: instragram

source: instragram

This is Us চলচ্চিত্রের স্টার মিলো ভেন্টিমিগ্লিয়ার অনেক ফ্যান রয়েছে। তবে প্রথমদিকে তার এতো সুনাম ছিলো না। স্নায়ুর খারাপ ক্রিয়ার কারণে তিনি ঠিকমতো ঠোঁট নাড়াতে পারতেন না। মূলত, তার উপরের ঠোঁটে স্পর্শের কোন ধারণা নেই!

 

 

সেলেব্রিটির নাম- মিলস টেলার

source: instragram

source: instragram

৩১ বছর বয়সী এই অভিনেতার মুখে বেশ বড় দাগ দেখা যায়। যদিও মুখ চলচ্চিত্র জগতে বেশ বড় একটা সম্পদ তবুও তা তাকে চলচ্চিত্র থেকে দূরে রাখতে পারেনি। "Whiplash" or "The Spectacular Now" চলচ্চিত্রে তার অভিনয় দেখে কে কে মুগ্ধ হননি?

 

 

সেলেব্রিটির নাম- ওয়েন উইলসন

source: instragram

source: instragram

আমরা ইতিমধ্যে উল্লেখ করেছি যে মুখের বৈশিষ্ট্যগুলি অভিনেতাদের কর্মজীবনের জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ, তবুও স্রোতের বিপরীতে সাঁতার কাটছেন এরকম আরেকজন অভিনেতা ওয়েন উইলসন। তার কুখ্যাত নাক একাধিক হাড় ভাঙ্গার ফলাফল। এছাড়াও, এটি তার একটি ট্রেডমার্কও বটে!

 

তাই কোন পরিস্থিতিতে হত্যোদাম না হয়ে এগিয়ে যেতে হবে। এভাবে এগিয়ে যেতে পারলে আপনার সাফল্য সুনিশ্চিত, আজকের আর্টিকেলের সেলেব্রিটিদের গল্পগুলো তারই জ্বলন্ত প্রমাণ।

আমাদের আয়োজন ভালো লাগলে লাইক, কমেন্ট, শেয়ারের মাধ্যমে আমাদের সাথেই থাকুন। আমাদের পাশে থাকার জন্য ধন্যবাদ।

 



জনপ্রিয়