পৃথিবীর ইতিহাসে সবচেয়ে ভয়াবহ বিমান দুর্ঘটনাগুলো!

পৃথিবীর ইতিহাসে সবচেয়ে ভয়াবহ বিমান দুর্ঘটনাগুলো! পৃথিবীর ইতিহাসে সবচেয়ে ভয়াবহ বিমান দুর্ঘটনাগুলো!

গতকাল ঢাকা থেকে কাঠমুন্ডু যাওয়া  ফ্লাইটটি দুপুরে বিধ্বস্ত হয়। এতে অন্তত ৫৭ জনের মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করা হয়েছে।। ৭৮ জন ধারণক্ষমতা সম্পন্ন ওই বিমানে ৪ জন ক্রু ও ৬৭ যাত্রী মিলে ৭১ জন আরোহী ছিলেন। বিমানের ৩২ আরোহী বাংলাদেশি এবং ৩৩ জন নেপালি নাগরিক। ছিলেন একজন চীনা ও একজন মালদ্বীপের নাগরিকও। 

দুর্ঘটনা মানে হাহাকার, দুর্ঘটনা মানে স্বপ্নের মৃত্যু, দুর্ঘটনা মানে একটি পরিবার ধ্বংস হয়ে যাওয়া। এরকম দুর্ঘটনা কারো কাম্য নয়। আমাদের আজকের আয়োজনে থাকছে পৃথিবীর ইতিহাসে সংঘটিত সবচেয়ে ভয়াবহ বিমান দুর্ঘটনাগুলোর কথা।

 

টেনের্ফ বিমানবন্দর দুর্ঘটনা - ৫৮৩ জন নিহত।

টেনের্ফ বিমানবন্দর দুর্যোগটেনের্ফ বিমানবন্দর দুর্যোগ

১৯৭৭ সালে টেনের্ফের স্প্যানিশ দ্বীপে ২টি বোয়িং ৭৪৭-এর মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এটি ইতিহাসের সবচেয়ে মারাত্মক বিমান দুর্ঘটনা বলে মনে করা হয়। এতে ৫৮৩ জনের মৃত্যু হয়। ৬১ জন বেঁচে থাকার সৌভাগ্য অর্জন করেন।

 

জাপান এয়ারলাইন্স ফ্লাইট ১২৩ - ৫২০ মৃত।

জাপান এয়ারলাইন্স ফ্লাইটজাপান এয়ারলাইন্স ফ্লাইট

১৯৮৫ সালের ১২ আগস্ট টোকিও থেকে ওসাকা জাওয়ার পথে তকামগাহার পাহাড়ে বিমানটি বিধ্বস্ত হয়। এতে ৫২০ জনের মৃত্যু হয়।৪ জন বেঁচে থাকার সৌভাগ্য অর্জন করেন।

 

চারখি দাদরি সংঘর্ষ- ৩৪৯ জন মৃত।

চারখি দাদরি সংঘর্ষচারখি দাদরি সংঘর্ষ

ইতিহাসের মারাত্মক মধ্য আকাশের বিমান সংঘর্ষ। দিল্লীর পশ্চিমে সৌদি আরব এয়ারলাইন্স এবং কাজাখস্তান এয়ারলাইন্সের মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। উভয় বিমানেরই সকলে নিহত হয়। 

 

তুর্কি এয়ারলাইন্স ফ্লাইট ৯৮১- ৩৪৬ জন নিহত।

তুর্কি এয়ারলাইন্স ফ্লাইট ৯৮১তুর্কি এয়ারলাইন্স ফ্লাইট ৯৮১

১৯৭৪ সালে ফ্রান্সের প্যারিসের কাছে এরিমেন বেল্টে বিমানটি বিধ্বস্ত হয়। বিমানের ৩৪৬ জন যাত্রীর সকলে নিহত হয়।

 

এয়ার ইন্ডিয়া ফ্লাইট ১৮২ - ৩২৯ জন নিহত।

এয়ার ইন্ডিয়া ফ্লাইট ১৮২এয়ার ইন্ডিয়া ফ্লাইট ১৮২

১৯৮৫ সালের ২৩ জুন এয়ার ইন্ডিয়া ফ্লাইট ১৮২ এ লন্ডন ও মন্ট্রিলের মধ্যে ওড়াকালীন সময়ে বোমা বিস্ফোরিত হয়। আয়ারল্যান্ডের উপকূলে এটি আটলান্টিক মহাসাগরে গিয়ে পড়ে। ৩২৯ জনের সকলে নিহত হয়।

 

সৌদি আরব ফ্লাইট ১৬৩ - ৩০১ জন নিহত।

সৌদি আরব ফ্লাইট ১৬৩সৌদি আরব ফ্লাইট ১৬৩

রিয়াদ থেকে জেদ্দা পর্যন্ত এই ফ্লাইটটি টেকঅফের পরেই দুর্ঘটনা কবলিত হয়। জরুরী অবতরণ করলেও কেউ উদ্ধারের আগেই ধোঁয়ার কারণে সকলের অর্থাৎ ৩০১ জনের মৃত্যু ঘটে।

 

ইরান এয়ার ফ্লাইট ৬৫৫ - ২৯০ জন নিহত।

ইরান এয়ার ফ্লাইট ৬৫৫ইরান এয়ার ফ্লাইট ৬৫৫

৩ জুলাই, ২০০৯ সালে ইরাক-ইরান যুদ্ধের সময় তেহরান ও দুবাইয়ের মধ্যে থাকাকালীন বিভ্রান্ত যোগাযোগের কারণে ইউএসএস ভিনসেনস এটিতে গুলি করে। ২৯০ জনের সকলেই মারা যান।

 

ইরানের বিমানবাহিনীর দুর্ঘটনা - ২৭৫ জন নিহত।

ইরানের বিমানবাহিনীর দুর্ঘটনাইরানের বিমানবাহিনীর দুর্ঘটনা

১৯ শে ফেব্রুয়ারি, ২০০৩ সালে একটি অজ্ঞাত অভিযানে বিপ্লবী গার্ড বহনকারী একটি ইরানী বিমান বাহিনী কেরমানের পাহাড়ে বিধ্বস্ত হয়। এতে সবাই মৃত্যুবরণ করেন।

 

আমেরিকান এয়ারলাইন্স ফ্লাইট ১৯১- ২৭৩ জন নিহত।

আমেরিকান এয়ারলাইন্স ফ্লাইট ১৯১আমেরিকান এয়ারলাইন্স ফ্লাইট ১৯১

১৯৭৯ সালের আমেরিকান এয়ারলাইন্স ফ্লাইট ১৯১ ক্র্যাশ মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যে সবচেয়ে খারাপ বিমান দুর্ঘটনা। ঘটনাস্থলের একজন ্দমকল কর্মী বলেন যে কোন একটি অক্ষত শরীর পাওয়া যায়নি। ২৭৩ জনের সকলে মৃত্যুবরণ করেন।

 

লকারবি বিস্ফোরণ - ২৭০ জন নিহত। 

লকারবি বিস্ফোরণলকারবি বিস্ফোরণ

১৯৮৮ সালের ২১ শে ডিসেম্বর লন্ডন থেকে নিউ ইয়র্ক সিটি যাওয়ার পথে প্যান এম ফ্লাইট ১০৩ এ বোমা বিস্ফোরিত হয়। স্কটল্যান্ডের লকারবিয়ের কাছে একটি মাঠে বিমানটি বিধ্বস্ত হয়। ২৭০ জনের সকলে মৃত্যুবরণ করেন।

 

 

ঈশ্বরের কাছে এই প্রার্থনা করি এরকম দুর্ঘটনা যাতে আর কখনো না ঘটে। সবাইকে তিনি যেন সুস্থ রাখেন।

আসুন আমরা সকলে মিলে গতকালের দুর্ঘটনায় নিহতদের জন্য প্রার্থনা করি। আর যারা বেঁচে আছেন তাদেরকে যেন ঈশ্বর দ্রুত সুস্থ করে তুলেন।

 

Share This Post