স্ত্রীরা যখন মার্কেটে ব্যস্ত তখন স্বামীরা কি করে?

স্ত্রীরা যখন মার্কেটে ব্যস্ত তখন স্বামীরা কি করে? স্ত্রীরা যখন মার্কেটে ব্যস্ত তখন স্বামীরা কি করে?

প্রকৃতিগতভাবেই মেয়েরা মার্কেট করতে পছন্দ করে আর ছেলেরা মার্কেটে গেলে বিরক্ত হয়! মার্কেটে গিয়ে কোনকিছু পছন্দ করে কেনার মধ্যে যেন হাজারো অলসতা কাজ করে ছেলেদের মধ্যে! পকেটে যদি টাকা থাকে তাহলে ছেলেরা মার্কেটে গিয়ে দ্রুত তাদের পছন্দের জিনিস কিনে মার্কেট ত্যাগ করে! কিন্তু মেয়েরা মার্কেটে যেতে পারলে হলো! পকেটে টাকা থাক আর না থাক মার্কেট ঘুরে ঘুরে সময় পার করে দেওয়া বেশীরভাগ মেয়েদের কাছেই পরম আনন্দের! এতে ছেলে বা মেয়েদের কারোই কাউকে দোষারোপ করার কিছুই নেই! কারণ সবারই জীবনযাপনের নিজস্ব স্টাইল অথবা অভিরুচি থাকার স্বাধীনতা আছে বা থাকা উচিৎ।

তবে ছেলে বা মেয়েরা যতদিন সিঙ্গেল থাকে ততদিন পর্যন্ত সব ঠিক থাকে। কিন্তু বিয়ে করার পর বাধে এক মহা জটিলতা! তখন তো আর তারা একা নয় আর তাদের একে অপরকে সঙ্গ দেওয়াও কর্তব্য! তাই ইচ্ছা না থাকা সত্ত্বেও স্বামী বা স্ত্রীকে একে অপরের জন্য এমন সব কাজ করতে হয় যেগুলো একা হলে তারা কখনোই করতো না!

এক্ষেত্রে মার্কেট করাটা কিন্তু একটা বড় উদাহরন। ছেলেদের মার্কেটে যাওয়ার ব্যাপারে আছে চরম অ্যালার্জি আর মেয়েদের মার্কেটে যাওয়ার ব্যাপারে আছে চরম আগ্রহ! আর বেশীরভাগ সময় স্বামীদের স্ত্রীদের সাথে মার্কেটে যেতে হয় চরম অনিচ্ছা সত্ত্বেও! যে সব স্বামী ব্যাপারটাকে ম্যানেজ করে স্ত্রীদের একা মার্কেটে পাঠাতে সক্ষম তাদেরও ঈদ, পূজা কিংবা বিশেষ উপলক্ষে অবশ্যই মার্কেটে যেতে হয়! আর মার্কেটে গেলেই স্বামীদের কি অবস্থা হয় অথবা তারা কি করে এই নিয়েই আমাদের আজকের আয়োজন!

আমরা আজ এমন কিছু ছবি আপনাদের জন্য প্রকাশ করেছি যেগুলোতে দেখা যাচ্ছে বিভিন্ন সময় স্বামীরা যখন স্ত্রীদের সাথে মার্কেটে গেছেন তখন তারা কি করছিলেন! ছবিগুলো আপনার যদি ভালো লাগে তাহলে অবশ্যই শেয়ার করে অন্যদের দেখার সুযোগ করে দিন! আর মেনসন করুন আপনার সেই ফ্রেন্ডদের, বিয়ে করে যাদের অবস্থা এরকম অথবা যাদের স্বামীর অবস্থা এরকম হবে!

১। পুরো জীবনের ওপর বিরক্ত উনি! কারণ শেষ জীবনে এসেও বউয়ের মার্কেট করতে একটুও বিরক্তি নেই!

 

২। এই বেচারারও একই অবস্থা!

 

৩। এনার অবস্থাও একই! তবে এই ব্যক্তি একধাপ এগিয়ে ইনি মার্কেটের সিঁড়িতেই বসে আছেন বউ আসলেই বেড়িয়ে পরবেন!

 

৪। আহারে জীবন! একপাল বিরক্ত স্বামী!

 

৫। উনি ওনার মার্কেট করে ঘুমিয়ে গেছেন!

 

৭। কফি খাওয়ার এনার্জিও আর ওনার নেই!

 

৮। ফেসবুকই শেষ ভরসা!

 

৯। অনন্তকাল ধরে বসে আছেন ওনারা!

 

১০। এখনি এই অবস্থা! হাতের শপিং ব্যাগ তো এখনো ফাঁকা!

 

১১। একটু সময়ের জন্য আপনিও ঘুমিয়ে নিতে পারেন এভাবে!

 

১২। এই মার্কেটের লোকজন জানে বউ যখন মার্কেটে তখন স্বামীদের ঘুমানো ছাড়া কোন কাজ নাই! তাই এই শুব্যাবস্থা!

 

১৩। এসে পৌছাচ্ছে সকল শপিং ব্যাগ আর হিসাব কষছেন উনি!

 

১৪। এই মার্কেটে তো কোন বসার জায়গাই খালি নাই!

 

১৫। কেঁদে ফেলেছেন বেচারা!

 

১৬। জীবনের কাছে হেরে গেছেন ইনি!

 

১৭। নাক ডাকছে বেচারা!

 

১৮। কোনকিছুই তাকে সজাগ রাখতে পারেনি!

 

১৯। আহ ঘুম! শান্তির ঘুম!

 

২০। ভালো করে দেখেন প্রত্যেকেই বিরক্তির আলাদা আলাদা অভিব্যক্তি দিচ্ছেন!

 

২১। জীবন থেকে পালিয়ে বেড়াচ্ছেন উনি!

 

২২। আরও কতো আসছে এই অপেক্ষায় আছেন উনি!

 

২৩। ঘুমানোর জন্য এর চেয়ে ভালো জায়গা আর কি হতে পারে!

 

২৪। সবাই ঘুম! কেউ জেগে নেই এখানে যতো পারেন ছবি তুলুন!

 

২৫। এখানকার সবাই তরুন! জীবনে বিরক্তির শুরু হয়েছে কেবল! হাসছেন কেন আপনার পালাও আসছে...

 

 

তথ্যসূত্রঃ Parenting

Category : বিনোদন
Share This Post