হোটেল থেকে চুরি যাওয়া সবচেয়ে হাস্যকর জিনিস!  হোটেল থেকে চুরি যাওয়া সবচেয়ে হাস্যকর জিনিস!

হোটেল থেকে চুরি যাওয়া সবচেয়ে হাস্যকর জিনিস!

হোটেল থেকে কেউ সাবান কিংবা তোয়ালে নিয়ে আসার কারণে আমরা হয়তো অনেককে নিয়ে হাসাহাসি করি। মজার কথা হলো আজকে যাদের কথা বলবো তাদের কাছে অন্যরা কিছুই না। হ্যাঁ, আজ আমরা কথা বলবো হোটেল থেকে চুরি যাওয়া সবচেয়ে অদ্ভুত কিছু জিনিস নিয়ে।

হোটেলে থাকতে গিয়ে মানুষ কি কি অদ্ভুত জিনিস চুরি করতে পারে তার নমুনা আজ আপনাদের দেখাবো! এরচেয়ে অদ্ভুত চুরি মনে হয় খুব কমই হয়!

ডাম্বেলস!

Brostock/Shutterstock

Brostock/Shutterstock

ভারতের দিল্লীতে একজন জিম পাগল মানুষ একটা হোটেলে থাকতে আসেন, এবং সকালে ব্যায়াম করতে এসে একটা ডাম্বেল নিয়ে চলে যান। হোটেলে থাকা জিম মালিক সেটাই জানান। পরবর্তিতে হোটেল কর্মী তার রুমে ডাম্বেলটা খুঁজে পান, এবং কর্তৃপক্ষকে জানান। যদিও ব্যক্তি সেটা চুরির কথা অস্বীকার করেন। হোটেল কর্তৃপক্ষ সেটা নিয়ে বাড়াবাড়ি করেননি কারণ লোকটা একজন গুরুত্বপুর্ণ অতিথি ছিলেন। যাই হোক হোটেল থেকে যাওয়ার সময় অতিথি বলেন, সেগুলো তিনি স্থানীয় দোকান থেকে কিনেছেন এবং এগুলো তিনি হোটেলেই রেখে যাচ্ছেন।

বাইরে রাখা ভাস্কর্য!

Sandra van der Steen/Shutterstock

Sandra van der Steen/Shutterstock

এক ব্যক্তি একবার হোটেলের সামনে রাখা একটা সিরামিকের ভাস্কর্য নিয়ে পালিয়ে যেতে চেয়েছিলেন। আস্ক এ কন্সার্জের মালিক সারাহ এই কথা জানান। লোকটি খুব বেশি দূর যেতে পারেননি, কারণ সেটা ছিল দারুণ ভারী। তিনি বলেন, ''শেষ পর্যন্ত লোকটি ভাস্কর্য ফেলেই পালিয়ে যান!''

আদিবাসী ভাস্কর্য

Dario Lo Presti/Shutterstock

Dario Lo Presti/Shutterstock

মেক্সিকোর রিভেইরা নায়ারিতে ডব্লিউ পুন্টা দে মিতা রিসোর্ট স্থানীয় আদিবাসী হুইচলের ঐতিহ্যবাহী মুনী ভাস্কর্য সাজিয়ে রাখে। এই ভাস্কর্যগুলো হুইচলদের পূর্বপুরুষদের বানানো এবং দারুণ রঙ্গিন আর সুন্দর তাই এগুলো চুরি করতে চাওয়া কোন অবাক করা বিষয় না। যদি পর্যটকরা এগুলো কিনতে চান তবে হোটেল কর্তৃপক্ষ সেটার দারুণ ব্যবস্থা করে দেন। কিন্তু তবুও অনেকে এগুলো চুরি করতে চায়।

পুরনো ছবি

Volodymyr Nikitenko/Shutterstock

Volodymyr Nikitenko/Shutterstock

ওয়াশিংটনের ম্যারিয়ট ওয়ার্ডম্যান পার্ক হোটেল নিজেদের ১০০ বছর উদযাপন করতে আয়োজন করেন এক মজার আয়োজনের। তারা হোটেলে অবস্থান করা সকল অতিথির কাছ থেকে হোটেলে থাকার অভিজ্ঞতা চেয়ে পাঠান এবং সেরা গল্পকে পুরষ্কার দেয়ার ঘোষণা করেন। সেরা যেই গল্পটা তারা পান সেটা হলো ১৯৪৪ সালে হানিমুন করতে আসে এক দম্পতির কিছু ছবি। মজার কথা এই ছবিগুলোও চুরি করার চেষ্টা করা হয়!

দরজার নাম্বার

gmstockstudio/Shutterstock

gmstockstudio/Shutterstock

এক দশক আগে, ওয়াশিংটনের মেয়ফ্লাওয়ার হোটেলের একটা রুমের নাম্বার বারবার চুরি যেতে থাকে, রুম নাম্বার ৮৭১! এই কক্ষে নিউ ইয়র্কের তৎকালীন গভর্নর একজন পতিতার সাথে এসে রাত কাটান। এই ঘটনা প্রকাশ পাওয়ার পরে গভর্নরের ক্যারিয়ার ধ্বংস হয়ে যায়!

বাথটাব

Susan Schmitz/Shutterstock

Susan Schmitz/Shutterstock

যখন মেয়ফ্লাওয়ার হোটেল তাদের ১০০ বছর পুর্তি আয়োজন করছিলো তখন একটা মজার ঘটনা শোনা যায়। একজন লোক তাদের হোটেলের একটা বাথটাব চুরি করেছে। একজন কর্মীকে ডাকা হয়েছিল হোটেল পুনরায় সাজানোর সময় একটা বাথটাব ভাঙ্গার জন্য, সে বাথটাবটা সবচেয়ে অভিজাত লিফট দিয়ে নামিয়ে নিজের বাড়িতে নিয়ে যায়!

হাঁড়িপাতিল

AlenKadr/Shutterstock

AlenKadr/Shutterstock

সান এন্টনিও লাক্সারি হোটেলের একজন কর্মী বলেন, একবার এক বালক রান্নাঘরের সামনে হলওয়ে দিয়ে যাওয়ার সময় কয়েকটা দামী হাঁড়িপাতিল সাথে করে নিয়ে চলে যায়। তিনি বলেন, ''ঠিক এমনটাই ঘটেছিল, আমরা হয়তো সেটা খেয়াল করতাম না কারণ এগুলো আমাদের অনেক আছে। বালকের বাবা সেটা লক্ষ্য করেন এবং ছেলেকে দিয়ে সেগুলো হোটেলে ফেরত পাঠান!

বালিশ

Intarapong/Shutterstock

Intarapong/Shutterstock

হোটেলের আরামদায়ক বালিশগুলো আমিও চাই বাড়ি নিয়ে আসতে, কিন্তু কেউ যদি লবির সোফাতে রাখা বালিশ বাড়ি নিয়ে যায় তবে সেটাকে কি বলবেন! হ্যাঁ এমন ঘটনাও ঘটেছে বলে জানিয়েছেন দানদাসি!



জনপ্রিয়