আমরা সবাই উনার মত জীবনই আশা করি! আমরা সবাই উনার মত জীবনই আশা করি!

আমরা সবাই উনার মত জীবনই আশা করি! (জেনে নিন লম্বা জীবনের রহস্য)

জেন লুইস ক্যালমেন্ট, কাগজে কলমে সবচেয়ে বেশি দিন আয়ু পাওয়া মানুষ, ১২২ বছর ১৬৪ দিন বেঁচে ছিলেন! ভাগ্যই যেন নির্ধারণ করে দিয়েছিলো ম্যাডাম ক্যালমেন্টের এই লম্বা জীবন। 

১৮৭৫ সালের ২১শে ফেব্রুয়ারি ফ্রান্সের আরলেসে জন্মগ্রহণ করেন জেন। আইফেল টাওয়ার যখন তৈরি করা হয় তখন তার বয়স ছিলো ১৪ বছর। এই সময়টাতে তিনি বিখ্যাত শিল্পী লুইস ভ্যান গগের সাথে দেখা করেন। ১৯৮৮ সালে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে জেন বলেন, 'ভ্যান গগ ছিলেন নোংরা, ময়লা পোশাক পরা, সবসময় ভিন্নমত পোষণকারী'। 

Jeanne Louise Calment

Jeanne Louise Calment

যখন তার বয়স ৮৫ বছর তিনি বাড়ির বেষ্টনি ঠিক করতেন এবং ১০০ বছর বয়স পর্যন্ত তিনি সাইকেল চালাতেন। ১১৪ বছর বয়সে তিনি নিজের উপর বানানো এক সিনেমায় অভিনয় করেন। ১১৫ বছর বয়সে তিনি কোমরের একটা অপারেশন করান, ১১৭ বছর বয়সে সিগারেট ছেড়ে দেন, যা তিনি ২১ বছর বয়সে শুরু করেছিলেন। তিনি কিন্তু স্বাস্থ্যগত কারণে সিগারেট ছাড়েন নি, তিনি ছেড়েছেন কারণ তিনি অন্ধ হয়ে গেলে কারো কাছে সিগারেট ধরিয়ে দেয়ার কথা বলতে রাজি না।

১৯৬৫ সালে জেনের বয়স ছিলো ৯০ বছর। কোন বংশধর না থাকার কারণে তিনি তার বাড়িটা বিক্রি করে দিতে চান। ৪৭ বছর বয়সী আইনজীবী আন্দ্রে রাফ্রে তা কিনতে রাজি হোন। মাসিক ২৫০০ ফরাসি টাকার কিস্তিতে তিনি কিনতে রাজি হোন এবং শর্ত ছিলো জেন মারা গেলে তিনি বাড়িটাতে উঠতে পারবেন। কিন্তু রাফ্রে মাত্র ৩০ বছর জেনের টাকা শোধ করতে পেরেছিলেন কারণ সে ৭৭ বছর বয়সে মারা যায়। তার স্ত্রী পরবর্তিতে বাকি টাকা শোধ করতে থাকেন। 

Jeanne Calment

Jeanne Calment

নিজের শেষ সময় পর্যন্ত জেন নিজের শক্ত মানসিকতা ধরে রাখতে সমর্থ হোন। ১২০তম জন্মদিনে তাকে জিজ্ঞেস করা হয়েছিলো, 'আপনি কেমন জীবন চেয়েছিলেন?' জেন বলেছিলেন, 'ছোট একটা জীবন।'

জেনের কিছু চমৎকার উক্তি এবং জীবন রহস্য!

১। সদা তরুণ থাকা একটা মানসিক অবস্থা, এটা শরীরের উপর নির্ভর করে না। আমি এখনও একটা তরুণী, শুধু গত ৭০ বছর ধরে দেখতে তেমন সুন্দর না!

২। আমার চামড়ায় ভাঁজ পড়েছে এবং আমি তার উপরেই বসে আছি।

৩। প্রত্যেক শিশুই চমৎকার এবং সুন্দর!

৪। ঈশ্বর বোধয় আমার কথা ভুলে গেছেন!

Jeanne Calment

Jeanne Calment

৫। সবসময় হাসিখুশি থাকুন, এটা দিয়েই আমি আমার লম্বাজীবন ব্যাখ্যা করতে পারি।

৬। যদি কোন বিষয় পরিবর্তন করা সম্ভব না হয় সেটা নিয়ে দুশ্চিন্তা বাদ দিন।

৭। আমি কখনও চোখে মাস্কারা লাগাইনি, আমি হাসতে হাসতে প্রায়ই কেদে ফেলতাম।

৮। আমার মনে হয় আমি হাসতে হাসতে মারা যাবো। 

৯। আমি কম দেখতে পাই, কম শুনতে পাই, আমি শরীর খারাপ কিন্তু সবকিছুই ঠিকমত চলছে!

Jeanne Calment

Jeanne Calment

১০। এক সাক্ষাৎকার শেষে সাংবাদিক বলেন, 'আমাদের আবার হয়তো দেখা হবে'। জেন তাকে বলেন, 'কেন হবে না? তুমি এখনও বুড়ো হওনি। তুমি কোথাও যাচ্ছো না!' 



জনপ্রিয়