গ্যাস্ট্রিক থেকে বাঁচতে যা খাবেন এবং যা এড়িয়ে যাবেন!   গ্যাস্ট্রিক থেকে বাঁচতে যা খাবেন এবং যা এড়িয়ে যাবেন!

গ্যাস্ট্রিক থেকে বাঁচতে যা খাবেন এবং যা এড়িয়ে যাবেন!

খাবার নিজে খুব কমই গ্যাস্ট্রিক সৃষ্টি করে। গ্যাস্ট্রিকের মূল কারণ হলো হেলিকবেক্টর পাইলরি ইনফেকশন! যাই হোক, কিছু খাবার আছে যা গ্যাস্ট্রিকের প্রাদুর্ভাব বাড়িয়ে দিতে পারে, আবার কিছু খাবার আছে যা গ্যাস্ট্রিকের অশান্তি কমিয়ে দিতে পারে এবং এমনকি গ্যাস্ট্রিক সাড়িয়ে তুলতেও পারে।

আমরা আজ আপনাদের এমন কিছু খাবারের কথা জানাবো যেগুলো আপনাকে গ্যাস্ট্রিক থেকে বাঁচাবে এবং গ্যাস্ট্রিক থেকে বাঁচতে যে খাবার এড়িয়ে যাবেন সেগুলোর কথাও জানাবো!

যে সকল খাবার খাবেনঃ

উচ্চ তন্তুবিশিষ্ট খাবার

Cooking Light

Cooking Light

উচ্চ তন্তুবিশিষ্ট খাবার যেমন বাদাম এবং বীজ, জাম এবং সবুজ সবজি পরিপাক ব্যবস্থার জন্য উপকারী, গ্যাস্ট্রিক থেকে বাঁচতেও উচ্চ তন্তু বিশিষ্ট খাবারের জুড়ি নাই। ব্রোকোলি গ্যাস্ট্রিকের জন্য দারুণ উপকারীঃ এতে প্রচুর তন্তু আছে, এতে আরো আছে সালফোরাফ্যান যা হেলিকবেক্টর পাইলরি ব্যাকটেরিয়া মারতে সক্ষম!

স্বাস্থ্যকর ফ্যাটে পুর্ণ খাবার

inspiration-health

inspiration-health

মেদযুক্ত খাবার যদিও গ্যাস্ট্রিকে ভোগা মানুষের জন্য ভাল কোন খাবার না কিন্তু স্বাস্থ্যকর ফ্যাটে পরিপুর্ণ খাবার অবশ্যই অন্যরকম একটা বিষয়। ওমেগা-৩ ফ্যাটি এসিড যুক্ত খাবার পাকস্থলীর জ্বালাপোড়া কমায়। আপনি অ্যাভোকাডো, অলভ ওয়েল, বিভিন্ন রকম বাদাম, এবং বিভিন্ন রকম মাছে এই ফ্যাটি এসিডের দেখা পাবেন। 

প্রোবায়োটিক খাবার এবং পানীয়

Food & Nutrition Magazine

যদি আপনার গ্যাস্ট্রিক থাকে তবে আপনি নানারকম প্রোবায়োটিক খাবেন যেমন দই, কিমচি, কম্বুচা এবং সরক্রাউট, কারণ এগুলো আপনাকে নানাভাবে সাহায্য করবে। প্রথমে, এরা ব্যাকটেরিয়া হয়ে(অবশ্যই ভাল) হেলিকবেক্টর পাইলরি ব্যাকটেরিয়ার সাথে লড়াই করবে। দ্বিতীয়, এরা রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়িয়ে দেবে।

ব্যাকটেরিয়ারোধী এবং সুগন্ধ সমৃদ্ধ খাবার

Young and Raw

Young and Raw

রসুন, পেঁয়াজ, সেলেরি ইত্যাদি গ্যাস্ট্রিক থেকে বাঁচাতে আপনাকে দারুণ সাহায্য করবে। মধু, আদা, তেঁতুল ইত্যাদিও হেলিকবেক্টর পাইলরি ব্যাকটেরিয়া দূর করতে দারুণ কার্যকর।

সবজির জুস

© depositphotos   © depositphotos

© depositphotos © depositphotos

যেহেতু গ্যাস্ট্রিক আক্রান্ত মানুষের জন্য ফলের জুস পানে বাধ্যবাধকতা আছে তাই তারা সবজীর জুস পান করতে পারেন। আলুর জুস, কুমড়োর জুস আপনার দারুণ উপকারে আসবে।

যে সকল খাবার খাবেন নাঃ

অম্লীয় খাবার এবং পানীয়

paris_insights

paris_insights

আমরা সবাই জানি কোলা এবং অত্যধিক চিনি শরীরের জন্য খারাপ এবং সাইট্রিক এসিডযুক্ত খাবার এবং জুসও গ্যাস্ট্রিক বাড়িয়ে দেয়। কিন্তু আমরা এটা জানি না যে আরো কিছু খাবার আছে যা আমাদের এড়িয়ে যেতে হবে যেমন কফি, টমেটো, শস্যের গ্রহণ কমিয়ে দিতে হবে।

ভাঁজা এবং ফ্যাটি খাবার

devourpower

devourpower

ভাঁজা এবং উচ্চ ফ্যাটযুক্ত খাবারে আছে প্রচুর কোলেস্ট্রল যা গ্যাস্ট্রিকের বৃদ্ধির সাথে সরাসরিযুক্ত। গ্যাস্ট্রিক থেকে বাঁচতে এগুলো এড়িয়ে চলুন।

কার্বোনেটেড পানীয়

hungrygirlsquad

hungrygirlsquad

গ্যাস্ট্রিকের হাত থেকে বাঁচতে বলা হয় কার্বোনেটেড পানীয় থেকে দূরে থাকতে। এর মধ্যে থাকা কার্বন ডাই অক্সাইড কার্বোনিক এসিডে রূপ নেয় এবং আপনার জ্বালাপোড়া আরো বাড়িয়ে দেয়!

মশলাদার খাবার

nutrition_facts_org

nutrition_facts_org

গরম মশলা, সজিনা, সরিষা আপনার গ্যাস্ট্রিকের জ্বালাপোড়া আরো বাড়িয়ে দেবে। 

এলকোহলিক পানীয়

spyglassnyc

spyglassnyc

এলকোহল গ্রহণ গ্যাস্ট্রিকের অন্যতম একটা কারণ, তাই জীবন থেকে এলকোহল বাদ দেয়া অতি জরুরী। এলকোহল আপনার পাকস্থলীর জ্বালাপোড়া আরো বাড়ায় এবং অন্যকিছুকে কাজ করতে দেয় না।

ফাস্ট ফুড

mydomaine

mydomaine

ফাস্ট ফুডও আপনার গ্যাস্ট্রিকের সংক্রমণ বাড়িয়ে দেয়। এগুলো গ্যাস্ট্রিক বাড়ানোর পাশাপাশি গ্যাস্ট্রিক সংক্রান্ত অন্য রোগও বাড়িয়ে দেয়!



জনপ্রিয়